আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

  • Share this:

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ রবিবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

anandabazar11

১)রামরাজ্যে যোগীরাজ, উত্তরপ্রদেশে আজ শপথ নেবেন আদিত্যনাথ

চোদ্দো বছর বনবাসের পর উদ্ধার হয়েছে ‘রাম-রাজ্য’ উত্তরপ্রদেশ। বাবরি-ধ্বংসের ২৫ বছরে রাম-রাজ্যের সিংহাসনে এক যোগীকে বসানোর সিদ্ধান্ত নিলেন নরেন্দ্র মোদী। ভোটের ফল প্রকাশের পরের এক সপ্তাহের ধোঁয়াশা কাটিয়ে শনিবারই উত্তরপ্রদেশের নতুন মুখ্যমন্ত্রীর নাম ঘোষণা হয়েছে। আগামী কাল শপথ নেবেন নতুন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। সঙ্গে দুই উপ-মুখ্যমন্ত্রী কেশব প্রসাদ মৌর্য এবং দীনেশ শর্মা। উত্তরপ্রদেশে গোটা ভোট জুড়ে মোদী মুখে উন্নয়নের কথা বললেও কৌশলে তুলেছেন সূক্ষ্ম মেরুকরণের হাওয়া। আর ভোটে বিপুল জয়ের পরেই তাঁর আস্তিন থেকে বেরিয়ে এল হিন্দুত্বের আসল তাস। গেরুয়া বসনধারী যোগী আদিত্যনাথ মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে মনোনীত হওয়ার পরে মুখে যতই উন্নয়নের কথা বলুন না কেন, তাঁকে বাছাইয়ের পিছনে যে হিন্দুত্বের অঙ্কই কাজ করছে— সেটা স্পষ্ট করে দিয়েছেন মোদী-অমিতরা।

২) ছক ভাঙছি তরুণদের জন্য: দাবি করলেন নরেন্দ্র মোদী

দেশ বদলে যাচ্ছে। তরুণ প্রজন্মের প্রত্যাশা মেটাতে তাই তাঁরা সরকার চালানোর চিরাচরিত প্রথা ভেঙে বেরিয়ে এসেছেন বলে দাবি করলেন নরেন্দ্র মোদী। তাঁর মতে, মানুষ এখন অন্য ভাবে ভাবছেন। সে জন্যই তাঁরা সমর্থন করেছেন নোট বাতিলকে। বিরোধীদের কটাক্ষ করে তাঁর মন্তব্য, ‘‘নোটবন্দির ফল কী হচ্ছে, তা অনেকে বুঝতেই পারেননি।’’ মুম্বইয়ে এক অনুষ্ঠানে বক্তৃতা দেওয়ার কয়েক ঘণ্টা আগেই উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে যোগী আদিত্যনাথের নামে সম্মতি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। পাঁচ রাজ্যে ভোটে বিপুল জয়ের পরে কট্টর হিন্দুত্ববাদী হিসেবে পরিচিত আদিত্যনাথের নির্বাচনে স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন উঠেছে মোদী সরকারের অবস্থান নিয়ে। যদিও এ দিনের বক্তৃতায় তিনি ‘সব কা সাথ, সব কা বিকাশ’-এর মন্ত্রকেই গুরুত্ব দিলেন। বললেন গোটা দেশের উন্নয়নের কথা। বোঝাতে চাইলেন, তাঁর সরকার সমস্ত ভারতবাসীর, বিশেষ করে তরুণদের জন্য কাজ করছে।

৩)নারদ তথ্য হাতে নিল সিবিআই

কলকাতা হাইকোর্টের ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি নিশীথা মাত্রের ডিভিশন বেঞ্চ শুক্রবার সিবিআইয়ের হাতে নারদ-কাণ্ডের তদন্তভার তুলে দিয়েছিল। সেই নির্দেশের ২৪ ঘণ্টার মধ্যে শনিবার সকালে ভিডিও ফুটেজ, ফরেন্সিক পরীক্ষার রিপোর্ট ও আনুষাঙ্গিক যন্ত্রপাতি সংগ্রহ করলেন তদন্তকারীরা। হাইকোর্টের নির্দেশে সে সব স্ট্র্যান্ড রোডে স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার কলকাতার প্রধান কার্যালয়ে গচ্ছিত ছিল। আদালতের নির্দেশের পরে শুক্রবার রাতেই হাইকোর্টের এক রেজিস্ট্রার ওই ব্যাঙ্কে গিয়েছিলেন। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে তিনি জানিয়ে এসেছিলেন, ব্যাঙ্কের লকারে থাকা ভিডিও ফুটেজ ও ফরেন্সিক পরীক্ষার রিপোর্ট-সহ বিবিধ তথ্যপ্রমাণ সিবিআইয়ের অফিসারেরা শনিবার নিতে যাবেন। সেই মতো এ দিন বেলা ১১টা নাগাদ নিজাম প্যালেস থেকে সিবিআইয়ের এসপি নগেন্দ্র প্রসাদের নেতৃত্বে আট জনের একটি দল ব্যাঙ্কে পৌঁছয়। গত বছর হাইকোর্টের নির্দেশে যে তিন জনের কমিটি নারদ নিউজের কর্তা ম্যাথু স্যামুয়েলের কাছ থেকে স্টিং অপারেশনের ভিডিও ফুটেজ সংগ্রহ করে কেন্দ্রীয় ফরেন্সিক ল্যাবরেটরিতে নিয়ে গিয়েছিলেন, নগেন্দ্র সেই কমিটিতে ছিলেন।

৪) চেতেশ্বরের সাধনায় লড়াইয়ের মঞ্চ

টাইম মেশিন বলে কি কিছু আছে? বোধহয় না।

তবু তো সত্তর-আশির দশকে ফিরে যাওয়া গেল। টাইম মেশিন ছাড়াই। শনিবার ক্রিকেটভক্তদের সে যুগে ফিরিয়ে নিয়ে গেলেন চেতেশ্বর পূজারা। হাল আমলের সাড়ে তিন বা চার দিনে শেষ হওয়া টেস্ট ম্যাচ নয়। রাঁচীর জেএসসিএ স্টেডিয়ামে যেন এমন এক টেস্ট ম্যাচের রিপ্লে চলছে, যা হতো টাইগার পটৌডি, বিষাণ সিংহ বেদী, সুনীল গাওস্করদের যুগে। যাতে পাঁচ দিনের ক্রিকেট যুদ্ধের গনগনে আঁচ থাকত ভরপুর। আদি ক্রিকেটের অকৃত্রিম উপাদানে ভরা এক অসাধারণ ও স্মরণীয় ইনিংস শুক্রবার খেলেছেন স্টিভ স্মিথ। আর শনিবার পূজারা উপহার দিলেন তেমনই এক আভিজাত্যে মোড়া ইনিংস, যা টেস্ট ক্রিকেটের খানদানি মশলায় ঠাসা।

bartaman_big11

১) নারদে জড়িত নেতা-মন্ত্রীদের এবার জেরা করবে সিবিআই

নারদকাণ্ডে অভিযুক্তদের প্রত্যেককেই জিজ্ঞাসাবাদ করবে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই। শুক্রবারই এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেয় কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ। প্রায় সঙ্গে সঙ্গে এই কাজে ঝাঁপিয়ে পড়েছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। এক সিবিআই কর্তা জানালেন, অভিযুক্তদের জিজ্ঞাসাবাদ করার আগে কিছু তদন্ত প্রক্রিয়া রয়েছে। সেসব সম্পূর্ণ করার পরই অভিযুক্তদের জেরা করা শুরু হবে। সিবিআই সূত্রের দাবি, অভিযুক্তদের জেরা করার আগে মূল অভিযোগকারী ম্যাথু স্যামুয়েলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। তাঁর কাছ থেকে যে সমস্ত নথি আদালত বাজেয়াপ্ত করে ফরেনসিক পরীক্ষা করিয়েছিল, সেগুলি পুনরায় ফরেনসিক পরীক্ষা করানোর কোনও প্রয়োজনীয়তা আছে কি না, তা খতিয়ে দেখবে সিবিআই।

২)মুখ্যমন্ত্রীর গদিতে হিন্দুত্বের মুখ সেই যোগী আদিত্যনাথ, উত্তরপ্রদেশে দু’জন উপ মুখ্যমন্ত্রী

সব কা সাথ সব কা বিকাশ এবং ডিজিটাল ইন্ডিয়ার মতো আধুনিক ভারতের উন্নয়নের স্লোগানকে পিছনে পাঠিয়ে ক্ষমতায় আসার মাত্র আড়াই বছরের মধ্যেই মোদির বিজেপি উত্তরপ্রদেশের সিংহাসনে বসালেন উগ্র হিন্দুত্বের মুখকেই। রাজনাথ সিং, মনোজ সিনহা কিংবা কেশব প্রসাদ মৌর্যর মতো নরমপন্থী কেউ নয়, মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহ আজ বেছে নিলেন যোগী আদিত্যনাথকে। গোরখপুরের গোরখনাথ মন্দিরের প্রধান মহন্ত এবং বিজেপির ৬ বার টানা জয়ী এমপি আদিত্যনাথ উত্তরপ্রদেশ তো বটেই, দেশের মধ্যেও অন্যতম কট্টরপন্থী হিন্দুত্বের মুখ হিসাবে পরিচিত।

৩) কলকাতা পুরসভাতেও আঁচ নারদের, বাজেট পেশে বাধা

নারদকাণ্ডের আঁচ এসে পড়ল এবার কলকাতা পুরসভার বাজেট অধিবেশনে। শুক্রবার হাইকোর্ট এই মামলায় সিবিআই-এর হাতে তদন্তভার তুলে দেওয়ার পর উজ্জীবিত বিরোধীরা পুর বাজেট অধিবেশনে যে একেবারে চুপ করে থাকবে না, তা টের পাওয়া যাচ্ছিলই। কিন্তু শনিবার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় বাজেট প্রস্তাব পড়তে শুরু করলেই যেভাবে বামফ্রন্ট, কংগ্রেস, বিজেপি একযোগে মেয়রের পদত্যাগের দাবিতে হইচই বাধায় এবং যেভাবে তৃণমূলের কাউন্সিলারদের সঙ্গে বিরোধীদের ধস্তাধস্তি শেষ পর্যন্ত হাতাহাতিতে পৌঁছায়, তা পুরসভার ইতিহাসে নজিরবিহীনই বটে! ২০১৭-১৮ আর্থিক বছরের জন্য আয়-ব্যায়ের প্রস্তাবিত হিসাব এদিন মেয়র পেশ করেন। তুমুল হইচই এবং দু’পক্ষের বাকবিতণ্ডার মধ্যে মেয়র বাজেট প্রস্তাব পড়তে থাকেন। গোলমালের মধ্যে মেয়র সম্পূর্ণ বাজেট বই পড়ে পরিশ্রম বাড়াননি।

৪) ন্যাশনালে রোগীর দেহ আটকে রাখার অভিযোগ ডাক্তারদের বিরুদ্ধে, ধুন্ধুমার

বেনিয়াপুকুর লেনের এক গৃহবধূর মৃত্যুকে কেন্দ্র করে শনিবার দিনভর উত্তেজনা ছিল কলকাতার চিত্তরঞ্জন ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে। চিকিৎসার গাফিলতিতেই ওই মহিলার মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছে রোগিণীর বাড়ির লোকজন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় হাসপাতাল চত্বরে বিশাল পুলিশ বাহিনী মোতায়েন করতে হয়। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, মৃতার বাড়ির লোকজন কয়েকজন জুনিয়র চিকিৎসককে মারধর করেছে। অন্যদিকে, মৃতার কাকা মাধব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং স্বামী সত্যব্রত মুখোপাধ্যায়ের অভিযোগ, বিশৃঙ্খলায় আমাদের পরিবার কোনওভাবেই যুক্ত নয়। তা সত্ত্বেও আমাদের পরিচিত তিন যুবককে জুনিয়র ডাক্তাররা জোর করে একটি ঘরে আটকে রাখেন।

First published: 09:18:32 AM Mar 19, 2017
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर