হোম /খবর /কলকাতা /
অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে একী কাণ্ড! দরজা খুলতেই চমকে উঠল কলকাতা পুলিশ

অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে একী কাণ্ড! দরজা খুলতেই চমকে উঠল কলকাতা পুলিশ

গাড়ি থেকে যা বেরিয়ে এল, তা দেখে হতবাক সকলে।

  • Share this:

#কলকাতা: নাকে অক্সিজেনের নল। অ্যাম্বুলেন্সে রোগীর আসনে শুয়ে যুবক। হেস্টিংস মোড়ে আসতেই গাড়ি আটকানো হয় পুলিশের তরফে। আর তারপরে গাড়ি থেকে যা বেরিয়ে এল, তা দেখে হতবাক সকলে। মধ্যরাতে এমনই এক অ্যাম্বুলেন্স আটক করে তাতে মিলল প্রায় ৫৩ কেজি গাঁজা। গ্রেফতার রোগীর বেশে থাকা যুবক ও চালকের আসনে থাকা যুবকও।

পুলিশ সূত্রে দাবি, গাঁজা পাচার করতে ভাড়া করা হয় অ্যাম্বুলেন্স। পাচারকারীরা রোগী ও চালক হিসাবে অ্যাম্বুলেন্সে ছিল। ধৃতদের মধ্যে ভোলানাথ সিং মেদিনীপুর সদরের বাসিন্দা। চালকের বেশ ধরে শহরে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে এসেছিল সে। আর সহযোগী ওড়িশার বাসিন্দা অলোক কুমার সাহু সেজেছিল রোগী। পুলিশের চোখে ধুলো দিতে নাকে পরেছিল অক্সিজেনের নল।

রোগী সাজলেও সঙ্গে ছিল না প্রয়োজনীয় চিকিৎসা সংক্রান্ত নথি। আর তাতেই আরও সন্দেহ বাড়ে হেস্টিংস থানা ও নার্কোটিক সেলের আধিকারিকদের। জিজ্ঞাসাবাদে সন্তোষজনক উত্তর না পেয়ে তল্লাশি চালিয়ে অ্যাম্বুলেন্সের মধ্যে থেকে উদ্ধার হয় মাদক ভর্তি ব্যাগ। যা বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে পুলিশের তরফে।

পুলিশ সূত্রে খবর, মেদিনীপুর সদর এই গাঁজা পৌঁছে দেওয়ার কথা ছিল কলকাতায়। কিন্তু পথে পুলিশের হাতে ধরা পড়ার ভয়ও ছিল। তাই পরিকল্পনা হয়, রোগী সাজিয়ে অ্যাম্বুলেন্স নিয়ে পৌঁছে দেওয়া হবে গাঁজা। সূত্রের খবর, মেদিনীপুর সদরে এক বেসরকারি হাসপাতাল চত্বর থেকে চার হাজার টাকা দিয়ে ভাড়া নেওয়া হয় অ্যাম্বুলেন্স। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় রওনা দেন ভোলা ও অলোক। সারা রাস্তা এ ভাবে এলেও রক্ষা হল না কলকাতা ঢুকে।

আরও পড়ুন, কেউ দিল ৫০ হাজার, কেউ ১ লাখ! অভিনব প্রতারণায় মাথায় হাত পড়ুয়াদের

পুলিশের দাবি গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযানে চালানো হয়। অ্যাম্বুলেন্স আসতেই থামিয়ে শুরু হয় জিজ্ঞাসাবাদ। আর তাতেই বেরিয়ে আসে মাদক পাচারের কথা। প্রথমে দুজনকে আটক ও পরে গ্রেফতার করা হয়।বাজেয়াপ্ত করা হয় অ্যাম্বুলেন্স। তবে কোথা থেকে এই গাঁজা তারা এনেছিল, তা জানা যায়নি।

আরও পড়ুন, বাংলাদেশের কুখ্যাত দুষ্কৃতীর দেহ মিলল কলকাতায়, মৃত্যু ঘিরে রহস্য

ধৃতদের নগর ও দায়রা আদালতে তুলে নিজেদের হেফাজতে চেয়ে আবেদন করে কলকাতা পুলিশ। ৯ ডিসেম্বর পর্যন্ত ধৃতদের পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেয় আদালত। নিজেদের হেফাজতে নিয়ে জেরা করে এই চক্রের বাকিদের খোঁজ পেতে মরিয়া তদন্তকারীরা।

Published by:Suvam Mukherjee
First published:

Tags: Ambulance, Drug, Kolkata, Police