• Home
  • »
  • News
  • »
  • kolkata
  • »
  • আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

আজকের খবরের কাগজের সেরা খবর

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷

  • Pradesh18
  • Last Updated :
  • Share this:

    প্রতিদিনের ব্যস্ততায় খবর কাগজ খুঁটিয়ে পড়া সম্ভব হয় না ৷ অনেক সময় গুরুত্বপূর্ণ খবর চোখ এড়িয়ে যায় ৷ তাছাড়া একাধিক কাগজও পড়ার মতো সময় কারোর হাতেই নেই ৷ তাই আসুন এক নজরে, একজায়গায় দেখে নিন কলকাতার বিভিন্ন কাগজের সেরা খবর গুলি ৷ শুক্রবারের গুরুত্বপূর্ণ খবরগুলি হল-

    anandabazar11

    ১) জবাব ইসলামাবাদেরও, চরবৃত্তির দায়ে বহিষ্কার পাক কূটনীতিককে মাটি ফুঁড়েই যেন উঠে এল লোকগুলো। আর দিল্লি চিড়িয়াখানার বেঞ্চে বসা তিন জন দেখল, পালাবার পথ নেই। লোকগুলো ঘিরে ফেলেছে তাদের। বেঞ্চে বসা দু’জন তখন সবেমাত্র কয়েকটা প্যাকেট দিয়েছে তৃতীয় জনকে। বুধবার বিকেলে তিন জনকেই হাতেনাতে ধরার পর দিল্লি পুলিশের গোয়েন্দারা জানিয়েছেন, ওই প্যাকেটে ছিল গুজরাত ও রাজস্থানের পাক সীমান্তে বিএসএফের গতিবিধি সংক্রান্ত নানা নথি। আর বেঞ্চে বসা যে ‘তৃতীয় ব্যক্তি’কে সেই প্যাকেট দেওয়া হচ্ছিল, তিনি দিল্লির পাক হাইকমিশনের কর্মী। নাম, মেহমুদ আখতার। চরবৃত্তির অভিযোগে তাঁকে বহিষ্কার করেছে ভারতের বিদেশ মন্ত্রক। আজ রাতে যার পাল্টা হিসেবে ইসলামাবাদে ভারতীয় হাইকমিশনের কর্মী সুরজিৎ সিংহকে বহিষ্কার করেছে পাক সরকার।

    ২) ২% ডিএ কেন্দ্রের, রাজ্যে পিছোচ্ছে কমিশন দীপাবলির আগে এক দিকে রোশনাই, অন্য দিকে অন্ধকার। বৃহস্পতিবার ধনতেরাসের আগের দিন কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মচারীদের জন্য ২% মহার্ঘভাতা (ডিএ) ঘোষণা করল দিল্লি। একই দিনে ষষ্ঠ রাজ্য বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকার নবান্নের কাছে কমিশনের সুপারিশ জমা দেওয়ার সময়সীমা আরও এক বছর বাড়ানোর আর্জি জানালেন। এটা জানার পরেই নবান্ন-সহ রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দফতরের কর্মীরা ক্ষোভে ফেটে পড়েন। অনেকেই বলেন, ‘‘মেলা-খেলা-উৎসবে সরকারের টাকার অভাব হয় না। শুধু কর্মীদের পাওনা দেওয়ার সময়ে কান্নাকাটি।’’ তাঁরা প্রশ্ন তুলেছেন, ‘‘ছ’মাসে বেতন কমিশন সুপারিশ জমা দেবে বলে মুখ্যমন্ত্রী প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। তার কী হল?’’

    ৩) উর্দি গায়ে মার খাওয়াটা যেন এখন পুলিশের কাজেরই অংশ! উর্দির প্রতি মানুষের সম্ভ্রমই চলে যাচ্ছে! এত দিন জেলায় জেলায় ঘটনাগুলি ঘটছিল বিচ্ছিন্ন ভাবে। সেখানে পুলিশ নিগ্রহের পিছনে বারবার নাম উঠেছে শাসক দলের নেতাদের। আর এখন রোগটা ছড়িয়েছে কলকাতায়। শুধু নেতা বা তাঁদের শাগরেদরা নয়, মহানগরীর যেখানে-সেখানে, যে-কেউ প্রকাশ্যে পুলিশ পিটিয়ে চলে যাচ্ছে! যেমন, বুধবার রাতে উত্তর কলকাতায় দুই মদ্যপ বাইক আরোহী পিটিয়েছে তিন পুলিশকে। পুলিশ জানিয়েছে, রাত এগারোটা নাগাদ যতীন্দ্রমোহন অ্যাভিনিউ ও তারক চ্যাটার্জী স্ট্রিটের সংযোগস্থলে হেলমেটবিহীন দুই বাইক আরোহীকে দেখে তাঁদের থামাতে যান কর্তব্যরত হোমগার্ড দীপঙ্কর দে।

    ৪) সব অভিযোগ ওড়াল টাটা, পাল্টা বিবৃতিতে কড়া জবাব সাইরাস মিস্ত্রি তাঁর অপসারণ নিয়ে মুখ খুলে রতন টাটাকে কাঠগড়ায় তোলার ২৪ ঘণ্টার মধ্যেই পাল্টা জবাব দিল টাটা গোষ্ঠী। টাটা সন্সের পরিচালন পর্ষদের সদস্যদের পাঠানো গোপন ই-মেল কেন সংবাদমাধ্যমের হাতে গেল, এই প্রশ্ন তোলার পাশাপাশি টাটাদের বক্তব্য, সাইরাস যে সব অভিযোগ করেছেন, সে সবই ভিত্তিহীন। তাদের প্রতি বিদ্বেষ থেকেই ওই সব অভিযোগ করা হয়েছে। যার লক্ষ্য, সার্বিক ভাবে টাটা গোষ্ঠী এবং সুনির্দিষ্ট ভাবে কয়েক জন ব্যক্তির ভাবমূর্তিতে আঘাত করা। প্রয়োজনে উপযুক্ত প্রমাণ-সহ জবাব দেওয়া হবে বলেও বৃহস্পতিবার টাটা সন্সের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে।

    bartaman_big11

    ১) চরবৃত্তির দায়ে আটক পাক দূতাবাস কর্মী দেড় বছরে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই প্রক্রিয়া ছিল ‘ডেড ড্রপস’। অর্থাৎ সরাসরি দেখা না করে আলাদা করে দু’পক্ষ হাজির হয়ে যেত। আগে থেকে বলে দেওয়া নির্ধারিত স্থানে প্যাকেটের মধ্যে নথি বা প্রয়োজনীয় তথ্য এক বা একাধিক চর ফেলে রেখে চলে যেত। এবং কাছাকাছি থাকা আইএসআই গুপ্তচর কিছুক্ষণের মধ্যে সেটি হস্তগত করে ফিরে যেত দিল্লির পাকিস্তান দূতাবাসে। তবে মাঝেমধ্যে দিল্লি এবং দিল্লির বাইরে স্পাই নিয়োগ করতে ও নিযুক্ত স্পাইদের কাজকর্ম মনিটর করতে দুপক্ষের দেখাসাক্ষাৎ হত। সেরকমই একটি সাক্ষাৎকারের দিন ছিল গতকাল বুধবার। দিল্লি চিড়িয়াখানায় লেপার্ডের খাঁচার সামনে ছিল অ্যাপয়েন্টমেন্ট। যথারীতি সেই সাক্ষাৎকার সাঙ্গ হয় এবং রাজস্থানের যোধপুর থেকে আসা দুই গুপ্তচর বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ নথি তুলে দিয়েছিল মেহমুদ আখতারের কাছে। কে এই মেহমুদ আখতার? দিল্লির পাকিস্তান দূতাবাসে কর্মরত ভিসা বিভাগের কর্মী। চিড়িয়াখানায় যে এই গোপন লেনদেন হচ্ছে তার আগাম সোর্স মারফৎ খবর ছিল দিল্লি পুলিশের ক্রাইম ব্রাঞ্চের কাছে।

    ২) কলকাতা থেকেও আইএসআই চর আটক, অজ্ঞাত স্থানে জেরা দিল্লিতে ধৃত পাক হাই কমিশনের কর্মী মেহমুদ আখতারকে জেরা করে কলকাতায় এক আইএসআই চরের খোঁজ মিলল। ইতিমধ্যেই তাকে আটক করে অজ্ঞাত জায়গায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে গোয়েন্দা সূত্রে খবর। প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত কী ধরনের তথ্য সে পাচার করত, তা জানার চেষ্টা হচ্ছে। পাক হাই কমিশনের কর্মী মেহমুদের সঙ্গে তার যোগাযোগ দীর্ঘদিনের বলেই জানা যাচ্ছে। তার মাধ্যমে পূর্বাঞ্চলের বিভিন্ন তথ্য পাক হাই কমিশনের ওই কর্মীর কাছে গিয়েছে বলে জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা। পাশাপাশি মেহমুদের ছড়ানো জাল কলকাতাসহ এ রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় কতটা বিস্তৃত এবং নতুন মডিউলে কতজন রয়েছে, তা তার মাধ্যমে জানার চেষ্টা করছেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। বুধবার রাতেই দিল্লি পুলিশের হাতে গ্রেপ্তার হয় পাক হাই কমিশনের কর্মী মেহমুদ আখতার। তার সঙ্গে ধরা পড়ে আরও দু’জন। এদের কাছ থেকে প্রতিরক্ষা সংক্রান্ত গুরুত্বপূর্ণ নথি মেলে।

    ৩) কেন্দ্রীয় কর্মীদের ডিএ বাড়ল ২ শতাংশ, রাজ্যে ক্ষোভ রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের হতাশা আরও বাড়িয়ে দিয়ে কেন্দ্রীয় সরকার আজ আবার দু’শতাংশ মহার্ঘ ভাতা দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে এই প্রস্তাব অনুমোদিতও হয়েছে। প্রায় ৫০ লক্ষ কেন্দ্রীয় কর্মী এবং ৫৫ লক্ষ অবসরপ্রাপ্ত কর্মীর জন্য এটি দেওয়ালির উপহার। এই মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং। এই বছরই কেন্দ্রীয় কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা ৬ শতাংশ বৃদ্ধি করে মূল বেতনের ১২৫ শতাংশ করা হয়েছিল এবং সপ্তম বেতন কমিশনের সুপারিশ অনুযায়ী সেই অংশ মূল বেতনের সঙ্গেই যুক্ত করা হয়েছে। আজ ঘোষিত হওয়া দু’শতাংশ বর্ধিত মহার্ঘ ভাতা (ডিএ ) গত জুলাই মাস থেকে প্রযোজ্য হবে। এর ফলে এ রাজ্যের কর্মীদের সঙ্গে কেন্দ্রের ডিএ’র ব্যবধান বেড়ে দাঁড়াল ৫৬ শতাংশ। কেন্দ্রীয় কর্মীদের বর্ধিত মহার্ঘ ভাতা দিতে চলতি আর্থিক বছরে রাজকোষের ওপর অতিরিক্ত বোঝা দাঁড়াবে ৩৭৪৮ কোটি টাকা।

    ৪) চাঁপদানির ৪টি ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর প্রকোপ, হাসপাতালে ভরতি ১৫ নর্থব্রুক জুটমিল লাগোয়া চাঁপদানি পুরসভার ৫, ৮, ৯ এবং ২০ নম্বর ওয়ার্ডে ডেঙ্গুর প্রকোপ দেখা দিয়েছে। চারটি ওয়ার্ডের প্রায় শতাধিক মানুষ জ্বরে আক্রান্ত। রক্তপরীক্ষার পর এখনও পর্যন্ত ১৫ জন ডেঙ্গু নিয়ে ইএসআই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। যাঁরা হাসপাতালে ভরতি হয়েছেন, ঘটনাচক্রে তাঁদের বাড়ি আশপাশের চারটি ওয়ার্ডে হলেও, প্রত্যেকেই নর্থব্রুক জুটমিলের শ্রমিক। তাই বিষয়টি নজরে আসার পরেই জুটমিলের ভেতরে জমে থাকা জল, আবর্জনা সাফাই করার জন্য পুরসভার তরফে মিল কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

    First published: