Home /News /kolkata /
CPIM-Congress|| চাকরি প্রার্থীদের সমর্থনে যৌথ আন্দোলনের ডাক বাম-কংগ্রেসের, বাড়ছে মিলনের সম্ভাবনা

CPIM-Congress|| চাকরি প্রার্থীদের সমর্থনে যৌথ আন্দোলনের ডাক বাম-কংগ্রেসের, বাড়ছে মিলনের সম্ভাবনা

CPIM Congress protest: করির দাবিতে বেশকিছু দিন ধরে আন্দোলন করে চলেছেন চাকরি প্রার্থীরা। সেই আন্দোলনে সমর্থন জানাতে মাঝেমধ্যেই দেখা করতে গিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীরা। বুধবার সেখানে গিয়েছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভপতি অধীর চৌধুরী।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

#কলকাতা: চাকরির দাবিতে বেশকিছু দিন ধরে আন্দোলন করে চলেছেন চাকরি প্রার্থীরা। সেই আন্দোলনে সমর্থন জানাতে মাঝেমধ্যেই দেখা করতে গিয়েছেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা নেত্রীরা। বুধবার সেখানে গিয়েছিলেন প্রদেশ কংগ্রেস সভপতি অধীর চৌধুরী। সেখানে গিয়েই এই আন্দোলনের ব্যাপ্তি আরও বড় করার জন্য বামেদের আহ্বান জানালেন তিনি। তিনি বলেন, "আমরা এই আন্দোলনের পাশে আছি। শুধুমাত্র রাজনৈতিক ভাবে নয় ব্যক্তিগত ভাবে, একজন জন প্রতিনিধি হিসেবে, একজন নাগরিক হিসেবেও এই আন্দোলনের পাশে আছি। তবে এই আন্দোলনে আমি সমভাবাপন্ন দলগুলিকেও একসাথে চলার আবেদন করছি। বিশেষ করে বামেরা যদি এই আন্দোলন শুরু করে আমি দায়িত্ব নিয়ে বলছি আমি সব রকম ভাবে এই আন্দোলনের পাশে থাকব।"

অধীর চৌধুরীর এই বক্তব্যকে স্বাগত জানিয়েছেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক মহম্মদ সেলিম। তিনি বলেন, "আমি অধীরবাবুর বক্তব্যকে স্বাগত জানাচ্ছি। বিভিন্ন দফতরে যা নিয়োগ হয়েছে। লুট হয়েছে। এর সঙ্গে ক্যাজুয়াল, কন্ট্রাক্টর সবাইকে একসাথে নিয়ে যৌথ আন্দোলনের আহ্বান জানাচ্ছি।" সিপিএম সূত্রে খবর, মূলত ছাত্রযুব সংগঠনের মাধ্যমেই এই আন্দোলনের সূচনা হবে। দলীয় নেতৃত্ব প্রথম ধাপে পিছন থেকে এই আন্দোলনকে পরিচালনা করবেন। পরবর্তী সময়ে পরিস্থিতি বিবেচনা করে রণকৌশল ঠিক হবে। একটা সময় বিভিন্ন বিষয়ে আন্দোলনে রাজপথে একই সাথে দেখা যেত বাম-কংগ্রেস নেতাদের। বিধানসভা নির্বাচনে জোট করে ভোটেও লড়েছিল তারা। একসঙ্গে মিটিং, মিছিল করেছিলেন দুই দলের নেতৃত্ব।

আরও পড়ুন: মেট্রোর রুট বাড়লে একধাক্কায় কমবে রোজগার, আশঙ্কায় অটো-টোটো চালকরা

আইএসএফকে নিয়ে ব্রিগেডে তাল কাটলেও সংযুক্ত মোর্চার নামে একই ছাতার তলায় ভোটেও লড়েছিল এই দলগুলি। কিন্তু বিধানসভা নির্বাচনের পর ক্রমেই দূরত্ব বাড়ছিল সিপিএম ও কংগ্রেসের মধ্যে। পরবর্তী সময় যে নির্বাচনগুলো হয়েছিল সেখানে এই দুই দলের মধ্যে কোনও জোট হয়নি। তবে ভোটের হার বাড়ছিল সিপিএমের। কংগ্রেসের সঙ্গে জোট না হওয়ায় ফলেই এই সাফল্য বলে মনে করছিলেন বাম নেতাদের একাংশ। তারও পরে সব বামপন্থী দলগুলোকে এক ছাতার তলায় এনে আন্দোলন কর্মসূচির জন্য প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। পঞ্চায়েত নির্বাচনে তার ফসল তোলার কৌশলও পাওয়া যাবে বলে মনে করছেন নেতাদের একাংশ।

তবে বুধবারে প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর চৌধুরীর বক্তব্য ও সিপিএমের রাজ্য সম্পাদকের সেই বক্তব্যকে সমর্থন করাকে কংগ্রেস, সিপিএমের ফের কাছে আসার পদক্ষেপ বলে মনে করছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ।

UJJAL ROY

Published by:Shubhagata Dey
First published:

Tags: Cpim, Kolkata

পরবর্তী খবর