Home /News /kolkata /

EXCLUSIVE: মুরগির মাংসে সত্যিই করোনাভাইরাস? জেনে নিন...

EXCLUSIVE: মুরগির মাংসে সত্যিই করোনাভাইরাস? জেনে নিন...

মুরগির মাংস

মুরগির মাংস

কুকুরের শরীরে এই ধরনের ভাইরাস নিয়ে বিপদ থাকলেও আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসা রয়েছে।  কুকুরের শরীরে করোনা  ভ্যাকসিন প্রয়োগের মাধ্?

  • Share this:

 #কলকাতা:  'মুরগির মাংস থেকে কোনও ভাবেই করোনা ভাইরাস ছড়াতে পারে না। এমনকী মুরগির শরীরেও এই ভাইরাস থাবা বসাতে পারে না।  যে খবর রটেছে তা সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। গুজব।'

গত বেশ কয়েকদিন ধরে করোনাভাইরাসের  আতঙ্কে পোলট্রি শিল্পে ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। ক্রেতাদের আতঙ্কের পাশাপাশি পোলট্রি ব্যবসা বিশেষ করে, মুরগির মাংসের ব্যবসায়ীদের ব্যবসা লাটে উঠেছে। এই অবস্থায় News18 Bangla-কে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে  বিশেষজ্ঞ পশু চিকিৎসক স্বপন ঘোষ স্পষ্ট জানিয়ে দিলেন মুরগির মাংসে করোনাভাইরাস  সম্পর্কিত  যে বিষয়টি নিয়ে চর্চা চলছে তা সম্পূর্ণভাবে  গুজব ছাড়া আর কিছুই নয়।

পশু চিকিত্‍সক স্বপন ঘোষ পশু চিকিত্‍সক স্বপন ঘোষ

তাঁর কথায়, 'কুকুরের শরীরে এই ধরনের ভাইরাস নিয়ে বিপদ থাকলেও আক্রান্ত হলে তার চিকিৎসা রয়েছে।  কুকুরের শরীরে করোনা  ভ্যাকসিন প্রয়োগের মাধ্যমে চিকিৎসা করা হয়। তবে করোনাভাইরাস কোনও  অবস্থাতেই মুরগির শরীরে বাসা বাঁধতে পারে না৷'

বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের এই বক্তব্য শোনার পর  ব্যবসায়ীরা যে নিঃসন্দেহে  স্বস্তি পাবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না। যদিও আতঙ্কের প্রথম দিন থেকেই পোলট্রি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীরা বলে আসছিলেন, যে খবর ছড়িয়েছে তা গুজব ছাড়া আর কিছু নয়। পোলট্রি শিল্পের সঙ্গে যুক্ত ব্যবসায়ীরা জানান, ঋতু পরিবর্তনের সময় অসুস্থ হয়ে অনেক মুরগিই মারা যায় । তবে এই ঘটনার সঙ্গে কোনও সংক্রামক রোগের অদৃশ্য জীবাণুর সামান্যতম  যোগাযোগ নেই। যদিও মূলত সোস্যাল মিডিয়ায়  যেভাবে মানুষজন মুরগির মাংস থেকে ছড়াচ্ছে করোনা ভাইরাসের আতঙ্কের কথা উল্লেখ করে বিভিন্ন সতর্কবার্তা এবং ভিডিও প্রকাশ করছেন তাতে পোলট্রি ব্যবসায় বড়সড় আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছেন,  এ রাজ্যের  লক্ষ লক্ষ পোল্ট্রি ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত মানুষজন।

বেশ কয়েক মাস আগে ভাগাড়কাণ্ড প্রকাশ্যে আসার পরে, রাজ্যে মুরগির মাংসের চাহিদা এক ধাক্কায় অনেকটা কমে গিয়েছিল। সে সময়ে পোলট্রি শিল্পে ক্ষতি হয়েছিল প্রায় ৪০০ কোটি টাকা। এ বার সেই ক্ষতিকেও ছাপিয়ে যেতে পারে করোনা আতঙ্ক। রাজ্যের সর্বত্র পোলট্রির মুরগির চাহিদা তলানিতে নেমে এসেছে। দোকান খুলে ক্রেতার দেখা না মেলায় কার্যত মাছি তাড়াচ্ছেন দোকিনারা। তাঁদের দোকানের  দিকে ফিরেও তাকাচ্ছেন না ক্রেতারা।

মন্দার বাজারে চিকেনের দাম কমিয়েও আখেরে সেই ক্ষতি পুষিয়ে উঠতে পারছেন না পোলট্রির কারবারিরা।পোলট্রি ফেডারেশনের দেওয়া হিসেব অনুযায়ী, গুজবের জেরে শেষ তিন সপ্তাহে রাজ্যে জ্যান্ত ব্রয়লার মুরগির বিক্রি কমেছে প্রায় ৫০ শতাংশ। গোটা মুরগির পাইকারি দাম ঠেকেছে কেজি প্রতি ৫০-৫৫ টাকায়। যেখানে খামারে মুরগি বড় করতেই প্রতি কেজিতে খরচ হয় প্রায় ৮০ টাকা।

যদিও ক্রেতাদের আতঙ্কের অবসান ঘটিয়ে  বিশেষজ্ঞ পশু চিকিৎসকদের পরামর্শ,  'কোনও  ভয় নেই। নিরাপদে খান মুরগির মাংস।'

যদিও চিকিৎসকদের এই অভয় বার্তায় কতোটা  আশ্বস্ত হতে পারলেন ক্রেতারা ?  সেটাই দেখার।

VENKATESWAR  LAHIRI 

Published by:Arindam Gupta
First published:

Tags: Chicken, Coronavirus india, Coronavirus OutBreak

পরবর্তী খবর