corona virus btn
corona virus btn
Loading

মোদির লাদাখ সফরের পরই ভারত- চিনের মধ্যে লাগাতার বৈঠক, তাতেই কি বরফ গলল?

মোদির লাদাখ সফরের পরই ভারত- চিনের মধ্যে লাগাতার বৈঠক, তাতেই কি বরফ গলল?
লাদাখে নরেন্দ্র মোদি৷ PHOTO- ANI

প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের পরই একের পর এক বৈঠকে ফের চিনকে কড়া বার্তা দেওয়া হয় ভারতের তরফে৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: শুক্রবার আচমকা লাদাখ সফরে গিয়েছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তার বাহাত্তর ঘণ্টার মধ্যেই উত্তেজনা প্রশমনে অবশেষে পিছু হঠতে শুরু করল ভারতীয় সেনা৷ সংবাদসংস্থা এএনআই-এর খবর অনুযায়ী, প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের পর গত ৪৮ ঘণ্টায় ভারত এবং চিনের মধ্যে কূটনৈতিক ও সামরিক পর্যায়ে একের পর এক বৈঠক হয়৷ এ দিন সংঘাত এড়াতে গালওয়ান উপত্যকায় চিনা সেনার পিছিয়ে যাওয়া সেই সমস্ত বৈঠকেরই ফল বলে দাবি করা হচ্ছে৷

সেনা সূত্র উদ্ধৃত করে সংবাদসংস্থা এএনআই জানিয়েছে, গালওয়ান নদী সংলগ্ন যে এলাকাগুলি থেকে দু'পক্ষ পিছিয়ে আসার বিষয়ে একমত হয়েছিল, সেখান থেকে চিনা সেনা তাদের তাঁবু, বাহিনী এবং যানবাহন সরিয়ে নিয়েছে৷ প্রায় ১ থেকে ২ কিলোমিটার পিছিয়ে গিয়েছে তারা৷ বৈঠকের শর্ত মেনে ভারতীয় সেনাও বেশ কিছুটা পিছিয়ে এসেছে বলে খবর৷

জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের পরই একের পর এক বৈঠকে ফের চিনকে কড়া বার্তা দেওয়া হয় ভারতের তরফে৷ নিজেদের অনড় অবস্থান বুঝিয়ে দেয় নয়াদিল্লি৷ এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রীর লাদাখ সফরের সিদ্ধান্ত কার্যকরী প্রমাণিত হয়েছে৷ অন্যদিকে লাদাখের প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখার পরিস্থিতি নিয়ে ভারতের দায়িত্বশীল এবং স্পষ্ট অবস্থানকে সমর্থন করেছিল বিশ্বের অধিকাংশ দেশ৷ ফলে আন্তর্জাতিক স্তরেও চাপ বাড়ছিল বেজিংয়ের উপরে৷

দু' দেশের বাণিজ্য সম্পর্কেও বড়সড় প্রভাব পড়ছিল৷ ভারত এবং চিনের বাণিজ্য সম্পর্কে যাঁরা বিনিয়োগ করেছেন, বেজিংয়ের উপরে চাপ বাড়াচ্ছিলেন তাঁরাও৷ সবমিলিয়ে অনড় অবস্থান থেকে সরে আসা ছাড়া চিনের কোনও উপায়ও ছিল না৷ সূত্রের খবর, আগাগোড়াই দিল্লি বেজিংকে বুঝিয়ে দিয়েছে, দেশের নিরাপত্তার সঙ্গে কোনও আপোস করা হবে না৷

তবে চিনের সেনাকে এখনই চোখ বুজে ভরসা করছে না ভারতীয় সেনা৷ অন্তত বাহাত্তর ঘণ্টা তাদের গতিবিধি কী থাকে, তা দেখেই পিছু হঠার বিষয়ে নিশ্চিত হতে চায় ভারতীয় বাহিনী৷
Published by: Debamoy Ghosh
First published: July 6, 2020, 1:45 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर