?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

মোদি,মমতা,মনমোহন,গান্ধি পরিবার, প্রধান বিচারপতি এবং...চিনের গোপন নজরদারিতে প্রত্যেকেই !

মোদি,মমতা,মনমোহন,গান্ধি পরিবার, প্রধান বিচারপতি এবং...চিনের গোপন নজরদারিতে প্রত্যেকেই !
Photo Credit: Indian Express

সংবাদপত্র The Indian Express-এর একটি বিশেষ তদন্তে উঠে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ থেকে শুরু করে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বিরোধী নেতা-নেত্রী থেকে শুরু করে চিফ অফ ডিফেন্স বিপিন সিং রাওয়াতের মতো আরও অন্তত ১৫ জন প্রাক্তন সেনাপ্রধান এখন রয়েছেন চিনের গোপন নজরে ৷ সংবাদপত্র The Indian Express-এর একটি বিশেষ তদন্তে উঠে এসেছে এই চাঞ্চল্যকর তথ্য ৷

চিন সরকার এবং চিনা কমিউনিস্ট পার্টির নজরে রয়েছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী-রাষ্ট্রপতি থেকে শুরু করে ১০ হাজারের বেশি হাই-প্রোফাইল ব্যক্তি ৷ তাঁরা কী করছেন, কী করতে পারেন ইত্যাদি সব তথ্য জানা এবং নজরদারির জন্য শেনজেনের প্রযুক্তি সংস্থার সাহায্য নিচ্ছে চিন সরকার ৷ Zhenhua Data Information Technology Co. Limited সংস্থার মাধ্যমে চিনের নজরে রয়েছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, কংগ্রেসের অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট সনিয়া গান্ধি এবং তাঁর পরিবার, প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাজস্থানের অশোক গেহলত, পঞ্জাবের অমরিন্দর সিং, মহারাষ্ট্রের উদ্ধব ঠাকরে, ওড়িশার নবীন পট্টনায়কের মতো বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ৷ এবং রাজনাথ সিং, নির্মলা সীতারামন, স্মৃতি ইরানি, পীযূষ গোয়েলের মতো কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, প্রধান বিচারপতি শরদ বোবদে, রতন টাটা, গৌতম আদানির মতো শিল্পপতিরা প্রত্যেকেই রয়েছেন চিন সরকারের নজরে ৷ যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল ৷ 

এদিকে চিনের নজরে ফিঙ্গার থ্রি। ফিঙ্গার থ্রি’র উঁচু এলাকায় দখল নিতে আঁটঘাঁট বাঁধছে চিনা সেনা। PLA-র হাতে হালকা ট্যাঙ্ক সাঁজোয়া গাড়ি, ক্ষেপণাস্ত্র। তৈরি ভারতও। বৃহস্পতিবার রাতে দুই বিদেশমন্ত্রীর বৈঠকের পরও LAC-তে উত্তেজনার কমার লক্ষ্মণ নেই ৷

লাদাখে প্যাংগং লেকের দক্ষিণে, চিনের ফিঙ্গার ফোরের দখল নেওয়ার ছক ভেস্তে দিয়েছে ভারত। উঁচু জায়গার দখল নিয়ে কৌশলগতভাবে সুবিধাজনক জায়গায় ভারতীয় সেনা। চাপে পড়ে এবার লেকের উত্তরে ফিঙ্গার থ্রি’কে পাখির চোখ করছে চিনা ফৌজ। চিন প্ররোচনার পথে। এই পরিস্থিতিতে হুংকার চিফ অফ ডিফেন্স স্টাফ, জেনারেল বিপিন রাওয়াতের। শুক্রবার, প্রতিরক্ষা বিষয়ক সংসদীয় কমিটির সামনে তিনি জানান, LAC-তে পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। ভারতীয় সেনা যে কোনও পরিস্থিতির জন্য তৈরি।

সেনা সূত্রে খবর, চিনের দখলে থাকা প্যাংগং লেকের উত্তর দিক থেকে ফিঙ্গার থ্রি দখলের চেষ্টা করছে চিনা সেনা। এজন্য প্রায় ২০০ সেনার একটি ইউনিট মোতায়েন করেছে PLA। এই ইউনিটের গতিবিধিতে বদল আসেনি। দুই বিদেশমন্ত্রীর বৈঠকের পরেও সীমান্তে উত্তেজনা কমেনি। বৃহস্পতিবার মস্কোয় দুই বিদেশমন্ত্রীর বৈঠক গড়ায় প্রায় দু ঘণ্টা। সূত্রের খবর, বৈঠকে ৫টি রফাসূত্রে সহমত দুই দেশ৷ প্রতি ক্ষেত্রেই উত্তেজনা কমানোর বার্তা দেওয়া হয় ৷ কিন্তু বৈঠকের কিছুক্ষণের মধ্যেই সেই ফিল গুড ভাব উধাও।চিনের সেনা পিছনোর আশ্বাস নেই ৷  স্থিতাবস্থা বজায় রাখার কথাও বলা হয়নি ৷ পুরনো চুক্তি ও প্রোটোকল মানার কথা থাকলেও সময়সীমা দেওয়া হয়নি ৷

ভারত-চিন বৈঠকের পরও লাদাখে যুদ্ধ যুদ্ধ ভাবটা একইরকম। দু-পক্ষই ট্যাঙ্ক, সাঁজোয়া গাড়ি নিয়ে দাঁড়িয়ে। আগামী অক্টোবরে চিনা কমিউনিস্ট পার্টির গুরুত্বপূর্ণ প্লেনাম৷ সেখানে চিনা কমিউনিস্ট পার্টি প্রতিষ্ঠার শতবর্ষ উদযাপন কীভাবে হবে তা ঘোষণা করবেন শি জিনপিং। কূটনৈতিক মহলের মতে, এই অবস্থায় LAC নিয়ে নরম মনোভাব দেখানো বেজিঙের পক্ষে কঠিন। তাই সীমান্তে এখন যুদ্ধের হাওয়া।

Published by: Siddhartha Sarkar
First published: September 14, 2020, 10:29 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर