• Home
  • »
  • News
  • »
  • india-china
  • »
  • ভুল করেও ভারতীয় সেনার ধৈর্যের পরীক্ষা নেবেন না, সাফ বার্তা সেনাপ্রধান নারাভানের

ভুল করেও ভারতীয় সেনার ধৈর্যের পরীক্ষা নেবেন না, সাফ বার্তা সেনাপ্রধান নারাভানের

photo/ twitter indian army

photo/ twitter indian army

সবকিছুর একটা সীমা আছে। তাই কেউ যদি মনে করে থাকে যে ভারতীয় সেনাকে দীর্ঘ সময় আটকে রেখে ধৈর্যের কঠিন পরীক্ষা নেবে তাহলে কিন্তু তাঁরা বড় ভুল করছে।

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: কোনও লুকোছাপা না করে এবার সরাসরি শত্রুপক্ষকে সাবধান করে দিলেন ভারতীয় সেনাপ্রধান মনোজ মুকুন্দ নারাভানে। সেনা দিবসের প্যারেডে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনি বলেন, "ভারত শান্তিতে বিশ্বাস করে, যুদ্ধে নয়। কিন্তু শান্তির জন্য অনেক সময় শক্তির প্রয়োজন হয়। আমরা বিশ্বাস করি গত কয়েক মাস ধরে যে পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে তা আলোচনা এবং রাজনৈতিক বোঝাপড়ার মাধ্যমে মিটিয়ে ফেলা সম্ভব। কিন্তু সবকিছুর একটা সীমা আছে। তাই কেউ যদি মনে করে থাকে যে ভারতীয় সেনাকে দীর্ঘ সময় আটকে রেখে ধৈর্যের কঠিন পরীক্ষা নেবে তাহলে কিন্তু তাঁরা বড় ভুল করছে। তাদের উদ্দেশ্যে বলতে চাই এই ভুল করবেন না। মূল্য চোকাতে হবে। ভারতীয় সেনার ধৈর্যের পরীক্ষা নিলে তা বিপক্ষ শিবিরের কাছে সুখকর অভিজ্ঞতা হবে না গালওয়ান, হট স্প্রিং, দক্ষিণ প্যাংগং এবং প্রকৃত নিয়ন্ত্রণ রেখার বিভিন্ন এলাকায় চিনের একতরফা এলএসি পরিবর্তনের গোপন প্রচেষ্টা অতীতে ভারতীয় সেনা সফলভাবে আটকেছে এবং আগামী দিনেও একইভাবে আটকাবে"।

    এখানেই না থেমে সেনাপ্রধান জানিয়ে দেন নিজেদের শহিদদের বলিদান ভারত ব্যর্থ হতে দেবে না। আজপর্যন্ত দুই দেশের মধ্যে সামরিক স্তরে আটবার আলোচনা হলেও কোনও সুরাহা বেরোয়নি। কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠক বেকার প্রমাণিত হয়েছে বারবার। বিশেষজ্ঞদের ধারণা এই লোক দেখানো বৈঠক করে চিন সময় বাড়িয়ে যাওয়া ছাড়া আর কিছুই করছে না। তাঁরা ভাল মত জানে অত উচ্চতায়, এই প্রবল ঠান্ডায় প্রতিদিন এত সেনা রাখার পেছনে প্রচুর টাকা খরচ হচ্ছে ভারতের। তাই যুদ্ধ যুদ্ধ ভাব দেখিয়ে স্রেফ ছায়াযুদ্ধ চালিয়ে ভারতীয় অর্থনীতিকে আঘাত করছে তাঁরা।

    পশ্চিম সীমানায় পাকিস্তানকে নিশানা করে সেনাপ্রধান জানিয়েছেন,"পাকিস্তান নিজেদের পরিবর্তন করবে না। এখনও জঙ্গিদের কাছে স্বর্গরাজ্য পাকিস্তান। নিয়ন্ত্রণ রেখার ওপারে বিভিন্ন ট্রেনিং ক্যাম্পে কমপক্ষে তিন থেকে চারশো জঙ্গি ভারতে ঢোকার অপেক্ষায় রয়েছে। বিভিন্ন লঞ্চপ্যাড তৈরি করা থেকে এই জঙ্গিদের সরাসরি সাহায্য করে পাক সেনা। গত বছর সিজ ফায়ার ভাঙার ক্ষেত্রে অতীতের থেকে প্রায় চল্লিশ শতাংশ বেশি বৃদ্ধি পেয়েছিল। তবে শুধু এখানেই থামছে না পাকিস্তান। ড্রোনের মাধ্যমে এদেশে অস্ত্র পাচার করার চেষ্টায় রয়েছে তাঁরা "।

    পাশাপাশি পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি জানিয়ে দিয়েছেন পাকিস্তানকে প্রত্যেকবার কড়া জবাব দিচ্ছে ভারত এবং আগামীদিনেও দেবে। অতীতের তুলনায় কাশ্মীর সীমান্ত দিয়ে এদেশে জঙ্গি অনুপ্রবেশ অনেক কম হয়ে গিয়েছে বলে দাবি করেন সেনাপ্রধান। তবে ভারতীয় সেনা প্রধানের এই বক্তব্য একটা ব্যাপার দিনের আলোর মত স্পষ্ট। প্রয়োজন হলে সবকিছুর জন্য তৈরি থাকতে হবে ভারতীয় সেনাকে।

    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: