Home /News /explained /
Hairfall Due To Covid: কোভিডে বাড়ছে চুল পড়ার সমস্যা! কীভাবে প্রতিরোধ করবেন?

Hairfall Due To Covid: কোভিডে বাড়ছে চুল পড়ার সমস্যা! কীভাবে প্রতিরোধ করবেন?

Hairfall After Covid: চুল পড়া এবং কোভিডের মধ্যে নিহিত সম্পর্ক নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের সমাধান করতে বিশেষজ্ঞদের মতামত এখানে তুলে ধরা হল।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: কোভিড-১৯-এর (Covid 19) দ্বিতীয় ঢেউয়ের সময়, SARs-COV-2 ভাইরাসে আক্রান্ত অনেকেই চুল পড়াকে একটি সাধারণ লক্ষণ হিসেবে উপলব্ধি করতে পেরেছেন। আরও মর্মান্তিক বিষয় হল যে এই অবস্থাটি কোভিড থেকে সেরে ওঠার পরে কয়েক মাস ধরে চলতে থাকে।

মারাত্মক ভাইরাস কোভিডে আক্রান্ত হওয়ার তুলনায় চুল পড়া খুবই নগণ্য বিষয় বলে মনে হতে পারে। পজিটিভ ব্যক্তিদের মধ্যে একটি বড় সংখ্যার মানুষই কিন্তু এই সমস্যায় ভুগছেন।

আরও পড়ুন- EXPALINER: অ্যান্টিবায়োটিক খেয়ে কি কমানো যাবে কোভিডের কাশি? কী বলছেন বিশেষজ্ঞরা

অনেকের কাছেই এই সমস্যা অত্যন্ত উদ্বেগজনক হয়ে উঠেছে। এখন, করোনাভাইরাসে আক্রান্তের ক্রমবর্ধমান সংখ্যার সঙ্গে মানুষ কেবল বারবার সংক্রমণের জন্যই চিন্তিত নন, উপরন্তু তাঁরা উপসর্গগুলির পুনরাবৃত্তি নিয়েও চিন্তিত। তাই চুল পড়া এবং কোভিডের মধ্যে নিহিত সম্পর্ক নিয়ে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রশ্নের সমাধান করতে বিশেষজ্ঞদের মতামত এখানে তুলে ধরা হল।

কোভিড-১৯ কীভাবে চুল ঝড়ে পড়ায় মদত দিচ্ছে

বেশিরভাগ রোগী যারা কোভিড-১৯ দ্বারা আক্রান্ত হয়েছিল তাদের মধ্যে সংক্রমণের প্রায় ২-৩ মাস পরে চুল ঝড়ে পড়ার লক্ষণ দেখা গিয়েছে। Aster RV হাসপাতালের চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডা. স্বাতী শিবকুমারের (Dr Swathi Shivakumar) মতে, যদিও বেশিরভাগ ক্ষেত্রে চুল পড়ার ঘটনায় পুষ্টির ঘাটতি, হরমোনের পরিবর্তন, মানসিক চাপ, পরিবেশগত কারণ এবং জেনেটিক কারণ থেকে শুরু করে একাধিক কারণ দায়ী থাকে তবে কোভিডে চুল পড়াকে 'টেলোজেন এফ্লুভিয়াম' (telogen effluvium) হিসাবে শ্রেণীবদ্ধ করা হয়েছে। এর কারণগুলি হল:

- লকডাউনের ফলে মানসিক চাপের পাশাপাশি সংক্রমণের ভয়

- ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার প্রতিক্রিয়া হিসাবে প্রোইনফ্ল্যামেটরি সাইটোকাইন নিঃসরণ চুলের ফলিকলগুলিকে ক্ষতি করেছে

- ভাইরাস নিজেই সরাসরি চুলের ফলিকলের ক্ষতি করতে পারে, তবে এটি এখনও প্রমাণিত সত্য নয়, এই বিষয়ে আরও গবেষণা চলছে

- শরীরে সংক্রমণ/প্রদাহজনক প্রক্রিয়ার সময়, আয়রন, জিঙ্ক, বি-কমপ্লেক্স ভিটামিনের মতো পুষ্টির ক্ষয় হয় যা চুলের বৃদ্ধি এবং শক্তির জন্য অপরিহার্য

কোভিড-পরবর্তী একটি সাধারণ লক্ষণ হতে পারে চুল পড়া, কারণ?

বর্তমানে, কোভিডের কারণে কারা চুল পড়ার সমস্যায় ভুগতে পারে বা না পারে তা বলা যাচ্ছে না। যারা এই সংক্রান্ত অবস্থার সঙ্গে মোকাবিলা করেছেন তাদের মতে কোভিড থেকে সেরে ওঠার কয়েক মাস পর্যন্ত এই সমস্যা স্থায়ী হয়।

বিশেষজ্ঞের মতে, "আমাদের চুল বৃদ্ধির পর্যায় (অ্যানাজেন) রূপান্তর (ক্যাটাজেন), স্থায়ীত্ব (টেলোজেন) এবং ঝরানো (এক্সোজেন) এই বিষয়গুলি একটি চক্রাকার পর্যায়ে সম্পূর্ণ হয়। যেহেতু আমাদের মাথার ত্বকে লক্ষ লক্ষ লোমকূপ রয়েছে এবং এর প্রতিটি ফলিকল একটি নির্দিষ্ট সময়ের ব্যবধানে ভিন্ন পর্যায়ের মধ্য দিয়ে যায় তাই, চুল পড়া কমানো এবং নতুন চুল গজানোর প্রক্রিয়াটিতে অনেক সময় লাগে।"

একই রকম ব্যাখ্যা দিয়ে অ্যাস্টার সিএমআই হাসপাতালের মেডিকেল অ্যান্ড কসমেটিক ডার্মাটোলজি ডাঃ শিরিন ফুর্তাদো বলেছেন যে দীর্ঘস্থায়ী টেলোজেন এফ্লুভিয়ামের কারণে চুল পড়া একটি দীর্ঘস্থায়ী সমস্যা হয়ে দাঁড়ায়। ঘাটতি থাকা মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টগুলির পরিপূরক করার জন্য সঠিক পদক্ষেপ না নেওয়া হলে এই সমস্যা দীর্ঘায়িত হবে।"

আরও পড়ুন- এড়িয়ে যাবেন না এই ছোটো উপসর্গগুলি, অজান্তেই বাড়তে পারে আপনার কোলেস্টেরল

"যে কোনও গুরুতর ভাইরাল সংক্রমণ শরীরের মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টের উৎসকে ক্ষয় করে দেয় এবং শরীর ভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য প্রস্তুত হয়। এইভাবে, কোভিড-এর পরে ৩ মাস পর্যন্ত, প্রচুর সংখ্যক রোগী অতিরিক্ত চুল পড়ে বলে অভিযোগ করেছেন।"

পূর্বের কোভিড আক্রান্তরাও কি দ্বিতীয়বার আক্রান্ত হলে একই অবস্থার মধ্য দিয়ে যাবে?

ডা. স্বাতী শিবকুমার এবং ডা. শিরিন ফুর্তাদো উভয়েই বিশ্বাস করেন যে কোভিডের কারণে চুল বার বার পড়তে পারে। ডা. ফুর্তাদো বলেছেন, "এটি কোভিডের বিভিন্ন তরঙ্গ নির্বিশেষে এবং সংক্রমণের গুরুতর প্রকৃতি ও সুস্থ হওয়ার সময়ের সঙ্গে সম্পর্কিত।"

পূর্বে উল্লিখিত ফ্যাক্টরের উপর নির্ভর করে, কোভিড-১৯ এর কারণে চুল পড়া একটি সম্ভাবনা বটেই। কারা এই অবস্থায় ভুগতে পারে সে সম্পর্কে খুব বেশি তথ্য পাওয়া না গেলেও, যাঁরা মাঝারি থেকে গুরুতর সংক্রমণের সঙ্গে লড়াই করেছেন তাদের মধ্যে অতিরিক্ত চুল পড়ার সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাঁদের মধ্যে জটিলতা, উচ্চ প্রদাহ এবং দুর্বল খাদ্যতালিকাগত সমস্যাগুলিও যুক্ত রয়েছে।

অন্যান্য কারণ যা চুল পড়ার কারণ হতে পারে

"চুল পড়া পুষ্টির ঘাটতি, হরমোনের পরিবর্তন, মানসিক চাপ, পরিবেশগত এবং জেনেটিক কারণ থেকে শুরু করে একাধিক কারণের জটিল আন্তঃক্রিয়ার মিশ্রণে হয়। কারণের উপর নির্ভর করে এটি তীব্র বা দীর্ঘস্থায়ী, অস্থায়ী বা স্থায়ী হতে পারে বলে মনে করেছেন ডা. শিবকুমার।

ডা. ফুর্তাদোর মতে, সাধারণ চুল পড়া কোনও রোগ নয়, বরং শরীরে মাইক্রোনিউট্রিয়েন্টের ঘাটতির লক্ষণ। একটি কার্যকরী থাইরয়েড, অটোইমিউন অবস্থা, Vit b12, সেলেনিয়াম, Vit D, আয়রনের ঘাটতির মতো কারণগুলি প্রাথমিকভাবে চুল পড়ার জন্য দায়ী।

চুল পড়ার স্বাভাবিক পরিসর কী এবং কখন আমাদের উদ্বিগ্ন হওয়া উচিত?

চুল পড়া এমন একটি বিষয় যা পুরোপুরি এড়ানো যায় না। এটি একটি প্রাকৃতিক প্রক্রিয়া এবং প্রত্যেকের ক্ষেত্রেই ঘটে। সাধারণত, একজন ব্যক্তি প্রতিদিন ৫০-৮০টি চুল হারাতে পারে। ডা. শিবকুমার বলেছেন যে কোনও কিছু যা এই গণনাকে অতিক্রম করে তা উদ্বেগজনক।

উপরন্তু, যদি রোগীর গুচ্ছসহ চুল পড়ে যায়, তাহলে তিনি চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে পারেন।

ডা. ফুর্তাদো একই মত পোষণ করে বলেছেন যে দিনের বেলায় চুল পড়া বেশি দেখা যায় স্নানের পর। যদি ব্যক্তি সক্রিয়ভাবে বুঝতে পারে যে প্রতিদিন ১০০টিরও বেশি চুল পড়ে যাচ্ছে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া ভাল।

ভাল ডায়েট এবং লাইফস্টাইলের ভূমিকা

একটি স্বাস্থ্যকর জীবনধারা নিয়ন্ত্রণ করতে চাইলে পুষ্টিকর খাবার খাওয়া এবং নিয়মিত শারীরিক কার্যকলাপ আমাদের সামগ্রিক স্বাস্থ্যের জন্য বিস্ময়কর কাজ করতে পারে। উপরন্তু, এটি চুল পড়ার মতো বিষয়েও উপকার করতে পারে। টেলোজেন এফ্লুভিয়াম বা কোভিড-১৯ এর কারণে হঠাৎ চুল পড়া শুরু হলে জীবনযাত্রার পরিবর্তন যথেষ্ট নাও হতে পারে।

রোগী সুস্থ হওয়ার কয়েক মাস পরও চুল পড়া এবং চুল পড়ার সমস্যা দেখা দিলে ডাক্তাররা চিকিৎসার সাহায্য নেওয়ার পরামর্শ দেন। একটি ভাল ডায়েট ছাড়াও, অনেকগুলি কার্যকর স্বাস্থ্য অবস্থা রয়েছে যা কঠোর পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া মোকাবেলা করার জন্য রোগীর খাদ্যে যোগ করা যেতে পারে। যাই হোক, এই ক্ষেত্রেও ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Coronavirus, COVID-19, Hair Fall

পরবর্তী খবর