কোভিড ১৯ পাসপোর্ট ব্যাপারটা কী? কাদের সব চেয়ে প্রয়োজন এই পাসপোর্ট?

কোভিড ১৯ পাসপোর্ট ব্যাপারটা কী? কাদের সব চেয়ে প্রয়োজন এই পাসপোর্ট?

তাহলে কি বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশেষ কোনও পাসপোর্টের ব্যবস্থা হয়েছে? যা থাকলে তবেই এক দেশ থেকে অন্যত্র গতায়াতের ছাড়পত্র ম?

তাহলে কি বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশেষ কোনও পাসপোর্টের ব্যবস্থা হয়েছে? যা থাকলে তবেই এক দেশ থেকে অন্যত্র গতায়াতের ছাড়পত্র ম?

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: পাসপোর্ট কী, তা আমরা সবাই জানি! এক দেশ থেকে অন্যত্র যেতে হলে এর দরকার পড়ে। তাহলে কি বিশ্বের করোনা পরিস্থিতির কারণে বিশেষ কোনও পাসপোর্টের ব্যবস্থা হয়েছে? যা থাকলে তবেই এক দেশ থেকে অন্যত্র গতায়াতের ছাড়পত্র মিলবে?

কোভিড ১৯ পাসপোর্ট ব্যাপারটা কী?

সোজাসুজি বললে- বর্তমান পরিস্থিতিতে যাঁরা কোভিড ১৯ ভ্যাকসিন নিয়েছেন, তাঁরা এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাতায়াতের অনুমতি পাচ্ছেন। কিন্তু ভ্যাকসিন যে নেওয়া হয়েছে, সেটা কী করে বোঝা যাবে? এই ব্যাপারে কাজে আসে ভ্যাকসিন নেওয়ার সার্টিফিকেট। এই ভ্যাকসিন নেওয়ার সার্টিফিকেটকেই বলা হচ্ছে কোভিড ১৯ পাসপোর্ট। কেন না, এই প্রমাণপত্র দেখানোর পরেই একমাত্র এক দেশ থেকে অন্য দেশে যাতায়াত করার অনুমতি পাওয়া যাচ্ছে।

কাদের সব চেয়ে প্রয়োজন এই পাসপোর্ট?

যাঁরা সরকারের উচ্চপদে বহাল রয়েছেন, তাঁদের কাজের স্বার্থে নানা দেশে যাওয়ার প্রয়োজন হয়। অতএব এই কোভিড ১৯ সার্টিফিকেট তাঁদের না পেলেই নয়! যাঁদের জীবিকার সূত্রে নানা দেশে ঘোরাঘুরি করতে হয়, তাঁদেরও এই সার্টিফিকেট প্রয়োজন। শিক্ষাগত কারণে যাঁরা বিদেশে যেতে চান, তাঁদেরও এই প্রমাণপত্র লাগবে, তা দরকার হবে নিতান্ত ছুটি কাটাতে বিদেশে গেলেও। অতএব, সমাজের নানা স্তরেই এর প্রয়োজন আছে, তা অস্বীকার করা যায় না।

এই পাসপোর্ট কবে চালু হবে?

বিষয়টি নিয়ে ইতিমধ্যেই কিন্তু বিতর্কের পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে। অনেকেই বলছেন যে এক্ষেত্রে জনৈক ব্যক্তির ব্যক্তিগত তথ্য হাতবদল হতে থাকবে। তাছাড়া বিশ্বের সব দেশের সঙ্গে কথা বলে, সবার শর্ত অক্ষুণ্ণ রেখে একটি সার্বজনীন সার্টিফিকেট তৈরির কাজটিও সহজ নয়। ফলে, এখনও পর্যন্ত এই বিষয়ে কোনও দেশই কোনও সুষ্ঠু সিদ্ধান্ত নিতে পারেনি। অবশ্য ইউনাইটেড স্টেটস বেশ কিছু ক্ষেত্রে নানা বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান এবং সরকারি সংস্থাকে কর্মীদের ভ্যাকসিনের প্রমাণপত্র আদায় করতে বারণ করে দিয়েছে।

সার্টিফিকেট কী কাগজে ছাপা হবে?

এই বিষয়টি নিয়েও এখনও পর্যন্ত কেউ কোনও সিদ্ধান্তে আসতে পারছেন না। বেশির ভাগেরই দাবি- এটি কাগজে ছাপা হোক। কেন না, অ্যাপ মারফত তা ডাউনলোড করে নেওয়া সাধারণ মানুষের অনেকের পক্ষেই জটিল বলে সাব্যস্ত হতে পারে।

এই পাসপোর্টের প্রয়োজনীয়তা:

বিশেষজ্ঞদের অনেকেই দাবি করছেন যে জনজীবন সচল রাখতে এর প্রয়োজন আছে। কেন না, দিনের পর দিন লকডাউন দেশের অর্থনীতির পক্ষে ভয়াবহ সাব্যস্ত হয়। সে দিক থেকে দেখলে এই সার্টিফিকেটের সাহায্যে উপযুক্ত প্রমাণ সম্পর্কে নিশ্চিত হয়ে কর্মীদের একত্র করে কোনও সংস্থা কাজ শুরু করতে পারে। বিশ্বের সব দেশেই যেখানে ধীরে ধীরে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা চলছে, সেখানে সংক্রমিত এবং সুস্থ ব্যক্তির তফাত করতে এই সার্টিফিকেট কাজে আসবে।

Published by:Dolon Chattopadhyay
First published:

লেটেস্ট খবর