মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্ট, মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে জেনে নিন খুঁটিনাটি

মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্ট, মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে জেনে নিন খুঁটিনাটি

মাতৃত্বকালীন ছুটি বা মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে প্রায়শই নানা সংশয় তৈরি হয়, এ'নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী প্রাচী মিশ্র (Prachi Mishra)

মাতৃত্বকালীন ছুটি বা মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে প্রায়শই নানা সংশয় তৈরি হয়, এ'নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী প্রাচী মিশ্র (Prachi Mishra)

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: মাতৃত্বকালীন ছুটি বা মাতৃত্বকালীন সুযোগ-সুবিধা নিয়ে প্রায়শই নানা সংশয় তৈরি হয়। অনেকে সুবিধা না পেয়ে সংস্থার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ আনেন। কিন্তু কী এই মেটার্নিটি বেনিফিট? এই সংক্রান্ত বিষয়ে কী কী আইন রয়েছে? এ নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী প্রাচী মিশ্র (Prachi Mishra)। আসুন বিশদে জেনে নেওয়া যাক!

কোন কোন ক্ষেত্রে প্রযোজ্য মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্ট?

প্রতিটি সংস্থা, ফ্যাক্টরি, খনি, প্ল্যান্ট থেকে শুরু করে সরকার পরিচালিত নানা সংস্থার মহিলা-কর্মীদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য এই আইন।

মেটার্নিটি বেনিফিট ক্লেইম করতে গেলে কী কী প্রয়োজনীয়?

এক্ষেত্রে এক বছরের মধ্যে একজন মহিলা-কর্মীর ন্যূনতম ৮০টি ওয়ার্কিং ডে থাকতে হবে। তাহলেই মাতৃত্বকালীন সুবিধা পাওয়ার জন্য আবেদন জানানো যাবে।

যদি সন্তান নষ্ট হয়ে যায়, তাহলে কী হতে পারে?

এক্ষেত্রে মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্টের ধারা ৬,৯ ও ১০ প্রযোজ্য। ধারা অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট মহিলারা নির্দিষ্ট সুবিধা উপভোগ করবেন। যা পরিস্থিতি বিশেষে ভিন্ন হবে। এক্ষেত্রে ২৬ সপ্তাহ পর্যন্ত মেটার্নিটি লিভ পেতে পারেন মহিলারা।

অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন ডিসচার্জের নিয়ম কী?

এক্ষেত্রে মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্টের ১২ নম্বর ধারা প্রযোজ্য। অন্তঃসত্ত্বার আবেদন ও পরিস্থিতির উপরে নির্ভর করে এমপ্লয়মেন্ট ডিসচার্জের প্রক্রিয়া চলে। অন্তঃসত্ত্বা থাকাকালীন যদি তাকে চাকরি থেকে বের করে দেওয়া হয় বা কেউ চাকরি ছেড়ে দেন, তাহলে নিজের মেটার্নিটি বেনিফিট ও মেডিকেল বোনাস ক্লেইম করতে পারেন ওই মহিলা-কর্মী। তবে যদি খারাপ আচরণ বা অন্য কোনও কারণে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়, তাহলে সংশ্লিষ্ট মহিলা মেটার্নিটি বেনিফিটের দাবি করতে পারবেন না।

মেটার্নিটি বেনিফিটের পেমেন্ট

এক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি বিষয় রয়েছে। ক্ষেত্র বিশেষে মাসিক বেতন দেওয়া হয়। অনেক ক্ষেত্রে ডেলিভারির ডেট জানিয়ে সার্টিফিকেট জমা দেওয়ার পর টাকা দেওয়া শুরু হয়। এক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য, মেটার্নিটি বেনিফিট অ্যাক্টের ধারা ৬ (৫)। সম্ভাব্য ডেলিভারির তারিখের কথা মাথায় রেখে আগে থেকেই মেটার্নিটি বেনিফিটের জন্য বরাদ্দ টাকা দিয়ে দেওয়া হয়।

এখানেও কিছু শর্ত রয়েছে। অনেক সময় কোনও সংস্থার বা বিশেষ বিভাগের অন্তঃসত্ত্বা কর্মীদের একসঙ্গে এই সুবিধা দেওয়া হয়। অনেক সময় আবার পরিস্থিতি অনুযায়ী এক একজনকে তাদের প্রাপ্য টাকা দেওয়া হয়।

মেটার্নিটি বেনিফিট ক্লেইম করার পর কি কোনও সীমাবদ্ধতা রয়েছে ?

মেটার্নিটি বেনিফিট ক্লেইম করার ক্ষেত্রে বা তার পর কোনও রকম সীমাবন্ধতা বা শর্ত লাগু হয় না। এক্ষেত্রে ইচ্ছে মতো চাকরি থেকে ইস্তফা দেওয়া যায়।

Prachi Mishra

First published:

লেটেস্ট খবর