'মহিলাদের আকর্ষণ করতে চান? শাহরুখ নয় আমাকে দেখুন', খোলা চ্যালেঞ্জ ইমরান হাশমির

২০১৯ সালে ইমরান, শাহরুখ খানের প্রোডাকশন হাউজ রেড চিলিজ এন্টারটেনমেন্টের (Red Chillies Entertainment) সঙ্গে কাজ করেছেন।

২০১৯ সালে ইমরান, শাহরুখ খানের প্রোডাকশন হাউজ রেড চিলিজ এন্টারটেনমেন্টের (Red Chillies Entertainment) সঙ্গে কাজ করেছেন।

  • Share this:

#মুম্বই: বলিউডের রোম্যান্টিক হিরো ইমরান হাসমি (Imran Hashmi)। ভারতীয় চলচ্চিত্র সবচেয়ে বেশি চুম্বনদৃশ্য তাঁর সিনেমাতেই দেখা যায়। ইমরান আগাগোড়া চুম্বন দৃশ্যের জন্য বেশি জনপ্রিয়। ২০১৯ সালে কপিল শর্মার (Kapil Sharma) শোতে তিনি মজা করেই একটি কথা বলেছিলেন। প্রসঙ্গ উঠেছিল মহিলাদের নিজের দিকে আকর্ষিত করা নিয়ে। অনুষ্ঠানে কপিল শর্মা ও অন্যান্য কলাকুশলী-সহ উপস্থিত ছিলেন গায়ক গুরু রনধাওয়া (Guru Randhawa) ও অভিনেতা ইমরান হাসমি। সেই সময় ইমরান বলেন “যে কোনও সিনেমায় শাহরুখ খান ছবির হিরোইনকে পান ছবির শেষে। তার জন্য তাঁকে বহু কাঠখড় পোড়াতে হয়। কিন্তু আমার ক্ষেত্রে উল্টোটা হয়, আমার বেশিরভাগ ছবিতেই হিরোইনকে আমি প্রথমেই পেয়ে যাই, তার পর গল্প শুরু হয়।”

শাহরুখ খান (Shah Rukh Khan) হলেন বলিউডের রোমান্স কিং। দিলওয়ালে দুলহানিয়া লে যায়েঙ্গে (Dilwale Dulhania Le Jayenge), কুছ কুছ হোতা হ্যায় (Kuch Kuch Hota Hai) এবং বীর জারার (Veer Zaara) মতো রোম্যান্টিক ছবি অভিনয় করে দর্শকদের প্রশংসা কুড়িয়েছেন। ইমরান হাসমি এই সব কথাগুলি বলেই একটু মশকরা করেছিলেন, শাহরুখকে প্রচুর কসরত করতে হয়, তার পর গিয়ে হিরোইনের সঙ্গে তাঁর মিলন হয়। এই সব কথার মাঝে কপিল শর্মাও চুপ করে ছিলেন না। কপিলও স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে ইমরানকে নিয়ে মজা করেছেন। প্রসঙ্গ টেনেছেন ভিগে হোঁট তেরে (Bheege Hoth Tere) গানের।

সেই সময় ইমরানও মজা করে অনেক কথা বলেছেন। পাশাপাশি এও বলেন, “সত্যি যদি কেউ তাঁর দিকে কোনও মহিলাকে আকর্ষিত করতে চায়, তার জন্য তাঁকে আমার থেকে ক্লাস নিতে হবে এবং আমার ছবি দেখতে হবে”।

২০১৯ সালে ইমরান, শাহরুখ খানের প্রোডাকশন হাউজ রেড চিলিজ এন্টারটেনমেন্টের (Red Chillies Entertainment) সঙ্গে কাজ করেছেন। ছবির নাম বার্ড অফ ব্লাড (Bard Of Blood)। Netflix-এ ছবিটি মুক্তি পায়। এই ছবি দিয়ে ইমরান OTT প্ল্যাটফর্মে ডেবিউ করেন। এছাড়াও আগামীতে অনেকগুলি ছবি তাঁর মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে। যার মধ্যে টাইগার ৩ (Tiger 3) ও চেহরে (Chehre) উল্লেখযোগ্য।

Published by:Suman Majumder
First published: