Bangladesh Vaccine : করোনার বিরুদ্ধে লড়াই জোরালো, বাংলাদেশে অনুমোদন পেল দেশীয় টিকা ‘বঙ্গভ্যাক্স’

নিজস্ব ভ্যাকসিনের অনুমোদন Photo : File Photo

দেশীয় ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’-কে অনুমোদন দিল বাংলাদেশ(Bangladesh)। করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় বাংলাদেশেই তৈরি হচ্ছে ‘বঙ্গভ্যাক্স’। চাহিদা মতো টিকা না পেয়েই টিকা উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা। এবার এই ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে সবুজ সংকেত দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার।

  • Share this:

    #ঢাকা : করোনা সংক্রমণের (Coronavirus ) দ্বিতীয় ধাক্কায় (Second Wave) ভারতের মতোই যুঝছে প্রতিবেশী বাংলাদেশ (Bangladesh)। ভারতে পরিস্থিতি কিছুটা উন্নত হলেও ওপর বাংলায় লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা। এহেন পরিস্থিতিতে দেশীয় ভ্যাকসিন ‘বঙ্গভ্যাক্স’-কে অনুমোদন দিল বাংলাদেশ(Bangladesh)। করোনা ভাইরাসের মোকাবিলায় বাংলাদেশেই তৈরি হচ্ছে ‘বঙ্গভ্যাক্স’। চাহিদা মতো টিকা না পেয়েই টিকা উৎপাদনের সিদ্ধান্ত নেয় ঢাকা। এবার এই ভ্যাকসিনের ট্রায়ালে সবুজ সংকেত দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার।

    শর্তসাপেক্ষে বাংলাদেশের কোম্পানি গ্লোব বায়োটেকের করোনা টিকা ‘বঙ্গভ্যাক্স’-এর ট্রায়ালের নীতিগত অনুমোদন দিয়েছে বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদ (বিএমআরসি)। বুধবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানায় সংস্থাটি। চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি নিজেদের উৎপাদিত টিকা ‘বঙ্গভ্যাক্স’ মানবদেহে পরীক্ষা চালানোর অনুমতির জন্য বাংলাদেশ চিকিৎসা গবেষণা পরিষদ- বিএমআরসির কাছে আবেদন করা হয়। অনুমোদনের সাত থেকে দশদিনের মধ্যে রাজধানী ঢাকার কোনও একটি বেসরকারি হাসপাতালে ট্রায়ালের জন্য স্বেচ্ছাসেবকদের ওপর এর প্রয়োগের কথা রয়েছে। গ্লোব বায়োটেকের হয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরুর আবেদন করে ক্লিনিক্যাল রিসার্চ অর্গানাইজেশন লিমিটেড নামে একটি প্রতিষ্ঠান। এটি বিএমআরসি অনুমোদিত একটি প্রতিষ্ঠান। বঙ্গভ্যাক্সের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের দায়িত্বে রয়েছে ওই প্রতিষ্ঠানটি।

    উল্লেখ্য, বাংলাদেশে করোনার বাড়বাড়ন্ত নিয়ে শেখ হাসিনা সরকার অত্যন্ত সতর্ক। সংক্রমণ প্রতিরোধে ইতিমধ্যে বাংলাদেশে ৬টি টিকা ব্যবহারের অনুমোদন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে শেখ হাসিনা সরকার। সেই তালিকায় রয়েছে বঙ্গভ্যাক্স। গত মার্চ মাসে দেশে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণ ও মৃত্যু হ্রাস পেয়েছিল। কিন্তু এপ্রিলে ইদ-উল-ফিতর উৎসবে যোগ দিতে ঢাকা থেকে হাজার হাজার মানুষ সামাজিক দূরত্ব উপেক্ষা করে বরাবরের মতো গ্রামে ছুটে যায়। সপ্তাহখানেক বাদে একইভাবে কর্মস্থল ঢাকায় ফিরে আসে তারা। এতে বেড়ে যায় সংক্রমণ। ফলে পরিস্থিতি সামাল দিতে এবার দ্রুত টিকাকরণের পদক্ষেপ করছে সরকার।

    প্রসঙ্গত, বাংলাদেশে বহুদিন থেকে টিকার ট্রায়াল নিয়ে আলোচনা চলছিল। কিন্তু বিএমআরসির সিদ্ধান্ত নিতে সময় নেওয়ায় বিজ্ঞানীদের একটি অংশের মধ্যে হতাশা ছিল। আইসিডিডিআরবি’র দুজন বিজ্ঞানী চিন ও ভারতের টিকার জন্য এবং গ্লোব বায়োটেক বঙ্গভ্যাক্সের টিকার ট্রায়ালের জন্য সম্প্রতি অনুমোদন চেয়েছিল।

    Published by:Sanjukta Sarkar
    First published: