Home /News /business /
TATA multibagger stock: এক বছরে ১২১ শতাংশ রিটার্ন দিচ্ছে টাটার এই মাল্টিব্যাগার স্টক! রইল বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

TATA multibagger stock: এক বছরে ১২১ শতাংশ রিটার্ন দিচ্ছে টাটার এই মাল্টিব্যাগার স্টক! রইল বিশেষজ্ঞের পরামর্শ

প্রতীকী ছবি৷

প্রতীকী ছবি৷

গত এক বছরে বিনিয়োগকারীদের অর্থ দ্বিগুন করে ফিরিয়ে দিয়েছে এই স্টক।

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: শেয়ার বাজারের ক্রমাগত উত্থান-পতনের মধ্যেই অসাধারণ রিটার্ন দিয়েছে টাটা-র মাল্টিব্যাগার এই স্টক। আইটি (IT) কোম্পানি টাটা এলক্সি লিমিটেড(Tata Elxsi বা TEL)-এর শেয়ার চলতি বছরে এখনও পর্যন্ত ৪৩ শতাংশেরও বেশি বেড়েছে। শুধু তা-ই নয়, গত এক বছরে বিনিয়োগকারীদের অর্থ দ্বিগুণ করে ফিরিয়ে দিয়েছে এই স্টক।

পরিসংখ্যান বলছে, টাটা এলক্সি-র শেয়ার ৩৮০৯.৬০ টাকা থেকে বেড়ে ৮৪৪৫ টাকা হয়েছে। ফলে এক বছরে এটি ১২১.২৯ শতাংশ মাল্টিব্যাগার রিটার্ন দিয়েছে। এই স্টকের আগের লেনদেনকৃত মূল্য ছিল ৮৪৪৫ টাকা। যা ৫ দিন, ২০ দিন, ৫০ দিন, ১০০ দিন এবং ২০০ দিনের চলমান গড়ের তুলনায় বেশি। শেয়ার প্রতি ৫২ সপ্তাহের সর্বনিম্ন দাম ৩৫৫৫.০৫ টাকা এবং শেয়ার প্রতি ৫২ সপ্তাহের সর্বোচ্চ দাম ৯৪২০ টাকা।

১৫ শতাংশ পর্যন্ত রিটার্নের আশা

২০২২ সালের অর্থবর্ষে টাটা এলক্সি লিমিটেডের বার্ষিক রিপোর্টে কয়েকটি বিষয়ের উপর আলোকপাত করা হয়েছে। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল - নির্বাচিত শিল্প ক্ষেত্রে এর দেওয়া ভিন্ন ভিন্ন সুযোগ ও ডিজাইন অনুযায়ী পন্থা, সাবস্ক্রাইবার-ভিত্তিক প্ল্যাটফর্ম ব্যবসায় ক্রমবর্ধমান মনোনিবেশ, অফশোর ডেলিভারির ক্ষমতা এবং অনুকূল সেক্টরে টেইলউইন্ড প্রভৃতি। শেয়ার খান (Sharekhan)-ও টাটা গ্রুপের এই মাল্টিব্যাগার স্টক কেনার পরামর্শ দিচ্ছে। টাটা এলক্সি শেয়ার কেনার ক্ষেত্রে ৯৭৫০ টাকা লক্ষ্য মূল্যের কল রেটিংও নির্ধারণ করেছে শেয়ার খান। ফলে এর বিগত ব্যবসায়িক মূল্যের তুলনায় ১৫.৫ শতাংশ উর্ধ্বগতির সম্ভাবনার ইঙ্গিত পাওয়া যাচ্ছে।

আরও পড়ুন: মুদ্রাস্ফীতির হার কমে ৭.০৪ শতাংশ, তবু স্বস্তির আশা দেখছেন না বিশেষজ্ঞরা

ব্রোকারেজ ফার্ম শেয়ার খান-এর বক্তব্য, ডিজাইনের ভাবনা এবং উচ্চ প্রবৃদ্ধির ভার্টিকালে ডিজিটাল প্রযুক্তির প্রয়োগই হল টাটা এলক্সির মূল লক্ষ্য। আর এক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান ইআরডি ব্যয়ের দ্বারা পরিচালিত শক্তিশালী প্রবৃদ্ধির আশা রয়েছে। জিনোভ (Zinnov)-এর মতে, “ভারতীয় ইআরডি পরিষেবা প্রদানকারীদের শেয়ার বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। ২০২১ সালে ১৬ বিলিয়ন ডলার থেকে ২০৩১ সালের মধ্যে তা বেড়ে ৫৮ বিলিয়ন ডলার হবে বলে আশা। অর্থাৎ এর মিশ্র বার্ষিক বৃদ্ধির হার (CAGR) দাঁড়াচ্ছে ১৩ শতাংশেরও বেশি। ডিজিটাল ইঞ্জিনিয়ারিং পরিচালিত পরিষেবার বিস্তৃত পরিসর, শক্তিশালী প্ল্যাটফর্ম পোর্টফোলিও, গভীর ক্ষেত্রে দক্ষতা এবং দারুণ অফশোর ডেলিভারির ক্ষমতার পরিপ্রেক্ষিতে আমাদের বিশ্বাস যে, বিশ্বব্যাপী সমসাময়িক অন্যান্য সুবিধাপ্রদানকারীর মধ্যে অন্যতম প্রধান জায়গায় রয়েছে টাটা এলক্সি।”

ব্রোকারেজের তরফে আরও জানানো হয়েছে যে, শক্তিশালী ডেলিভারি মডেল এবং গ্রাহকদের খরচ বাঁচানোর ক্ষেত্রে ২০২৩ অর্থবর্ষে (Q4FY2022-এ ৯০ শতাংশ)-এর হায়ার অফশোর মিক্স টিকিয়ে রাখার বিষয়ে যথেষ্ট আশাবাদী ম্যানেজমেন্ট। যদিও আমাদের বিশ্বাস, ফের ভ্রমণ শুরু হওয়ায় এই মিশ্রণ কিছুটা হলেও কমবে। স্টার্ট-আপগুলিতে ক্রমবর্ধমান ছাঁটাই, স্থগিত নিয়োগ প্রক্রিয়া এবং ইন্ডাস্ট্রি জুড়ে ফ্রেশার নিয়োগের (২০২২ অর্থবর্ষে) প্রেক্ষাপটে ক্ষতি কিছুটা হলেও কমবে বলে আশা করা হচ্ছে। এছাড়াও ওই সংস্থা গত বছরের জুলাই মাস (২০২১ সালে ৭-৮ শতাংশ বেতন বৃদ্ধি) থেকে চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে বেতন বৃদ্ধি করেছে। যার কারণে আগামী অর্থবর্ষে উপকৃত হবে টাটা এলক্সি।

শেয়ার খানের রিপোর্ট অনুযায়ী, ডিজাইন পরিচালিত ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ক্ষেত্রে অনন্য দক্ষতার মাধ্যমে বাছাই করা ইন্ডাস্ট্রি জুড়ে বাজার ধরার জন্য যথেষ্ট দক্ষ টাটা এলক্সি। ২০২২ অর্থবর্ষ থেকে ২০২৪ অর্থবর্ষের মধ্যে এর মার্কিন ডলার রাজস্ব এবং আয়ের মিশ্র বার্ষিক বৃদ্ধির হার হতে পারে যথাক্রমে ২৩ শতাংশ এবং ২০ শতাংশ। রিপোর্টে বলা হয়েছে, আমাদের কভারেজের অধীনে টাটা এলক্সি-ই একমাত্র সংস্থা, যাদের স্টকের পারফরমেন্স (২২ শতাংশের উপরে)-এর ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য উন্নতি দেখা গিয়েছে। গত তিন মাসে মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভের সুদের হার বৃদ্ধি, উন্নত বাজারগুলিতে ক্রমবর্ধমান মুুদ্রাস্ফীতি, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং সম্ভাব্য অর্থনৈতিক মন্দা সত্ত্বেও টাটা এলক্সি-র স্টক সিএনএক্স আইটি (CNX IT)-র স্টকের পারফরমেন্স (১৭ শতাংশের নিচে)-কে ছাড়িয়ে গিয়েছে।

টাটা এলক্সি স্টকের (FY2023E/FY2024E) আয় ৭৮x/৬৭x-এ বাণিজ্য করছে, যা বেশ দামি। যদিও শেয়ার খান টাটা এলক্সি-কেই প্রাধান্য দিচ্ছে। কারণ এর মধ্যে রয়েছে শক্তিশালী উন্নতির সম্ভাবনা, বাজারের শেয়ার মুনাফা, উচ্চতর মার্জিন প্রোফাইল, ডিজিটাল ইঞ্জিনিয়ারিং-এর ক্ষেত্রে ভিন্ন ভিন্ন ক্ষমতা এবং শক্তিশালী ব্যালেন্স শীটের মতো উল্লেখযোগ্য বিষয়। ভারতীয় টাকা বা রুপির মূল্যায়ন এবং/অথবা প্রতিকূল ক্রস-কারেন্সি মুভমেন্ট এর আয়ের উপর বিরূপ প্রভাব ফেলতে পারে। তাছাড়া ওই রিপোর্টে আরও বলা হয়েছে, অফশোর এফর্ট মিক্সের বৈপরীত্য এর মার্জিনের উপর প্রভাব বিস্তার করতে পারে।

First published:

পরবর্তী খবর