Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: সেতুর বদলে কালভার্ট! জল যন্ত্রণায় দুই ব্লকের মানুষ

Paschim Medinipur: সেতুর বদলে কালভার্ট! জল যন্ত্রণায় দুই ব্লকের মানুষ

title=

একদিনে টানা বৃষ্টি আর এই বৃষ্টির ফলেই বিঘের পর বিঘে জমির ধান জমা জলে ডুবে নষ্টের মুখে, আর এতেই চরম ক্ষোভে ফুঁসছে চন্দ্রকোনা ১ ও ২ ব্লকের কয়েকশো কৃষক।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর: একদিনে টানা বৃষ্টি আর এই বৃষ্টির ফলেই বিঘের পর বিঘে জমির ধান জমা জলে ডুবে নষ্টের মুখে, আর এতেই চরম ক্ষোভে ফুঁসছে চন্দ্রকোনা ১ ও ২ ব্লকের কয়েকশো কৃষক। জানা যায়, চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের কেলেমি ও পান্ডুয়া মৌজার উপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে তরাশিয়া খাল। আর এই খালের উপর যাতায়াতের জন্য ব্রিটিশ আমলে তৈরি করা হয়েছিল একটি কংক্রিটের সেতু। সেই সেতুর উপর দিয়েই যাতায়াত করত দুই ব্লকের হাজার হাজার মানুষ। সেতুর উপর দিয়েই যাতায়াত করত কৃষি প্রধান এলাকার পণ্যবাহী গাড়ি, থেকে শুরু করে যাত্রীবাহী ট্রেকার। স্থানীয়রা জানায়, ২০১৪ সালে হঠাৎ করে সেতুর মাঝের কিছুটা অংশ ধ্বসে পড়ায় সেতু দিয়ে বন্ধ হয় যাতায়াত, সমস্যায় পড়ে এলাকার মানুষজন। তড়িঘড়ি ব্লক প্রশাসনের উদ্যোগে যাতায়াতের জন্য ওই খালের উপরেই তৈরি করা হয় একটি কালভার্ট, আর এর ফলেই দেখা দিয়েছে চরম সমস্যা। ২০১৪ সালের পর থেকে সেই কালভার্টে জল নিকাশি ঠিকমত না হওয়ার কারণে প্রত্যেক বৎসর বর্ষা আসলেই জমা জলে ৮/৯ টি মৌজার কয়েকশ বিঘা কৃষি জমি বৃষ্টির জলে ডুবে থাকে।

    এলাকার মানুষের অভিযোগ, এই বিষয়ে বারবার ব্লক প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েও শুধু মিলেছে আশ্বাস কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এদিকে বৃষ্টির জল জমে চাষ জমি যেন নদীতে পরিনত হয়েছে, ক্ষতির মুখে কৃষিজ ফসল।কোনও উপায় না দেখে চন্দ্রকোনা ১ ও ২ ব্লকের পান্ডুয়া, পিরিজপুর, কেলেমীর এলাকার ক্ষতিগ্রস্থ কৃষকেরা সেই কালভার্ট কাটিয়ে জল নিকাশের ব্যবস্থা করতে গেলে এলাকার বেশ কিছু মানুষ তাদের বাধা দেয়।

    আরও পড়ুনঃ টানা কয়েক ঘন্টার বৃষ্টিতে জলমগ্ন চন্দ্রকোনা টাউনের কদমতলা

    তাদের যেটা দাবি, যদি এই কালভার্ট কেটে জল না বের করে দেওয়া হয়, তাহলে বাঁচবে না চাষীরা। অপরদিকে কিছু মানুষের দাবি, রাস্তা ও কালভার্ট কেটে জল নিকাশি না করলে এলাকার কোনও মানুষই যাতায়াত করতে পারবে না। চরম সমস্যায় পড়বে ২০/২৫ টি গ্রামের মানুষ। এই নিয়েই এলাকার দুই পক্ষের মানুষ জড়িয়ে পড়ে বচসায়, দেখা দেয় উত্তেজনা।

    আরও পড়ুনঃ মেদিনীপুর পুর এলাকায় চিকিৎসা পরিষেবা দিতে সুস্বাস্থ্য কেন্দ্র

    এলাকার মানুষদের দাবি, দ্রুত প্রশাসন এই বিষয়টির দিকে গুরুত্ব দিক, তা নাহলে এই এলাকার শতাধিক কৃষক পড়বে চরম সমস্যায়। এই বিষয়ে চন্দ্রকোনা ১ নম্বর ব্লকের বিডিও রথিন্দ্র নাথ অধিকারী ক্যামেরার সামনে কিছু না বললেও আমাদের জানিয়েছেন, দ্রুত সমস্যার সমাধানের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

    Partha Mukherjee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Chandrakona, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর