Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: পশ্চিম মেদিনীপুরের জঙ্গলমহলে উদযাপিত বন মহোৎসব

Paschim Medinipur: পশ্চিম মেদিনীপুরের জঙ্গলমহলে উদযাপিত বন মহোৎসব

title=

পরিবেশ বাঁচাতে সবুজের চাষ ছাড়া উপায় নেই। সবুজায়নের মাধ্যমেই এই পৃথিবীকে রক্ষা করতে হবে। আর, এই 'সবুজের অভিযানে' সবুজ-সজীব পড়ুয়াদের বিকল্প নেই, তা আবারও প্রমাণ করলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর সদর ব্লকের (গুড়গুড়িপাল থানার অন্তর্গত) গুড়গুড়িপাল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

আরও পড়ুন...
  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর পরিবেশ বাঁচাতে সবুজের চাষ ছাড়া উপায় নেই। সবুজায়নের মাধ্যমেই এই পৃথিবীকে রক্ষা করতে হবে। আর, এই 'সবুজের অভিযানে' সবুজ-সজীব পড়ুয়াদের বিকল্প নেই, তা আবারও প্রমাণ করলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর সদর ব্লকের (গুড়গুড়িপাল থানার অন্তর্গত) গুড়গুড়িপাল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকারা। অরণ্য সপ্তাহের (১৪-২০ জুলাই) প্রথম দিন-ই বিদ্যালয়ের ভূগোল বিষয়ের শিক্ষক ব্রজদু্লাল গিরির নেতৃত্বে গুড়গুড়িপালের জঙ্গলজুড়ে ছড়ানো হল, ২ কুইন্টাল ফলের বীজ। উদ্দেশ্য দু'টি, খাদ্যের অভাবে জঙ্গল থেকে লোকালয়ে চলে আসা হাতিকে জঙ্গলেই রুখে দেওয়া এবং ক্রমশ ফাঁকা হয়ে জঙ্গলকে সবুজে সবুজে ভরিয়ে তোলা। বিদ্যালয়ের কচিকাঁচাদের এই ধরনের সবুজের অভিযানে উৎসাহিত করার বিষয়টি অবশ্য সুপরিকল্পিত ভাবে সম্পন্ন করেছেন শিক্ষক ব্রজদুলাল বাবু। তাঁকে যোগ্য সঙ্গত করেছেন, স্কুলের প্রধান শিক্ষক গৌতম ভৌমিক, ভূগোলের অপর শিক্ষক লাল্টু জানা সহ অন্যান্য শিক্ষক-শিক্ষিকারা।

    গুড়গুড়িপাল উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের এই উদ্যোগেরই প্রতিধ্বনি যেন শোনা গেল রাজ্যের বন প্রতিমন্ত্রী বীরবাহা হাঁসদা'র মুখে! শুক্রবার (১৫ জুলাই) পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার বনমহোৎসবের আনুষ্ঠানিক সূচনা উপলক্ষে শালবনীর ভাদুতলা বিবেকানন্দ উচ্চ বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে, রাজ্যের বন প্রতিমন্ত্রী বললেন, \"শিক্ষকরাই মানুষ গড়েন। আপনাদের প্রতি আমার অনেক শ্রদ্ধা। একই সঙ্গে আপনাদের কাছে আমার আবেদন, পড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে ছাত্র-ছাত্রীদের গাছ লাগানোতে উৎসাহিত করুন। তাছাড়া ভারসাম্য হারিয়ে ফেলা এই পৃথিবীকে রক্ষা করা সম্ভব নয়।\"

    আরও পড়ুনঃ 'সবুজের অঙ্গীকার'! মেদিনীপুরে অরণ্য সপ্তাহে রোপন ২০ লক্ষ গাছের চারা

    জেলাস্তরীয় এই বনমহোৎসবের অনুষ্ঠানে বন প্রতিমন্ত্রী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন, জেলাশাসক আয়েশা রানী এ, বিধায়ক ও সভাধিপতি উত্তরা সিংহ হাজরা, জেলা পরিষদের বন ও বনভূমি কর্মাধ্যক্ষ নেপাল সিংহ, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ড. অমিতেশ চৌধুরী, মেদিনীপুর বনবিভাগের ডিএফও সন্দীপ বেরোয়াল সহ বনদপ্তরের আধিকারিক ও বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকাবৃন্দ।

    আরও পড়ুনঃ দেশের সেরা একশো কলেজের তালিকায় এই জেলা শহরের দুই কলেজ, জেনে নিন বিস্তারিত

    বিশ্ব উষ্ণায়নের করাল গ্রাস থেকে এই সভ্যতাকে রক্ষা করতে হলে যে সবুজায়নের বিকল্প নেই, সেই বার্তাই দিয়েছেন উপস্থিত আধিকারিক ও জনপ্রতিনিধিরা।

    Partha Mukherjee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Jungle Mahal, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর