Home /News /west-midnapore /
Paschim Medinipur: চক পেন্সিল কেটে হুবহু কেদারনাথ মন্দির তৈরী! তাক লাগাল শুভজিৎ

Paschim Medinipur: চক পেন্সিল কেটে হুবহু কেদারনাথ মন্দির তৈরী! তাক লাগাল শুভজিৎ

title=

বাড়িতে বসেই কেদারনাথ দর্শন, চক পেনসিল কেটে তৈরি হল কেদারনাথের মন্দির। এমনই এক কেদারনাথের মন্দির গড়ে তাক লাগালো চন্দ্রকোনার শুভজিৎ প্রামাণিক।

  • Share this:

    #পশ্চিম মেদিনীপুর : বাড়িতে বসেই কেদারনাথ দর্শন, চক পেনসিল কেটে তৈরি হল কেদারনাথের মন্দির। এমনই এক কেদারনাথের মন্দির গড়ে তাক লাগালো চন্দ্রকোনার শুভজিৎ প্রামাণিক। উচ্চতা ৬.৫ সেন্টিমিটার চওড়া ৩.৫ সেন্টিমিটার আর তার মধ্যেই রয়েছে সুক্ষভাবে মন্দিরের কারুকার্য। জানা যায় পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার চন্দ্রকোনা পৌরসভার ৩ নং ওয়ার্ড রঘুনাথপুরের যুবক শুভজিৎ প্রামাণিক, ছোট বেলা থেকে লেখাপড়ার মাঝে ছিল ছবি আঁকার ইচ্ছে। বর্তমানে ইংরেজিতে স্নাতক এবং বিএড সম্পন্ন করে বাড়ি থেকে বিভিন্ন কমপিটিটিভ পরীক্ষার প্রস্তুতির পাশাপাশি মাইক্রো আর্টের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে জোরকদমে। প্রায় দু-আড়াই বৎসর ধরে মাইক্রো আর্টের কাজ শুরু করেছে শুভজিৎ।

    এর আগেও শুভজিৎ বেশ কয়েকটি হাতের সুদক্ষ কাজ করে তাক লাগিয়েছিল, লেড পেন্সিল কেটে বানিয়েছিল ক্ষুদ্রতম অশোক স্তম্ভ, আর তাতে তার ইন্ডিয়া বুক অব রেকর্ডে নামও উঠেছিল। এমনকি করোনার সময় পেপার কাটিং করে এঁকেছিল একই মেড়ে দুর্গা সহ লক্মী, সরস্বতী কার্তিক গনেশ। শুধু তাই নয় শুভজিতের বাড়িতে সুন্দর সুন্দর হাতের কাজের ছড়াছড়ি।

    আরও পড়ুনঃ মাধ্যমিক শিক্ষা কেন্দ্রে পড়ুয়া জোগাড় করতে হিমশিম শিক্ষকেরা!

    শুভজিতের দাবি, দুবছর করোনার জেরে বন্ধ ছিল কেদারনাথ যাত্রা, এবছর পুনরায় তা চালু হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে কেদারনাথ যাওয়ার ইচ্ছে তার। যাওয়া কবে হবে জানে না সে, তাই বাড়িতে বসেই শুভজিৎ কেদারনাথ দর্শন করল তারই নিজের হাতের শিল্পকলা দিয়ে বানানো কেদারনাথ মন্দিরে।

    আরও পড়ুনঃ মর্মান্তিক! কাঁসাই ব্রিজ থেকে পড়ে নদীতে তলিয়ে গেলেন রেলকর্মী!

    প্রায় ৮ ঘন্টার প্রচেষ্টায় শুভজিৎ তৈরি করে ফেলেছে হুবহু কেদারনাথ মন্দির। আর এই কেদারনাথের কারুকার্য তাক লাগিয়েছে এলাকার মানুষজনের মধ্যে। তার তৈরি চক পেনসিল কেটে কেদারনাথ মন্দির দেখতে তার বাড়িতে ভীড় জমাচ্ছেন আশেপাশের মানুষেরা।

    Partha Mukherjee
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Chandrakona, Paschim medinipur

    পরবর্তী খবর