Home /News /west-bardhaman /
Paschim Bardhaman: বিধানকে পদে রাখতে উপনির্বাচন, প্রার্থী দিলেন বিরোধীরাও

Paschim Bardhaman: বিধানকে পদে রাখতে উপনির্বাচন, প্রার্থী দিলেন বিরোধীরাও

আসানসোল পুরনিগমের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে চড়ছে নির্বাচনী উত্তেজনার পারদ। তৃণমূল প্রার্থী বিধান উপাধ্যায় জোরকদমে নেমে পড়েছেন ভোটের ময়দানে।

  • Share this:

    #আসানসোল : আসানসোল পুরনিগমের উপনির্বাচনকে কেন্দ্র করে চড়ছে নির্বাচনী উত্তেজনার পারদ। তৃণমূল প্রার্থী বিধান উপাধ্যায় জোরকদমে নেমে পড়েছেন ভোটের ময়দানে। বিধান উপাধ্যায় মনোনয়ন জমা করার পরেই জানিয়েছিলেন, জয়ের ব্যাপারে তিনি নিশ্চিত। তবুও তিনি কোনওভাবেই লড়াইয়ের ময়দানে খামতি দিতে চান না। আর সেজন্যই বিধান উপাধ্যায়কে আসানসোল পুরনিগমের ৬ নম্বর ওয়ার্ডে দেখা গেল বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করতে দেখা গেল। পুরনিগমের ৬ নম্বর ওয়ার্ডটি তৃণমূলের দখলেই ছিল। উপ নির্বাচনে বিধান উপাধ্যায় সেখানে তৃণমূল প্রার্থী হিসেবে লড়াই করছেন। আসানসোল পুরনিগমের মেয়র পদে বহাল থাকতে হলে, তাকে এই উপ নির্বাচনে জয় পেতে হবে। যদিও অন্যান্য বিরোধী দলগুলিও প্রার্থী দিয়েছে। তবু বিধান উপাধ্যায় নিজের জয়ের সম্পর্কে আত্মবিশ্বাসী। সেজন্য নিজের পক্ষে জনসমর্থন কুড়োতে তিনি শুরু করেছেন প্রচার, দেওয়ার লিখন। তারই অঙ্গ হিসেবে এদিন তাকে ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচার করতে দেখা গিয়েছে। এদিন আসানসোলের মেয়র তথা উপনির্বাচনে তৃণমূল প্রার্থী বিধান উপাধ্যায়, ‌ জামুরিয়া বোরো ১ এর ৬ নম্বর ওয়ার্ডের যদুডাঙ্গায় প্রচার সেরেছেন।

    আগামী ২১ আগস্ট উপনির্বাচন। তার আগে নির্বাচনী প্রচারে ৬ নম্বর ওয়ার্ড গিয়েছিলেন তৃণমূল প্রার্থী তথা বিধান উপাধ্যায়। তিনি এদিন বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রচারের মাধ্যমে শুনলেন ওই এলাকার মানুষের নানারকম সমস্যার কথা। গ্রামবাসীরা মেয়র বিধান উপাধ্যায়কে জানান, সবথেকে বড় সমস্যা হচ্ছে পানীয় জলের। তাই স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে তাদের সমস্যা দূরীকরণের আশ্বাস দিয়েছেন মেয়র। এদিন বিধান উপাধ্যায়ের সঙ্গে প্রচারে ছিলেন জামুরিয়ার বিধায়ক হরেরাম সিং, এমআইসি দিব্যেন্দু ভগত সহ অনেকে। প্রচারে এসে আসানসোল কর্পোরেশনের মেয়র বিধান উপাধ্যায় জানান, আসানসোল পুরনিগমের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে যে উন্নয়নের পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে, তা সাধারণ মানুষের কাছে তুলে ধরতে হবে।

    তিনি জানান মেয়র যদি ওয়ার্ডেই থাকে, তাহলে গ্রামের মানুষের আরও সুবিধা হবে। তাই বিধান উপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই উপনির্বাচনে তিনি জয়ের ব্যাপারে একশো শতাংশ আশাবাদী। যদিও এই উপনির্বাচনে সমস্ত বিরোধী দল প্রার্থী দিয়েছে। মূলত নিয়ম অনুযায়ী বিধান উপাধ্যায়কে মেয়র পদে থাকতে হলে নির্বাচনে লড়াই করে জয় পেতে হবে। সেকারণেই ৬ নম্বর ওয়ার্ডের তৃণমূল কাউন্সিলর ইস্তফা দিয়েছেন বলে দাবি রাজনৈতিক মহলের। স্বাভাবিক ভাবে ওই ওয়ার্ডে বিধানের জয় পাওয়া সুযোগ বেশি বলে মনে করছেন তারা।

    আরও পড়ুনঃ কয়লা, বালি, মাদক - অবৈধ কারবার রুখতে সক্রিয় ভূমিকায় পুলিশ

    তারপরেও এই উপনির্বাচনে বিরোধীদের প্রার্থী দেওয়া প্রতীকী বলে তাদের দাবি। কারণ প্রার্থী না দিলে প্রচারে তার সুযোগ নিতে পারে ঘাসফুল শিবির। সেজন্যই বিজেপি সহ কংগ্রেস ও বামেরা প্রার্থী দিয়েছে। উল্লেখ্য, এই উপনির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী হয়েছেন ত্রিদিব চক্রবর্তী। নিয়ম অনুযায়ী বিএন আর থেকে মিছিল করে গিয়ে মহকুমা শাসকের দফতরে গিয়ে মনোনয়ন জমা করেছেন ত্রিদিব চক্রবর্তী। এই উপনির্বাচন প্রসঙ্গে ত্রিদিব চক্রবর্তী বলেছেন, বাংলায় গণতন্ত্র নেই। মানুষ এর থেকে রেহাই চাইছে।মানুষ ভোট দেবে। আমরা জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী।

    আরও পড়ুনঃ মানুষের জীবন রক্ষায় বিশেষ প্রশিক্ষণ দিলেন চিকিৎসকরা

    অন্যদিকে, কংগ্রেস ও বাম শিবিরও মেয়রের বিরুদ্ধে প্রার্থী দিয়েছে। এই উপনির্বাচনে বাম প্রার্থী হয়েছেন শুভাশিস মন্ডল। তিনি অভিযোগ করেছেন, গত পুরনিগম নির্বাচনে অবাধে ভোট লুট হয়েছে। সেই ভাবে ভোট লুট না হলে, বাম প্রার্থী জিতবেন বলে আশা প্রকাশ করেছেন। আর কংগ্রেস প্রার্থী হয়েছেন সোমনাথ চ্যাটার্জি। তিনি যেদিন মনোনয়ন জমা করতে যান, সেদিন তার সঙ্গে ছিলেন আসানসোল লোকসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের কংগ্রেস প্রার্থী প্রসেনজিৎ পুততুন্ড। কংগ্রেস প্রার্থীও দাবি করেছেন, তিনি জয়ের ব্যাপারে আশাবাদী। কারণ মানুষ তৃণমূলকে ভোট দেওয়ার ফল কি হয়েছে, সেটা দেখছেন। তাই তারা বদল চাইছেন।

    Nayan Ghosh
    Published by:Soumabrata Ghosh
    First published:

    Tags: Asansol, Paschim bardhaman

    পরবর্তী খবর