Home /News /sports /
Pacer Ravi Kumar Exclusive Interview: "এবার লক্ষ্য ভারতীয় সিনিয়র দলের জার্সিটা", এক্সক্লুসিভ ইন্টারভিউ বিশ্বকাপজয়ী রবি কুমারের

Pacer Ravi Kumar Exclusive Interview: "এবার লক্ষ্য ভারতীয় সিনিয়র দলের জার্সিটা", এক্সক্লুসিভ ইন্টারভিউ বিশ্বকাপজয়ী রবি কুমারের

Ravi Kumar Exclusive Interview: নিউজ18 বাংলার প্রতিনিধি ঈরণ রায় বর্মনকে এসক্লুসিভ ইন্টারভিউ দিলেন বিশ্বকাপ ফাইনালে ৪ উইকেট নেওয়া বাংলার পেসার রবি কুমারের।

  • Share this:

#কলকাতা: অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জয়ী ভারতীয় দলের অন্যতম সদস্য রবি কুমার। বাংলার হয়ে খেললেও রবির জন্ম এবং ছেলেবেলা কেটেছে উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ে। বাবা সেনা কর্মী। ছোট থেকেই ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন দেখতেন রবি। বাঁহাতি ফাস্ট বোলার রবি ছোটবেলার কোচের পরামর্শে কলকাতায় চলে আসেন। আত্মীয়র বাড়িতে থেকেই নিজেকে ক্রিকেটার হিসেবে গড়ে তুলেছেন রবি কুমার।

বিশ্বকাপ জেতার রাতে তুমুল ব্যস্ততার মাঝেও নিউজ 18 বাংলাকে হোয়াটসঅ্যাপ কলে এসক্লুসিভ ইন্টারভিউ দিলেন ফাইনালে ৪ উইকেট নেওয়া এই ক্রিকেটার। অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপ জেতার পর ভারতীয় সময় সোমবার ভোর চারটেয় রবিকে অনেকবার ফোন করে পাওয়া যাচ্ছিল না। একাধিক হোয়াটসঅ্যাপ। সব দেখে রবি হোয়াটসঅ্যাপ করে জানান, প্রচণ্ড ব্যস্ততার মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন।

আরও পড়ুন- ক্যারিবিয়ান ব্যাটিং অর্ডার ভেঙে ম্যাচের সেরা যুজবেন্দ্র চাহাল কী বললেন ?

গায়েনায় ভারতীয় দূতাবাসে আমন্ত্রণে যেতে হচ্ছে। ফিরে এসে কথা বলবেন। তার পর ভারতীয় সময় সোমবার সকাল সাতটায় নিজেই ফোন করলেন রবি কুমার। শুরুতেই দুঃখপ্রকাশ, অনেকক্ষণ অপেক্ষার পরে কথা হল বলে।

প্রশ্ন- ধন্যবাদ ব্যস্ততার মাঝে সময় দেওয়ার জন্য। বিশ্বকাপ জেতার অনুভূতি কেমন ছিল ?

উত্তর- বেশ কয়েকদিন ধরেই এই স্বপ্নটা দেখছিলাম গোটা দল মিলে। দলের সমস্ত কোচ আমাদের সেই স্বপ্ন দেখতে সাহায্য করেছিল। তাই বিশ্বকাপ জেতার মুহূর্তটা এখন পর্যন্ত জীবনের সেরা অনুভূতি। তবে সেলিব্রেশন যা হওয়ার হয়ে গেছে। এবার আবার তাড়াতাড়ি স্বাভাবিক ছন্দে ফিরতে হবে

প্রশ্ন- মাত্র কয়েক ঘন্টা আগে বিশ্বকাপ জিতেছেন। তার মধ্যেই সেলিব্রেশন শেষ?

উত্তর- ভিভিএস লক্ষ্মণ, ঋষিকেশ কানিতকার, সাইরাজ বাহুতুলে স্যাররা ফাইনালে শেষে ড্রেসিংরুমে বলেছেন, ফেভারিট হিসেবেই ভারত বিশ্বকাপ জিতেছে। বড় ক্রিকেটার হওয়ার পথে এটা প্রথম ধাপ। তাই বিশ্বকাপ জয়ের অনুভূতিটা উপভোগ করে ক্রিকেটে আবার তাড়াতাড়ি ফিরতে হবে। আমিও এই পরামর্শ মেনে চলছি।

প্রশ্ন- ফাইনালে ৪ উইকেট। ইংল্যান্ডকে প্রথম ধাক্কাটা আপনি দিয়েছেন। আপনার বোলিং ধাক্কাতেই তো ইংল্যান্ড বেসামাল হয়েছিল। এমনকী জেমস রিউকে ৯৫ রানে ফেরালেন আপনি। কী পরিকল্পনা ছিল ম্যাচের আগে?

উত্তর- দেখুন, আমার একটাই কাজ ছিল, নির্দিষ্ট জায়গায় লাইন, লেংথে বল করা। তবে বিপক্ষ ব্যাটারদের নিয়ে আলাদা করে ভিডিও দেখেছিলাম। বাড়তি কোনো চাপ ছিল না। আমাদের বিশ্বকাপের আগে প্রস্তুতি ভালো হয়েছিল। দলে সাফল্যের নিজের অবদান রাখতে পেরেছি এটাই প্রাপ্তি

প্রশ্ন- খারাপ লাগছে না, ৫ উইকেট হল না?

উত্তর- একদমই খারাপ লাগছে না। আমার না হলেও রাজের হয়েছে। আমারও সুযোগ ছিল পাঁচ উইকেট হওয়ার। তবে এটা টিম গেম। সবাই মিলে সাফল্য পেয়েছি এটাই আনন্দের।

প্রশ্ন- আপনার গল্পটা অনেকটা মহম্মদ সামির মতো। উত্তরপ্রদেশ থেকে এসে বাংলায় ক্রিকেটে সুযোগ। আগামী দিনে বাংলার হয়ে খেলবেন তো?

উত্তর- ও অনেক বড় ক্রিকেটার। আমার সঙ্গে তুলনা করা একদমই ঠিক নয়। তবে লড়াইটা অনেকটা এক। প্রথমে একা একা স্ট্রাগল করতে হয়েছে। তবে আমার সাফল্যের পেছনে যার যার অবদান আছে তার জন্য আমি কৃতজ্ঞ। হাওড়া ইউনিয়ন, বালিগঞ্জ ক্লাবের কর্তারা সাহায্য করেছেন। বাংলার হয়ে খেলেই অনূর্ধ্ব ১৯ বিশ্বকাপে সুযোগ পেয়েছি। আগামী দিনে বাংলার রঞ্জি খেলতে চাই। ভারতীয় দলে সুযোগ করে নেওয়াই আমার একমাত্র লক্ষ্য।

প্রশ্ন- আপনার প্রিয় ক্রিকেটার কে?

উত্তর- আমি ফাস্ট বোলার হলেও মহেন্দ্র সিং ধোনির অন্ধ ভক্ত। স্যারের সঙ্গে একবার দেখা করার অপেক্ষায় রয়েছি। তবে বোলারদের মধ্যে আমার প্রিয় মিচেল স্টার্ক।

প্রশ্ন- আইপিএলে দল পাওয়ার ব্যাপারে আশাবাদী?

উত্তর- আশা করি সুযোগ পাবো। সুযোগ পেলে ওখানেও প্রমাণ করতে হবে নিজেকে। তবে আমার কাজ ক্রিকেট খেলা। আইপিএলের আগে রঞ্জি ট্রফি রয়েছে। বাংলার সিনিয়র দলে প্রথমে জায়গা করে নিতে চাই।

প্রশ্ন- পরিবারের সঙ্গে কথা হলো? আপনার বাবা তো কখনো মাঠে বসে খেলা দেখেননি বললেন। তবে আপনাকে স্বাগত জানাতে ছুটি নিয়েছেন

উত্তর- আমার বাবা সেনা কর্মী। আমাকে সময় দিতে পারেনি। এখনো ফোনে কথা বলা হয়নি। আপনাদের সঙ্গে কথা বলছি। ঘুমোতে যাওয়ার আগে একবার বাড়িতে ফোন করব। আর হ্যাঁ, এবার পরিবারের সবাইকে মাঠে বসে আমার খেলা দেখাতে চাই। আমার ছোটবেলার স্যারের থেকে শুনলাম বাবা নাকি সমস্ত সতীর্থদের সঙ্গে ক্যাম্পে বসে টিভিতে খেলা দেখেছে।

প্রশ্ন- বোর্ডের ঘোষিত ৪০ লক্ষ টাকা পুরস্কার দিয়ে কি করতে চান?

উত্তর-বিসিসিআই আমাদের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছে। তবে সেটা নিয়ে কী করবো এখনই বলতে পারবো না। একটানা খেলছি। কিছুদিন পরিবারের সঙ্গে সময় কাটাতে চাই। তার পর দ্রুত ক্রিকেট মাঠে ফিরব

আরও পড়ুন- অধিনায়ক রোহিত শর্মা এবং সূর্যের ব্যাটে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারাল ভারত

প্রশ্ন- বিশ্বকাপ জেতার পর এখনও পর্যন্ত কার কার থেকে শুভেচ্ছা পেয়েছেন?

উত্তর- হাই কমিশনারের আমন্ত্রণে আমরা কিছুক্ষণ আগে ওখানে গিয়েছিলাম। মোবাইল এখনও খুলে দেখা হয়নি। তবে প্রাপ্তি বলতে ফাইনালের আগে বিরাট কোহলি আমাদের টিপস দিয়েছিলেন। এনসিএতে ক্যাম্পের সময় রোহিত স্যার অনেক পরামর্শ দেন। সেগুলো অনেক কাজে লেগেছে। আমরা ৯ তারিখ আহমেদাবাদে যাব। তারপর বাকি পরিকল্পনা। সুযোগ পেলে আলিগড়ে বাড়ি যেতে চাই। আর রঞ্জির স্কোয়াডে ডাক পেলে কটক যেতে হবে। তবে এর মধ্যে কলকাতায় আসার সুযোগ পেলে কথা দিলাম আপনাদের চ্যানেলে ইন্টারভিউ দেব। আপাতত ঘুমাই।

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Ravi Kumar, U19 India Team, U19 WC, U19 World Cup 2022

পরবর্তী খবর