• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS TOKYO OLYMPICS 2020 THOMAS ROBERT DALEY THE BRITISH GOLD MEDAL WINNING DIVER HAS WON HEARTS WITH HIS KNITTING PASSION TOO ARC

Tokyo Olympics 2020: স্বামীপুত্র লন্ডনে, স্বর্ণপদকের পাশাপাশি উল বুনেও অলিম্পিক্স জয় ডাইভার ড্যালের

অলিম্পিক্স থেকেও নিয়মিত তাঁর বুনন শিল্পের ছবি পোস্ট করেছেন ড্যালে, ছবি-ইনস্টাগ্রাম

‘যিনি স্বর্ণপদক পান, তিনি সোয়েটারও বোনেন’ প্রবাদ নতুন করে লিখলেন টম ড্যালে (Thomas Robert Daley) ৷

  • Share this:

    টোকিয়ো : ‘যে রাঁধে, সে চুলও বাঁধে’, দশভুজা হওয়ার দায়ভার এতদিন ছিল মেয়েদেরই ৷ এ বার থেকে ‘যিনি স্বর্ণপদক পান, তিনি সোয়েটারও বোনেন’ প্রবাদ নতুন করে লিখলেন টম ড্যালে (Thomas Robert Daley) ৷ অলিম্পিক্সে ডাইভিংয়ে স্বর্ণপদকজয়ী দেখিয়ে দিলেন, দিব্যি মাল্টিটাস্কার হতে পারেন পুরুষরাও ৷

    গত ২৫ জুলাই টোকিয়ো অলিম্পিক্সে তাঁর ডাইভিং পার্টনার ম্যাটি লি-কে নিয়ে পুরুষদের সিঙ্ক্রোনাইজড ১০ মিটার প্ল্যাটফর্ম বিভাগে স্বর্ণপদক জয় করেছেন ড্যালে ৷ তবে কণ্ঠের কাঞ্চনশোভার তুলনায় ড্যালে বেশি চর্চিত তাঁর উলবোনা নিয়ে ৷ অলিম্পিকের একাধিক ইভেন্টে দেখা গিয়েছে গ্যালারিতে উলকাঁটায় নিবিষ্ট ড্যালে ৷ মুখে মাস্ক, চোখ ডুবে রয়েছে হাতের প্যাটার্নে ৷

    অলিম্পিক্স থেকেও নিয়মিত তাঁর বুনন শিল্পের ছবি পোস্ট করেছেন ড্যালে ৷ জানিয়েছেন, কখনও তিনি পোষ্যের জন্য জাম্পার বুনছিলেন ৷ কখনও বা তৈরি করছিলেন তাঁর স্বর্ণপদকের উলঘর ৷ পশমের তৈরি সেই আশ্রয়ে যত্নে আছে তাঁর স্বর্ণপদক ৷ পদকের উলজামার একদিকে ইংল্যান্ডের জাতীয় পতাকা, অন্যদিকে জাপানের ৷

    করোনাদীর্ণ পরিবেশে গত বছর দীর্ঘ লকডাউনে উলবোনার অভ্যাসকেই জড়িয়ে ধরেছিলেন ড্যালে ৷ এক বছরের মধ্যে উলকাঁটা তাঁর নিপুণ হাতে বাধ্য পোষ্য৷ ঠিক সেভাবেই তিনি বশ করেছেন ডাইভিংয়ের কৌশল ৷ আদতে ইংল্যান্ডের প্লাইমাউথের বাসিন্দা থমাস রবার্ট ড্যালে ডাইভিং অনুশীলন শুরু করেন শৈশবে ৷ ২০০৮-এর বেইজিং অলিম্পিক্সের সময় তাঁর বয়স ১৪ বছর ৷ সে বার তিনি ছিলেন ফাইনালে অংশ নেওয়া ব্রিটেন তথা বিশ্বের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় ৷ এখনও অবধি এই রেকর্ড তাঁর দখলেই আছে ৷ ২০১২ ও ২০১৬-র অলিম্পিকে তিনি ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছিলেন ৷ অলিম্পিক্সে স্বর্ণপদক প্রাপ্তি এ বারই প্রথম ৷

    টোকিয়োর এই মধুস্মৃতিকে উলবন্দি করতে চেয়েছিলেন ড্যালে ৷ বুনে ফেলেছেন তাঁর নিজের জন্যই আস্ত একটা সোয়েটার ৷ ইনস্টাগ্রামে তাঁর সেই ছবিতে প্রায় ৫ লক্ষ লাইক ! শুধু তাঁর বুননকাজের ছবি শেয়ার করার জন্য একটা ইনস্টাগ্রাম পেজ খুলেছেন তিনি ৷ ফলোয়ার সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৫ লক্ষ ৬৪ হাজার ৷ প্রতি সপ্তাহে তিনি সেখানে ছবি শেয়ার করেন নিজের বোনাবুনির ৷

    তাঁর ৩ বছরের ছেলের জন্যও খুব সুন্দর সু্ন্দর পোশাক বুনে দেন ড্যালে ৷ তাঁর শিল্পকর্ম উপহার পাওয়ার তালিকা থেকে বাদ থাকেন না ঘনিষ্ঠ বন্ধুবান্ধব এবং অবশ্যই স্বামী ডাস্টিন ল্যান্স ব্ল্যাকও ৷

    অস্কারজয়ী আমেরিকান প্রযোজক, পরিচালক তথা চিত্রনাট্যকার ব্ল্যাকের সঙ্গে ড্যালের আলাপ পরিচিত বন্ধুর সঙ্গে ৷ ২০১৩ সালে, লস অ্যাঞ্জলসে এক নৈশভোজে ৷ দু’জনের ক্ষেত্রেই এই সাক্ষাৎ ছিল ‘লভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট’ ৷ চার বছর প্রেমপর্বের পর বিয়ে ২০১৭-এ ৷ এক বছর পর সারোগেসির মাধ্যমে সন্তানলাভের কথা জানান তাঁরা ৷ ২০১৮-র জুনে জন্ম তাঁদের একমাত্র সন্তানের ৷

    ব্ল্যাক-ড্যালের সাজানো গোছানো সংসার লন্ডনে ৷ পার্টনার নয়, ব্ল্যাককে নিজের ‘স্বামী’ পরিচয় দিতেই ভালবাসেন ড্যালে ৷ তবে দম্পতির কেউই তাঁদের শিশুপুত্রের মুখের ছবি সামাজিক মাধ্যমে শেয়ার করেন না ৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published: