• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • OTHER SPORTS INDIAN WOMEN S HOCKEY TEAM BREAKS DOWN DURING TELEPHONIC CONVERSATION WITH PM NARENDRA MODI DD

Indian Women Hockey Team|| Narendra Modi মহিলা হকি দলকে ফোন করতেই কান্না প্লেয়ারদের,তারপর, দেখে নিন কী হল

indian women's hockey team breaks down during telephonic conversation with pm narendra modi Photo- Twitter/ Video Grab

Tokyo Olympics 2020 -র মঞ্চে আপনাদের শরীর থেকে যে ঘাম ঝরেছে তা কোটি কোটি ভারতীয় মহিলাকে অনুপ্রাণিত করেছে- ভারতীয় মহিলা হকি দলকে (Indian Women Hockey Team) বললেন প্রধানমন্ত্রী (Narendra Modi) ৷

  • Share this:

    #নয়াদিল্লি: টোকিও অলিম্পিক্সে অংশগ্রহণকারী ভারতীয় মহিলা হকি দলকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি শুক্রবার ফোন করেন৷ প্রধানমন্ত্রীর ফোনেই কান্নায় ভেঙে পড়েন অনেক খেলোয়াড়৷ কিন্তু প্রধানমন্ত্রী সকলকেই আশ্বাস দেন৷ বেশ কিছু সময় ধরেই ভারতীয় মহিলা হকি খেলোয়াড়রা ধারাবাহিকভাবে ভালো পারফর্ম করছিল তবে এভাবে একেবারে অলিম্পিক্সের সেমিফাইনালে পৌঁছবেন তাঁরা এই আশা হয়ত অনেকেই করেননি৷ ব্রোঞ্জ পদকের জন্য তাঁদের লড়াই ছিল গ্রেট ব্রিটেনের বিরুদ্ধে৷

    হাড্ডাহাড্ডি লড়াই করে মেয়েরা ৩-৪ গোলে হেরে যায়৷ শুক্রবার সকালে তবে এক ইঞ্চি জমিও বিনা লড়াইতে ছাড়েননি ভারতীয় মহিলা হকি দলের খেলোয়াড়রা৷ তাই হারের দুঃখ থাকলেও মেয়েদের এই অদম্য পারফরম্যান্সকে কুর্নিশ করেছেন সকলেই৷ ৫-৬ বছর ধরে ভারতের মেয়েরা প্রচণ্ড পরিশ্রম করেছেন৷ প্রধানমন্ত্রী তাঁদের বলেন আপনাদের ঘাম দেশকে পদক দিতে পারেনি কিন্তু আপনাদের ঘাম দেশের কোটি কোটি মেয়েদের প্রেরণা দিয়েছে৷ তিনি জানিয়েছেন প্রতি খেলোয়াড়কে তাঁর অভিনন্দন আর বার্তা দিয়েছেন একদম নিরাশ যেন তাঁরা না হন৷

    প্রধানমন্ত্রী  নরেন্দ্র মোদি এক খেলোয়াড় নবনীতের চোখের চোটেরও উল্লেখ করেন৷ তখন দলের অধিনায়ক রাণী বলেন -যে সেই মেয়েটির চারটি সেলাই পড়েছে৷ এতে নরেন্দ্রে মোদি বলেন, বাপরে বাপ, কী অসুবিধা হয়েছে দেখলাম, তারপর বলেন এখন কোনও অসুবিধা নেই তো৷  বন্দনা, সলিমা সকলে ভালো খেলেছে বলেন তিনি৷

    নরেন্দ্র মোদি যখন প্লেয়ারদের কান্নার আওয়াজ শোনেন তখন তিনি বলেন আপনারা কান্না বন্ধ করুন৷ আমি আপনাদের কান্না শুনতে পাচ্ছি৷ একদম নিরাশ হবেন না৷ আপনাদের পরিশ্রমে হকি ফের পুনরুজ্জীবিত হয়েছে৷ এভাবে নিরাশ হবেন না৷

    Published by:Debalina Datta
    First published: