• Home
  • »
  • News
  • »
  • sports
  • »
  • FOOTBALL STATISTICAL ANALYSIS AND HEAD TO HEAD RECORD BETWEEN ENGLAND AND ITALY RRC

 পরিসংখ্যান কী বলছে? ব্রিটিশ সিংহ নাকি ইতালিয়ান গ্ল্যাডিয়েটর, কে এগিয়ে?

পরিসংখ্যান দেখেও কোনও দলকেই এগিয়ে রাখা যাচ্ছে না

আজুরি চারটি বিশ্বকাপ পেলেও ইউরো কাপ মাত্র ওই একবারই জুটেছিল। ইংল্যান্ড ববি মুরের হাত ধরে ১৯৬৬ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ভাঁড়ার শূন্য

  • Share this:
    #লন্ডন: সুপার সানডের রাতে ব্রিটিশদের গর্বের ওয়েম্বলি স্টেডিয়ামে ইংল্যান্ড এবং ইতালি কেউ কাউকে এক ইঞ্চি জায়গা ছেড়ে দেবে না। দুটো দলই মরিয়া চ্যাম্পিয়ন হতে। ১৯৬৮ সালে শেষবার ইউরো কাপ জিতেছিল ইতালি। আজুরি চারটি বিশ্বকাপ পেলেও ইউরো কাপ মাত্র ওই একবারই জুটেছিল। ইংল্যান্ড ববি মুরের হাত ধরে ১৯৬৬ সালে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর ভাঁড়ার শূন্য। দর্শক ভর্তি স্টেডিয়ামে ব্রিটিশ সিংহ পারবে ইতিহাস তৈরি করতে? নাকি অপরাজিত তকমা বজায় রেখে কাপ জিতবে ইতালি? উত্তর দেবে সময়। কিন্তু পরিসংখ্যান অনেক কথা বলে। আসুন, একবার চোখ রাখা যাক পরিসংখ্যানের দিকে। ইতালি ১০ নম্বর মেজর ফাইনালে ( ৬বার বিশ্বকাপ ৪ বার ইউরো) খেলতে নামছে। ইতালির চেয়ে এক মাত্র জার্মানি বেশি বার (১৪) খেলেছে। ১৯৬৬ সালের পর ইংল্যান্ড প্রথম কোনও মেজর টুর্নামেন্টের ফাইনালে উঠেছে। ৫৫ বছর পর ফাইনালে থ্রি-লায়ন্স। মেজর টুর্নামেন্টে ইতালি কখনও ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে হারেনি। ১৯৮০ র ইউরোতে আজুরিরা ১-০ জেতে, ১৯৯০ ও ২০১৪ বিশ্বকাপে পিরলোর দল ২-১ জেতে। ২০১২ সালে ইউরো কাপে ইতালি ৪-২ জেতে (পেনাল্টি শুট আউটে)।'দ্য উইনিং মেশিন' তকমা পাওয়া নীল জার্সিধারীরা সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে টানা ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত। এটাই তাদের দীর্ঘতম সময় ধরে অপরাজিত থাকার রেকর্ড। ৮৬টি গোল করেছে ইতালি, হজম করেছে ১০টি। ওয়েম্বলিতে ইংল্যান্ড শেষ ১৭ ম্যাচের মধ্যে ১৫টি জিতেছে। সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে তারা ডজন ম্যাচ অপরাজিত। কোনও দল একই ইউরোতে দু'বার পেনাল্টি শুটআউটে জেতেনি। হেড-টু-হেড: খেলা হয়েছে ২৭ বার ইংল্যান্ড জিতেছে ৮ বার ইতালি জিতেছে ১১ বার ম্যাচ ড্র হয়েছে ৮ বার শেষ পাঁচ সাক্ষাৎ: ২০১৮ সালে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ইতালি-ইংল্যান্ড ১-১ ড্র, ২০১৫ সালে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ইতালি-ইংল্যান্ড ১-১ ড্র, ২০১৪ সালের বিশ্বকাপে ইতালি ২-১ হারায় ইংল্যান্ডকে। ২০১২ সালে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে ইংল্যান্ড ২-১ হারায় ইতালিকে। ২০১২ সালে ইউরো কাপে ইতালি ৪-২ জেতে (পেনাল্টি শুট আউটে)
    Published by:Rohan Chowdhury
    First published: