Home /News /sports /
মেসির সঙ্গে মারাদোনার তুলনা শুনেই রেগে আগুন প্রাক্তন অধিনায়ক কেম্পেস

মেসির সঙ্গে মারাদোনার তুলনা শুনেই রেগে আগুন প্রাক্তন অধিনায়ক কেম্পেস

বিশ্বকাপ জিতলেও দিয়েগোর পেছনেই থাকবে মেসি বলছেন কেম্পেস

বিশ্বকাপ জিতলেও দিয়েগোর পেছনেই থাকবে মেসি বলছেন কেম্পেস

মেসিকে আরও বেশি করে দিয়েগো মারাদোনার সঙ্গে তুলনা করা শুরু হয়। এতেই ক্ষেপে গেলেন আর্জেন্টিনীয় ফুটবলার মারিও কেম্পেস। তিনি বলেছেন, দিয়েগো মারাদোনার সঙ্গে ৩৪ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডের তুলনা করা উচিত নয়

  • Last Updated :
  • Share this:

#রোজারিও: অবশেষে স্বপ্ন সফল হয়েছে আর্জেন্টিনার। দীর্ঘ ২৮ বছর বাদে আন্তর্জাতিক ট্রফি জিততে পেরেছে তাঁরা। খরা কেটেছে দীর্ঘ অপেক্ষার পর। এখনও দেশ জুড়ে উৎসবের আমেজ। স্বয়ং লিওনেল মেসি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর দেশবাসীর পাশাপাশি দিয়েগো মারাদোনাকে ট্রফি উৎসর্গ করেছেন। দিয়েগো যেখানেই থাকুন আর্জেন্টিনার ট্রফি জয় দেখতে পাচ্ছেন বলে মন্তব্য করেছেন এল এম টেন। এরপর থেকেই মেসিকে আরও বেশি করে দিয়েগো মারাদোনার সঙ্গে তুলনা করা শুরু হয়।

এতেই ক্ষেপে গেলেন আর্জেন্টিনীয় ফুটবলার মারিও কেম্পেস। তিনি বলেছেন, দিয়েগো মারাদোনার সঙ্গে ৩৪ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডের তুলনা করা উচিত নয়। মেসি তার স্বদেশী এবং আর্জেন্টিনার কিংবদন্তি মারাদোনার চেয়েও ভাল খেলোয়াড় ও ভাল ক্যাপ্টেন হতে পেরেছেন কি না তা নিয়ে গত কয়েক বছর ধরেই বিতর্ক ছড়িয়ে পড়েছে। মারিও কেম্পেস ইএসপিএন মেক্সিকোকে বলেন, ‘মেসির জন্য দুর্ভাগ্য হল তাকে মারাদোনার জায়গায় বসানো হয়েছে। দিয়েগোকে আড়াল করা খুব কঠিন, বিশ্বব্যাপী তাকে যেভাবে দেখা হয় সেই বিচারে।’

তিনি জানান, মেসি যদি টানা চারটি বিশ্বকাপ জয় করেন তবুও মারাদোনার চেয়ে ভাল হতে পারবেন না। ১৯৭৮ বিশ্বকাপ ফুটবলের সর্বোচ্চ গোলদাতা এবং সেরা খেলোয়াড় নির্বাচিত হন আর্জেন্টিনীয় ফুটবলার মারিও কেম্পেস। তিনি বলেন, মেসি মারাদোনার চেয়ে ভাল হতে চাইলেও পারবে না। এমনকি টানা চারটি বিশ্বকাপ জিতলেও পারবে না; যদিও সে এখনো বিশ্বকাপ জিততে পারেনি। সে কতগুলো শিরোপা জিতল কিংবা কী জিতল, সেসব কোনো বিষয় নয়। কারণ, দিয়েগো যা করেছে গেছে, তার সঙ্গে এসবের তুলনা চলে না। মারাদোনাকে ছাড়িয়ে যাওয়া খুব কঠিন।

আসলে পৃথিবী ছেড়ে চলে গেলেও দিয়েগো মারাদোনা নামটা এখনও আর্জেন্টাইনদের কাছে সবচেয়ে বড় পরিচয় এবং গর্ব। পরের বছর কাতার বিশ্বকাপ। নিঃসন্দেহে মেসির শেষ বিশ্বকাপ। আর্জেন্টিনা জিততে পারবে কিনা উত্তর দেবে সময়। তবে আর্জেন্টাইন ফুটবল ইতিহাসে এক নম্বর জায়গাটা চিরকাল দিয়েগো মারাদোনারই থেকে যাবে। এটাই তাঁর ম্যাজিক। মেসি শত চেষ্টা করলেও তা অতিক্রম করতে পারবেন না।

কিন্তু দেশকে প্রথম আন্তর্জাতিক ট্রফি দেওয়ার পথে মাঠে সর্বস্ব উজাড় করে দিয়েছিলেন বার্সেলোনা তারকা। গোড়ালিতে বিপক্ষ দলের ফুটবলারের স্পাইক লেগে মোজা রক্তে ভিজে যাওয়া পা নিয়ে লড়ে গিয়েছেন। প্রচুর মার খেয়ে, হ্যামস্ট্রিং চোট নিয়েও লড়াই ছাড়েননি। তাই দিয়েগো মারাদোনার পাশে বসানো না গেলেও, আর্জেন্টাইন ফুটবল ইতিহাসের দ্বিতীয় জায়গাটা লিওনেল মেসির নিজের সম্পত্তি। মারিও কেম্পেস মানুন আর নাই মানুন।

Published by:Rohan Chowdhury
First published:

Tags: Diego Maradona, Lionel Messi