Home /News /sports /
Mohun Bagan: বুধ বিকেলে বাগানে ঝড়! সবুজ-মেরুনে হট্টমেলা, প্রকাশ‍্যেই বিতণ্ডায় ক্লাবের দুই শীর্ষকর্তা

Mohun Bagan: বুধ বিকেলে বাগানে ঝড়! সবুজ-মেরুনে হট্টমেলা, প্রকাশ‍্যেই বিতণ্ডায় ক্লাবের দুই শীর্ষকর্তা

বাগানে বিতণ্ডা

বাগানে বিতণ্ডা

Mohun Bagan: সাংবাদিক সম্মেলনে ন্যাক্কারজনকভাবে তর্কে জড়ালেন শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবের দুই 'অধুনা' শীর্ষকর্তা।

  • Share this:

#কলকাতা: রাজ‍্যে আসার আগেই বাগানে কালবৈশাখীর ইঙ্গিত! নাকি বলবেন, গঙ্গাপাড়ের ক্লাবে অকাল শরতের আগমনী ? পাতা ঝরার পালা? নির্বাচন মিটতেই বাগান ফিরল বাগানে। প্রকাশ্যেই দুরত্ব, মতবিরোধ বাগানের দুই শীর্ষকর্তার। বুধবার ছিল মোহনবাগানের নবনির্বাচিত এগজিকিউটিভ কমিটির বৈঠক। বৈঠক শেষে সাংবাদিক সম্মেলনে ন্যাক্কারজনকভাবে তর্কে জড়ালেন শতাব্দী প্রাচীন ক্লাবের দুই 'অধুনা' শীর্ষকর্তা।

গণ্ডগোলের সূত্রপাত ক্লাবের মাঠ-সচিব পদে তন্ময় চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে পিন্টু বিশ্বাসকে পদে বসানো নিয়ে। এই তন্ময় চট্টোপাধ্যায় আবার ক্লাবের বর্ষিয়ান কর্তা অসিত চট্টোপাধ্যায়ের পুত্র। পিন্টু বিশ্বাস সম্পর্কে রাজ্যের ক্রীড়ামন্ত্রী অরূপ বিশ্বাসের ঘনিষ্ঠ। মোহনবাগানের নির্বাচনের সময় পিন্টু বিশ্বাসকে পদে চেয়েও  জটিলতার কারণে কমিটিতে আনতে পারেনি বাগানের গোষ্ঠী রাজনীতিতে ইদানিং বলীয়ান দত্ত গোষ্ঠী।

সূত্রের খবর, অসিত চট্টোপাধ্যায়ের পুত্র তন্ময়কে মাঠ-সচিব পদে প্রার্থী করে তখনকার মতো ভোট বৈতরণী পার করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নির্বাচন মিটতেই জটিলতা কাটিয়ে তন্ময় চট্টোপাধ্যায়কে সরিয়ে পিন্টু বিশ্বাসকে মাঠ-সচিব পদে বসাতে তৎপর হন ক্লাবের দত্ত গোষ্ঠী। আর সেখানেই বেঁকে বসেন মোহনবাগানের ফুটবল সচিব বাবুন বন্দোপাধ্যায়। নিজের ছায়াসঙ্গী চিন্ময় চট্টোপাধ্যায়কে মাঠ-সচিব পদে বসাতে আসরে নামেন কালীঘাটের 'বাবুনদা'।

শুরু হয় অঙ্ক, পালটা অঙ্ক। সমীকরণ, পালটা সমীকরণ। শেষমেশ শেষ হাসি হাসে দত্ত গোষ্ঠী। ক্ষমতাবলে মাঠসচিব পদে পিন্টুকে বসায় দত্ত গোষ্ঠী। আর তা নিয়েই বুধবার সন্ধ্যায় বাগানে হট্টগোল। অনমনীয়, সোজাসাপ্টা বাবুন বন্দ্যোপাধ্যায়ও হার মানতে নারাজ। ফলে ক্লাবের অন্দরের বিরোধ-বিবাদ এবার সামনে।

আরও পড়ুন: উডবার্ন থেকে বেরোলেন অনুব্রত মণ্ডল! তাহলে কি ছুটি? শেষমেশ যা জানা গেল...

সচিব দেবাশীষ দত্ত মাঠসচিব পদে পিন্টু বিশ্বাসের নাম ঘোষণা করতেই সাংবাদিক সম্মেলনে মধ্যেই প্রবল আপত্তি জানিয়ে রে রে করে ওঠেন বাবুন বন্দ্যোপাধ্যায়। মোহনবাগানের ফুটবল সচিব বাবুন রাখঢাক না রেখেই বলে ওঠেন, "এই সিদ্ধান্ত না জানিয়েই নেওয়া হয়েছে। এ সিদ্ধান্ত মানতে নারাজ।" পাশে বসা ক্লাব সহ-সভাপতি কুণাল ঘোষ ও রাজ্যের মন্ত্রী মলয় ঘটকও হঠাৎ উদ্ভূত পরিস্থিতিতে বেজায় অস্বস্তিতে পড়েন। বাবুনকে থামাতে তৎপর হয়ে ওঠেন বাকি কর্তারা। কিন্তু কে তখন কার কথা শোনে!

আরও পড়ুন: জিতেন্দ্র তিওয়ারিকে ধন্যবাদ জানালেন শত্রুঘ্ন সিনহা, হঠাৎ কী এমন ঘটল? শুরু গুঞ্জন

শাক দিয়ে মাছ ঢাকার চেষ্টায় অবশ‍্য কসুর কম ছিল না বাগান কর্তাদের। বিতর্কিত ঘটনার পরপরই রুদ্ধদ্বার বৈঠকে বসেন দেবাশীষ দত্ত, কুণাল ঘোষ, সোহিনী মিত্র, মানস ভট্টাচার্য ও সত্যজিৎ চট্টোপাধ্যায়রা। বিতর্কিত ঘটনায় সচিব দেবাশীষ দত্তর খেদোক্তি, "এই ঘটনাটা না ঘটলেই ভালো হত!" কিন্তু আয়নায় চিড়টা যে রয়েই গেল! সেটা সামলাবে কে! এদিন বাগানের অন‍্যতম সহ-সভাপতি পদে মনোনীত হলেন শৌমীক বসু।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Indian Football, Mohun Bagan

পরবর্তী খবর