দক্ষিণবঙ্গ

?>
corona virus btn
corona virus btn
Loading

বাড়ি থেকে বসেই অনলাইনে ওপেন বুক এক্সামিনেশন পদ্ধতিতে পরীক্ষা! ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষার্থীদের নিয়ে সিদ্ধান্ত বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের

বাড়ি থেকে বসেই অনলাইনে ওপেন বুক এক্সামিনেশন পদ্ধতিতে পরীক্ষা! ফাইনাল ইয়ারের পরীক্ষার্থীদের নিয়ে সিদ্ধান্ত বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের

স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের মূল্যায়ন করা হবে এই ভাবেই।কোন তারিখে কি কি পরীক্ষা হবে তা বিস্তারিত ভাবে নির্দেশিকা দিয়ে ছাত্র-ছাত্রীদের জানানো হবে।

  • Share this:

#কলকাতা: অক্টোবর মাসের ১ থেকে ১৮ তারিখ পর্যন্ত ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়া হবে তা গত সোমবারই উপাচার্যের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠক করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন। আর এবার পশ্চিম মেদিনীপুরের বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় রূপরেখা চূড়ান্ত করল স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এর ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের কিভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে।

মূলত "অনলাইন ওপেন বুক এক্সামিনেশন" এই পদ্ধতিতেই বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনস্থ স্নাতক ও স্নাতকোত্তর এর ফাইনাল ইয়ারের ছাত্র ছাত্রীদের পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। অর্থাৎ ছাত্রছাত্রীরা বাড়িতে বসেই পরীক্ষা দেবেন। মূলত বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটে প্রশ্নপত্র আপলোড করে দেওয়া হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটের পাশাপাশি তাদের নিজস্ব অ্যাপেও প্রশ্নপত্র দিয়ে দেওয়া হবে। সেই প্রশ্নপত্র দেখে ছাত্রছাত্রীরা বাড়িতে বসেই পরীক্ষা দেবেন। তারপর একটি নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে ইমেইল মারফত উত্তরপত্র ছাত্রছাত্রীরা পাঠিয়ে দেবেন। সেই উত্তরপত্র অধ্যাপক-অধ্যাপিকারা মূল্যায়ন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে নম্বর জমা দেবেন। এই পদ্ধতিতেই পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

এই প্রসঙ্গে উপাচার্য রঞ্জন চক্রবর্তী জানিয়েছেন " বর্তমানে প্যানডেমিক সময় ছাত্র-ছাত্রীদের বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে এসে পরীক্ষা করানো তো সম্ভব নয়। তাই আমরা অনলাইনে পরীক্ষা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। অর্থাৎ অনলাইনে আমরা প্রশ্নপত্র আপলোড করে দেব ছাত্রছাত্রীরা সেই প্রশ্নপত্র দেখে বাড়িতে বসেই পরীক্ষা দিয়ে আবার ইমেইল মারফত উত্তরপত্র পাঠিয়ে দেবেন।" সেক্ষেত্রে ৩১ অক্টোবরের মধ্যেই ফলাফল প্রকাশ করা সম্ভব নাকি সেই প্রসঙ্গে অবশ্য উপাচার্য জানান " জরুরী কালীন পরিস্থিতিতে আমরা সব ব্যবস্থা করা শুরু করেছি। আশা করছি ৩১ অক্টোবরের মধ্যেই ফল প্রকাশ করতে পারব।"

গত সোমবারের উপাচার্যের সঙ্গে ভার্চুয়ালি বৈঠকে পরীক্ষা নেওয়া হবে বলে একপ্রকার জানিয়েই দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। শুধু তাই নয়, বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মানতে হবে বলেও উপাচার্যদের স্পষ্ট করে দিয়েছিলেন শিক্ষামন্ত্রী। প্রসঙ্গত ইউজিসি তরফে পরীক্ষা নিয়ে গাইডলাইন জারি করার আগেই রাজ্যের উচ্চ শিক্ষা দপ্তরের তরফে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোকে একপ্রস্থ অ্যাডভাইজারি দেওয়া হয়। সেই অ্যাডভাইজারি মেনে কয়েকটি বিশ্ববিদ্যালয় অ্যাসেসমেন্ট করে ফল প্রকাশ করে দেয়। যার মধ্যে পশ্চিম মেদিনীপুরের বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের ফল প্রকাশ করে দিয়েছিল। কিন্তু সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের রায় স্পষ্ট করে জানিয়ে দিয়েছে আগের সেমিস্টারের কোন নম্বর ফাইনাল সেমিস্টারের ক্ষেত্রে দেওয়া যাবে না। যার জেরে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ গত সোমবারই শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠকে জানিয়ে দিয়েছিল তারা আবার পরীক্ষা নেবে। নতুন করে পরীক্ষা নিয়ে তারা ফের ফল প্রকাশ করবে।

গত সোমবার শিক্ষামন্ত্রীর সঙ্গে ভার্চুয়াল বৈঠকের পর পরই সোমবার সন্ধ্যে বেলাতেই উপাচার্য রঞ্জন চক্রবর্তী আধিকারিকদের নিয়ে বৈঠক করেন। সেই বৈঠকেই কিভাবে পরীক্ষা নেওয়া হবে তা নিয়ে একপ্রস্থ সিদ্ধান্ত নেয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। মূলত প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে যাতে পরীক্ষা নেওয়া যায় সেই বিষয়ে জোর দেওয়ার কথা বলা হয় ওই বৈঠকে। আর তারপর বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে "অনলাইন ওপেন বুক এক্সামিনেশনস" অর্থাৎ এই পদ্ধতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের মূল্যায়ন করবে। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গিয়েছে কোন কোন দিন কোন কোন বিষয়ের পরীক্ষা নেওয়া হবে সেই বিষয়ে বিস্তারিত গাইড লাইন বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে দেওয়া হবে। শুধু তাই নয় কোন ইমেইল আইডিতে উত্তরপত্র আপলোড করে পাঠাবেন ছাত্রছাত্রীরা, সেই বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে। তার সঙ্গে প্রশ্নপত্র পাওয়ার কতক্ষণের মধ্যে ছাত্র-ছাত্রীদের উত্তরপত্র দিতে হবে সে বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের তরফে জারি করা গাইডলাইনেই বলা  থাকবে ।

 সোমরাজ বন্দ্যোপাধ্যায়

Published by: Elina Datta
First published: September 16, 2020, 1:30 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर