শুধু ফোনের অপেক্ষা, কোভিড আক্রান্তদের পরিষেবা দিতে কালনায় প্রস্তুত টোটো অ্যাম্বুলেন্স

করোনা আক্রান্ত শহরবাসীর সহায়তার জন্য কাজ করছে পাঁচটি টোটো অ্যাম্বুলেন্স

করোনা আক্রান্ত শহরবাসীর সহায়তার জন্য কাজ করছে পাঁচটি টোটো অ্যাম্বুলেন্স

  • Share this:

#বর্ধমান: কালনায় শুরু হলো টোটো অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা। করোনা আক্রান্ত শহরবাসীর সহায়তার জন্য কাজ করছে পাঁচটি টোটো অ্যাম্বুলেন্স। করোনায় আক্রান্ত বা করোনার উপসর্গ রয়েছে এমন বাসিন্দারা ফোন করলেই বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছে এই টোটোগুলি। চিকিৎসা করিয়ে সংশ্লিষ্ট পুরুষ বা মহিলাকে বাড়ি পৌঁছে দিচ্ছে সেগুলি। পূর্ব বর্ধমানের কালনায় যুব তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে এই টোটো অ্যাম্বুলেন্সের পরিষেবা দেওয়া শুরু হয়েছে।

কি এই টোটো অ্যাম্বুলেন্স? এতে কি বিশেষ কোনও চিকিৎসা পরিকাঠামো রয়েছে? এক কথায় বলতে গেলে, তেমন কিছুই নেই। অক্সিজেন সাপোর্ট বা প্রাথমিক চিকিৎসার পরিকাঠামো নেই এই টোটো অ্যাম্বুলেন্সে। তবে তা এই লকডাউন পরিস্থিতিতে বিশেষ কার্যকর হয়ে উঠেছে। সুযোগ বুঝে আম্বুলান্স চালকরা সামান্য দূরত্ব যেতে বহু টাকা ভাড়া হাঁকছে বলে অনেক সময় অভিযোগ উঠছে। আবার শ্বাসকষ্ট দেখা দিলে সেই সময় অ্যাম্বুলেন্স পাওয়া কঠিন হয়ে দাঁড়াচ্ছে অনেকের কাছেই। অনেকে আবার করোনা আক্রান্ত রোগী নিয়ে যেতে প্রত্যাখ্যান করছে। এই টোটোগুলি সেই সব অসহায় রোগী বা তাদের আত্মীয় পরিজনদের কাছে সহজলভ্য হয়ে উঠবে বলেই মনে মনে করছেন বাসিন্দারা।

রবিবার এই টোটো অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু হল কালনায়। যুব তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে কালনা শহরের জন্য পাঁচটি টোটো অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবা চালু হয়েছে।সেই টোটো অ্যাম্বুলেন্স পরিষেবার উদ্বোধন করেন কালনার বিধায়ক দেবপ্রসাদ বাগ। কোভিড আক্রান্তদের দ্রুত চিকিৎসার আওতায় আনতেই এই উদ্যোগ।এখানে দুটি ফোন নম্বর রয়েছে। সেই নম্বরে ফোন করলেই অসুস্থ রোগীদের বাড়ির সামনে টোটো পৌঁছে যাচ্ছে। রোগীকে পৌঁছে দিচ্ছে নির্দিষ্ট গন্তব্যে।

বিধায়ক দেবপ্রসাদ বাগ বলেন, অনেকেরই অ্যাম্বুলেন্স ভাড়া করে স্বাস্থ্য কেন্দ্র বা হাসপাতালে যাওয়ার সামর্থ্য নাই। আবার অনেকে জ্বর সর্দি সহ করোনার উপসর্গ থাকায় নমুনা পরীক্ষা করাতে যেতে চাইছেন কিন্তু যানবাহনের অভাবে যেতে পারছেন না। তাদের কাছে এই টোটো অ্যাম্বুলেন্স বিশেষ সহায়ক হয়ে উঠবে বলে আমরা আশা করছি।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: