corona virus btn
corona virus btn
Loading

মুখ ঢাকুন মাস্কে, ছন্দে ফেরা শহরে নতুন করে প্রচার শুরু পুলিশের

মুখ ঢাকুন মাস্কে, ছন্দে ফেরা শহরে নতুন করে প্রচার শুরু পুলিশের

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফের নতুন করে পথে নামল পুলিশ। মঙ্গলবার বর্ধমানের প্রাণকেন্দ্র কার্জন গেট চত্বরে তাঁরা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিলেন পথে বেরোনো বাসিন্দাদের।

  • Share this:

#বর্ধমান: আপাতত বঙ্গ জীবনের অঙ্গ করোনা। তাকে সঙ্গে নিয়েই এখনও চলতে হবে মাসের পর মাস। তাই দোকান বাজার অফিস কাছারি সবই খোলা থাকবে। প্রয়োজন মাফিক বেরোতে হবে ঘর থেকেও। তবে করোনার সংক্রমণ যাতে শরীরের মধ্যে না আসে তার জন্য সতর্কও থাকতে হবে। রাস্তার সঙ্গী হয়ে সে যাতে আপনার ঘরে প্রবেশ না করতে পারে সে ব্যাপারে সচেতন থাকতে হবে। সকলকেই সেই সচেতনতার কথা মনে করিয়ে দিতে মঙ্গলবার থেকে বর্ধমানের প্রচার শুরু করল পুলিশ। করোনাকে ডোন্ট কেয়ার করছেন যাঁরা, তাঁদের মুখে মাস্ক লাগিয়ে দিলেন পুলিশকর্মী অফিসাররা।

লকডাউন পর্বকে পেছনে ফেলে এখন আবার স্বাভাবিক ছন্দে বর্ধমান শহর। ব্যাপকভাবে করোনা আক্রান্ত ৫ রাজ্য সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিদিনই ঢুকছে শ্রমিক স্পেশাল ট্রেন। হাজারে হাজারে শ্রমিক যাচ্ছেন কোয়ারেন্টিন সেন্টারে। তাদের মধ্যে উপসর্গ রয়েছে যাদের তাদের নমুনা পরীক্ষা হচ্ছে। তারই মধ্যে খুলে গেছে দোকানপাট শপিংমল রেস্তরাঁ। আবার আগের মতই সেজেগুজে মার্কেটিংয়ে বেরুচ্ছেন অনেকেই। করোনা নামক মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার উদ্বেগ উৎকণ্ঠা আতঙ্ককে দূরে সরিয়ে এখন পুরুষ মহিলাদের অনেকেই নিশ্চিন্তে সান্ধ্য ভ্রমণে বেরুচ্ছেন। অনেকে সেরে নিচ্ছেন আড়াই মাসের বকেয়া কেনাকাটি।

সব মিলিয়ে ভয় কেটে গিয়েছে। মাস্ক ব্যবহার করছেন ঠিকই, তবে অনেকেই তা করছেন বাকিরা করছেন বলে। অনেকে আবার কান থেকে গলায় ঝুলিয়ে রাখছেন মাস্ক। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার সাবধানবাণীকে বিশেষ পাত্তা লকডাউনের সময়ই দেয়নি বর্ধমান। এখনতো সব মিলেমিশে একাকার। আর এসব দেখেই চিন্তিত বিশেষজ্ঞরা।

তাই করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ঠেকাতে ফের নতুন করে পথে নামল পুলিশ। মঙ্গলবার বর্ধমানের প্রাণকেন্দ্র  কার্জন গেট চত্বরে তাঁরা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলার পরামর্শ দিলেন পথে বেরোনো বাসিন্দাদের। মাস্ক পরার অভ্যেস ভুলতে চাইছেন অনেকেই। তাঁদের মুখে মাস্ক বেঁধে দিয়ে বেঁধে রাখাটাই অভ্যেস করারও পরামর্শ দিলেন তাঁরা।

Published by: Dolon Chattopadhyay
First published: June 9, 2020, 5:43 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर