Cyclone Yaas: বুধবার ইয়াসের সঙ্গে রয়েছে ভরা কোটালও, দিঘা-মন্দারমণিতে সতর্ক প্রশাসন

ইযাস মোকাবিলায় সতর্ক প্রশাসন ।

ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের একাধিক জায়গায় পৌছে গিয়েছে এন ডি আর এফ ও এস ডি আর এফ আধিকারিকরা।

  • Share this:

ABIR GHOSHAL

#দিঘা: ঘূর্ণিঝড় ইয়াস আছড়ে পড়তে পারে পূর্ব মেদিনীপুরের সমুদ্র উপকূলে। ফলে সমুদ্র তীরবর্তী গ্রামগুলিতে যশ মোকাবিলায় চলছে জোরদার নজরদারি। দিঘা থেকে খেজুরি অবধি প্রায় ৭১ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে আছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার সমুদ্র তীর। এর মধ্যে রয়েছে উদয়পুর, নিউ দীঘা, ওল্ড দিঘা, তাজপুর, শঙ্করপুর, মন্দারমণি, বগুরান জলপাই, রামনগর ও কাঁথি। এর পরে রয়েছে জেলিংহ্যাম। এই ৭১ কিলোমিটার অংশ জুড়ে রয়েছে একাধিক গ্রাম। ফলে ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের মোকাবিলায় এই সব গ্রামের বাসিন্দাদের সরানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে।

ইয়াসের জেরে ক্ষতির আশঙ্কা রয়েছে রামনগর, কাঁথি, খেজুরির মোট ৬টি ব্লকের। এর মধ্যে রামনগর ১ ব্লকের শঙ্করপুর থেকে তাজপুর অবধি জামড়া বাঁধ মেরামতির কাজ চলছে জোর কদমে। পূর্ব মেদিনীপুর জেলা প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে, বাঁধ এলাকায় ব্ল্যাক স্টোন ফেলে চলছে কাজ৷ সেচ দফতরকে বলা হয়েছে ঠিকাদার মারফত আরও কর্মী পাঠাতে। এর পাশাপাশি এই সব এলাকার গ্রামবাসীদের দ্রুত সরানোর কাজ শুরু করা হয়েছে। ইতিমধ্যেই পূর্ব মেদিনীপুরের একাধিক জায়গায় পৌছে গিয়েছে এন ডি আর এফ ও এস ডি আর এফ আধিকারিকরা।

জেলা প্রশাসন সূত্রে খোঁজ নেওয়া হয়েছে ব্লকে বিদ্যুতের খুঁটি কতগুলি আছে। কোথায় কোথায় গাছ ভেঙে পড়তে পারে, কোথায় কোথায় বাঁধ ভেঙে সমুদ্রের জল গ্রামে ঢুকতে পারে। এ ছাড়া কোথায় কত কাঁচা বাড়ি আছে, কত বাসিন্দা সেখানে আছেন। যাবতীয় তথ্য রাখা হয়েছে। এর পাশাপাশি এ বার ত্রাণ শিবিরের সংখ্যা বাড়ানো হয়েছে। কোভিড বিধি মেনে রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে সেখানে। যাতে ভিড়ে গাদাগাদি করে না থাকতে হয় সে দিকে নজর দিতে বলা হয়েছে।  এ ছাড়া দিঘা, মন্দারমণি, তাজপুর সমুদ্র তীরে যাতে অযথা ভীড় না জমে তা নিয়ে ক্রমাগত চলছে মাইকিং। এর পাশাপাশি এ দিন সকাল থেকেই চলছে ব্যবসায়ীদের তরফ থেকে জিনিস পত্র সরানোর কাজ। যে হেতু বুধবার ভরা কোটাল আছে তাই সমুদ্রের জল ছাপিয়ে দোকানে ঢুকে জিনিষ নষ্ট হতে পারে। সেই আশঙ্কায় তাঁরা মালপত্র সরানোর কাজ শুরু করে দিয়েছে।

Published by:Simli Raha
First published: