Home /News /south-bengal /
Higher Secondary Exmination 2022: মনের জোর একেই বলে! অপারেশনের পর ব্যথা নিয়েই পরীক্ষা দিল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

Higher Secondary Exmination 2022: মনের জোর একেই বলে! অপারেশনের পর ব্যথা নিয়েই পরীক্ষা দিল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী

Higher Secondary Exmination 2022: নার্সি হোমের কেবিনে পরীক্ষা দিল উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী।

  • Share this:

#সিউড়ি: নার্সিং হোমের কেবিনে বসেই উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার নবম দিনে পরীক্ষা দিল পরীক্ষার্থী চাঁদনী খাতুন । অনেকদিন ধরেই শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিল সিউড়ি থানার অন্তর্গত মনপুর গ্রামের চাঁদনী খাতুন।

ডাক্তার জানিয়েছিলেন, তার অ্যাপেন্ডিস-এর অস্ত্রোপচার করতে হবে। তবে সিউড়ির কুবিলপুর হাইস্কুলের ছাত্রী সে। এই বছরেই তার উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা। তার মাঝেই তার শারীরিক অসুস্থতা। সেই নিয়েই পড়াশোনা , স্কুল চালাচ্ছিল সে। তবে শরীর আর সায় দিচ্ছিল না।

আরও পড়ুন- ভোর থেকে সমুদ্রে ভাসছেন ৩ জন, স্পিডবোটে পুলিশ! ফ্রেজারগঞ্জের কাছে মারাত্মক ঘটনা

২০২২ এর এপ্রিলের ২ তারিখ থেকে শুরু হয়েছে উচ্চমাধ্যমিক। প্রথম কটা পরীক্ষা নিজের স্কুলে গিয়ে দিলেও হঠাৎই অসুস্থ হয়ে পরে চাঁদনী। তারপরই তাকে নিয়ে যাওয়া হয় ডাক্তারের কাছে। ডাক্তার জানান, কয়েকদিনের মধ্যেই করতে হবে অস্ত্রোপচার।

ডাক্তারের কথা মতো চাঁদনীকে ভর্তি করা হয় সিউড়ির স্বস্তিক নার্সিং হোমে। তার পর হয় অস্ত্রোপচার । অস্ত্রোপচারের পর এখন সুস্থ চাঁদনী। তবে ছুটি মেলেনি নার্সিং হোম থেকে। কিন্তু সে যে উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। তাই এই ঘটনা স্কুল কর্তৃপক্ষকে জানানো হলে নার্সিং হোমের কেবিনেই চাঁদনীর পরীক্ষার ব্যবস্থা করেন তারা। সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা দেয় চাঁদনী।

অপারেশনের পর চাঁদনী শনিবারের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা দেয় নার্সিং হোমের কেবিনে বসেই। নার্সিং হোমে বসে পরীক্ষা দিতে পারায় খুশি চাঁদনীর সাথে সাথে তার পরিবারের লোকেরাও। মেয়ের একটা বছর নষ্ট না হওয়ায় খুশি তাঁরা। সেইসঙ্গে স্কুলের স্যরদেরও ধন্যবাদ জানিয়েছে চাঁদনীর পরিবারের সদস্যরা।

আরও পড়ুন- গতকালের শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি, ফের কি আগুন-দাম সবজির?

চাঁদনী খাতুন বলে , "ভেবেছিলাম অপারেশনের পরই ছুটি দিয়ে দেবে আমায়। আমি আবার স্কুলে গিয়ে দিতে পারব পরীক্ষা। কিন্তু ডাক্তার বলেন, অপারেশন হলেও এখনো পুরোপুরি সুস্থ নই আমি। তাই পরীক্ষার আগে ছুটি পাইনি নার্সিং হোম থেকে। তারপরই এই গোটা বিষয় জানানো হয় আমার স্কুলে। স্যাররা শনিবারের পরীক্ষার ব্যবস্থা নার্সিং হোমে আমার কেবিনেই করে দেন।যদি পরীক্ষাটা না দিতে পারতাম তবে আমার এক বছর নষ্ট হত ।"

Published by:Suman Majumder
First published:

Tags: Higher Secondary 2022, Higher Secondary Examinations

পরবর্তী খবর