corona virus btn
corona virus btn
Loading

রাজ্যপালকে ঘিরে ডোমকলে বিক্ষোভ, কালো পতাকা-গো ব্যাক স্লোগান

রাজ্যপালকে ঘিরে ডোমকলে বিক্ষোভ, কালো পতাকা-গো ব্যাক স্লোগান
ডোমকলে রাজ্যপালকে ঘিরে বিক্ষোভ

বেশ কয়েকজন ভিড় করে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে রাজ্যপালকে কালো পতাকা দেখায়৷ সঙ্গে গো ব্যাক স্লোগান৷ ডোমকলের হাসপাতাল মোড় থেকে শুরু হয় বিক্ষোভ৷

  • Share this:

#ডোমকল: কলেজের অনুষ্ঠানে গিয়ে মুর্শিদাবাদের ডোমকলে বিক্ষোভের মুখে পড়লেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়৷ বুধবার ডোমকল গার্স কলেজের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণে গিয়েছিলেন রাজ্যপাল৷ বেশ কয়েকজন ভিড় করে রাস্তার ধারে দাঁড়িয়ে রাজ্যপালকে কালো পতাকা দেখায়৷ সঙ্গে গো ব্যাক স্লোগান৷ ডোমকলের হাসপাতাল মোড় থেকে শুরু হয় বিক্ষোভ৷

এ দিন সকালে রাজ্যপাল ডোমকলে যান৷ রাজ্যপাল যে রাস্তা দিয়ে ডোমকল গার্লস কলেজে ঢুকবেন, সেই রাস্তায় শুরু হয় বিক্ষোভ৷ কালো পতাকা নিয়ে গো ব্যাক স্লোগান দিতে থাকে বিক্ষোভকারীরা৷ তাঁরা নিজেদের তৃণমূল সমর্থক বলেই দাবি করেন৷ পুলিশের সামনেই চলে বিক্ষোভ৷ বিক্ষুব্ধদের দেখে হেসে হাত নাড়েন তিনি৷

জগদীপ ধনখড় যখন থেকে রাজ্যপালের দায়িত্ব নিয়ে রাজ্যে এসেছেন, কার্যত তখন থেকেই রাজ্য সরকারের সঙ্গে বারবার সংঘাত বেঁধেছে তাঁর৷ রাজ্যপালের ভূমিকা নিয়ে সংসদেও সরব হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ রাজ্যসভায় তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ শুখেন্দুশেখর রায় অভিযোগ করেন, 'বাংলার রাজ্যপাল রাজনীতি করছেন৷ সমান্তরাল প্রশাসন চালাচ্ছেন৷ উনি যদি রাজনীতিই করবেন মনে করেন, তা হলে রাজনীতিপাল হোন৷' দুর্গাপুজো কার্নিভালে ডেকে নিয়ে গিয়ে তাঁকে অপমানিত করা হয়েছে বলে অভিযোগ তুলেছিলেন রাজ্যপাল। এই ঘটনায় তাঁর মর্যাদায় আঘাত লেগেছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। ১৯ সেপ্টেম্বর যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিক্ষোভের মুখে পড়া কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়কে উদ্ধার করতে যান রাজ্যপাল স্বয়ং৷ তখন থেকেই বিরোধিতার সূত্রপাত। তাঁর বিরুদ্ধে সাংবিধানিক সীমানা ছাড়িয়ে যাওয়ার পাল্টা অভিযোগও আনা হয়। সম্প্রতি সিঙ্গুর ও নন্দীগ্রামে রাজ্যপালের সফরের সিদ্ধান্ত ঘিরেও সংঘাত বেঁধেছে রাজ্যসরকারের সঙ্গে৷

রাজ্যসভায় তৃণমূলের বক্তব্যের বিরুদ্ধে সোচ্চারের প্রতিক্রিয়ায় রাজ্যপাল ধনখড় বলেন, 'রাজ্যপাল কেন্দ্রের এজেন্ট৷ নির্বাচিত সাংসদ কিছু বলতেই পারেন৷ রাজ্যপালকে অনুমতি দিয়েছে সংবিধান৷ সংবিধানের অধিকারে ভয় না-পেয়ে কাজ করব৷ রাজ্যের সেবায় সব জায়গায় যেতে হবে৷ কারও অনুমতির প্রয়োজন নেই৷ সমান্তরাল প্রশাসনের অভিযোগ ভিত্তিহীন৷ ২০ অক্টোবর মুর্শিদাবাদে যাবো, কপ্টার চেয়েছি৷ রাজ্য কপ্টার না-দিলে সড়কপথে যাবো৷ সিঙ্গুর, নন্দীগ্রামে যাবো, অনুমতির প্রয়োজন নেই৷ আমি গেলে মানুষের ভালোই হবে৷'

First published: November 20, 2019, 3:39 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर