Home /News /south-bengal /
Ganga Arati : বারাণসীর মতো গঙ্গারতি রোজ এ বার দেখা যাবে রাজ্যের এই জেলাতেও

Ganga Arati : বারাণসীর মতো গঙ্গারতি রোজ এ বার দেখা যাবে রাজ্যের এই জেলাতেও

Ganga Arati

Ganga Arati

Ganga Arati : মানুষের আবেগকে প্রাধান্য দিয়ে এই আরতির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

  • Share this:

    জিয়াগঞ্জ:  এ বার থেকে বহু ব্যয় করে বা বহু ক্রোশ দূরে বেনারস কিংবা হরিদ্বারে গঙ্গারতি দেখতে যেতে হবে না। পর্যটকদের জন্য মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জেই শুরু হল গঙ্গা আরতি। দশাশ্বমেধে দাঁড়িয়ে নয়, এখানকার সদরঘাটে বসেই দৃষ্টিনন্দন গঙ্গা আরতি দেখবেন সাধারণ মানুষ। আর এই কৃতিত্বের দাবিদার হল, জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভা। মুর্শিদাবাদ জেলার ওপর দিয়ে বয়ে গিয়েছে ভাগীরথী নদী। জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভার উদ্যোগে জিয়াগঞ্জে সেই ভাগীরথী অর্থাৎ গঙ্গা তীরের সদরঘাটে, বেনারস ও হরিদ্বারের আদলে সন্ধ্যা হলেই দেখা যাবে আরতি।

    জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পৌরসভার উদ্যোগে এবার থেকে গঙ্গার ধারে বসে সন্ধ্যাটা বেশ ভালভাবে উপভোগ করতে পারবেন সাধারণ মানুষ। জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভার উদ্যোগে ও জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ ব্রাহ্মণ কল্যাণ সমিতির সহযোগিতায় শুরু হওয়া এই গঙ্গা আরতি দেখার জন্য ভিড় জমাচ্ছেন মানুষ। জিয়াগঞ্জ আজিমগঞ্জ পুরসভা দখল করেছে তৃণমূল। শুধু রাস্তাঘাটে আলো লাগিয়ে নাগরিক পরিষেবা বা সৌন্দর্যায়নই নয়, গঙ্গা আরতি করে আবেগ তৈরি করা হয়েছে মানুষের মনে।

    আরও পড়ুন : মার্বেলের মেঝে, আলোর কারুকার্য! তৈরি হচ্ছে ভুবন বাদ্যকরের নতুন বাড়ি

    একসঙ্গে বসে মানুষ যাতে এই সন্ধ্যারতি দেখতে পান তার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। পাশাপাশি, মুর্শিদাবাদ জেলাতে বাইরে থেকে আসা পর্যটকদের কথা মাথায় রেখেও এই গঙ্গা আরতির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন পুরসভার চেয়ারম্যান। মানুষের আবেগকে প্রাধান্য দিয়ে এই আরতির ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

    আরও পড়ুন : সামান্য কিছু টিপস মানলেই এসি মেশিন দেদার চালালেও বিদ্যুতের বিল বাড়বে না

    আরও পড়ুন : জন্মের ১০০ দিন পর হাসপাতাল থেকে বাড়িতে নিক-প্রিয়ঙ্কার মেয়ে, দেখুন প্রথম ছবি

    পাশাপাশি গঙ্গা আরতি হলে এলাকার আর্থিক পরিকাঠামোর উন্নয়ন ঘটবে এবং ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরা উপকৃত হবেন বলে জানিয়েছেন তাঁরা। মুর্শিদাবাদ জেলার ঐতিহাসিক নিদর্শনগুলি দেখার পর অনেক পর্যটকদের মনে হত সন্ধ্যার পর কী করবেন। সেই ভাবনাও এই উদ্যোগের পেছনে গুরুত্ব পেয়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। এখন থেকেই জিয়াগঞ্জ সদর ঘাটে গঙ্গা আরতি দেখে মন ভরাবেন বলে আশা পর্যটন ব্যবসার সাথে যুক্ত সকলের। অন্যদিকে, জিয়াগঞ্জ-আজিমগঞ্জ পুরসভার পক্ষ থেকে সদর ঘাটের সৌন্দর্যায়ন করে ঘাট সাজানো হয়েছে পর্যটকদের কথা মাথায় রেখে।

    ( প্রতিবেদন : কৌশিক অধিকারী)

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Murshidabad, Varanasi

    পরবর্তী খবর