• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Purulia News: '‘আমি বড় কষ্টে আছি, আমাকে একটু দয়া কর’’ বৃদ্ধার কান্নায় সাড়া মিলল, এগিয়ে এলেন ‘এই’ মানুষটি

Purulia News: '‘আমি বড় কষ্টে আছি, আমাকে একটু দয়া কর’’ বৃদ্ধার কান্নায় সাড়া মিলল, এগিয়ে এলেন ‘এই’ মানুষটি

District president of Purulia streched his helping hand to repair old woman's broken house

District president of Purulia streched his helping hand to repair old woman's broken house

Purulia News: NEWS 18 বাংলার খবর দেখেই বৃদ্ধার (Old Woman) পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন তিনি।

  • Share this:

    #পুরুলিয়া: '‘আমি বড় কষ্টে আছি, আমাকে একটু দয়া কর’’  অসহায় বৃদ্ধার ডাকে সাড়া দিলেন জেলা সভাধিপতি সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। NEWS 18 বাংলার খবর দেখেই বৃদ্ধার (Old Woman) পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিলেন তিনি। সরকারি সাহায্যে দেরি হতে পারে, তাই ব্যক্তিগত উদ্যোগেই অসহায় বৃদ্ধার ভাঙা (Broken House) ঘরটুকু সংস্কার করে দেবেন তিনি বলে জানালেন। পুরুলিয়ার (Purulia) বলরামপুরের রাঙা গ্রামের বৃদ্ধার আকুতি আবেদন। জীবনের শেষপ্রান্তে এসে আজ একা।

    পুত্র বা কন্যা কেউ পাশে নেই আজ। একমাত্র সম্বল  জরাজীর্ণ বাসস্থানটি  (Broken House) সংস্কার করে দেয় যেন পঞ্চায়েত। কয়েক বছর আগে স্বামী সঙ্গিবিহীণ হয়েছেন, দুই পুত্রের মধ্যে ছোট ছেলেও মারা গিয়েছে। বড় ছেলে চাকরি থেকে অবসর নিয়ে আলাদা সংসার করছেন,একমাত্র মেয়েরও বিয়ে হয়ে যাওয়ার পর শ্বশুর বাড়িতে চলে গেছে। তাই এখন এভাবেই একাকীত্বে দিন কাটছে বলরামপুর রাঙাডি গ্রামের বৃদ্ধা ঝুরুবালা গরাইয়ের।

    District president of Purulia streched his helping hand to repair old woman's broken house District president of Purulia streched his helping hand to repair old woman's broken house

    বয়স আশি বছর। কানে ভালো করে শুনতেও পাননা। চোখে দেখতে পেলেও তা পরিষ্কার নয়।একা একটি ভাঙা চালাবাড়িতে কাটছে তার জীবন। একটি মাটির উনুন দিয়ে একবারের মতো ভাত রান্না করা হয়। না হলে পাড়া প্রতিবেশীর সাহায্যে জোটে অন্ন।

    আরও পড়ুন - Ind vs NZ: ভারতীয় ক্রিকেটে বিরাট ‘আমল’ বদল, নতুন রোহিত সতীর্থদের থেকে ‘এটা’ চাইলেন

    আরও পড়ুন - Tridha Choudhury: সাহসী ‘বাঙালি’ সুন্দরী কাঁপাচ্ছেন মুম্বই, দেখে নিন ত্রিধার Bold ছবি

    বড় ছেলে অদূরেই আলাদা বাড়িতে থাকেন। মেয়েও আর মায়ের কাছে আসে না। তাই অশ্রু ভেজা গলায় বৃদ্ধার আকুতি আমার বাড়িটা করে দেওয়া হক। কারণ সামান্য বৃষ্টি হলেই মাথায় কুলো ঢাকা নিয়ে রাত কাটাতে হয়। এদিকে নিউজ ১৮ বাংলার মাধ্যমে খবর পেয়ে বৃদ্ধার পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দেন পুরুলিয়া জেলা সভাধিপতি সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায়। সরকারি সাহায্যে দেরি হতে পারে তাই ব্যক্তিগত উদ্যোগেই বৃদ্ধার (Old Woman) ভাঙা ঘর (Broken House) সংস্কার করে দেবেন তিনি বলে জানালেন। দ্রুত বৃদ্ধার বাড়িও যাবেন তিনি। বাকি কি সমস্যার মধ্যে রয়েছেন বৃদ্ধার থেকে জানবেন তিনি।

    Indrajit Mandal

    Published by:Debalina Datta
    First published: