• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • Viral News| East Bardhaman|| সাংঘাতিক! সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন দেখে অপরাধের ব্লু প্রিন্ট! অপারেশনে ২ মহিলা...

Viral News| East Bardhaman|| সাংঘাতিক! সংবাদপত্রের বিজ্ঞাপন দেখে অপরাধের ব্লু প্রিন্ট! অপারেশনে ২ মহিলা...

মেমারির সেই বাড়ি।

মেমারির সেই বাড়ি।

2 lady gathered idea from newspaper makes crime blue print: দৈনিক পত্রিকায় (Newspaper) পরিচারিকা চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন বৃদ্ধ দম্পতি। তা দেখে অপরাধের ব্লু প্রিন্ট (Crime Blue print) তৈরি করে ফেলল দুষ্কৃতীরা!

  • Share this:

#মেমারি: দৈনিক পত্রিকায় (Newspaper) পরিচারিকা চেয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছিলেন বৃদ্ধ দম্পতি। তা দেখে অপরাধের ব্লু প্রিন্ট (Crime Blue print) তৈরি করে ফেলল দুষ্কৃতীরা! পরিচারিকা সেজে দুই মহিলা এসে দম্পতিকে বেহুঁশ করে সব লুটে (Crime) নিয়ে চম্পট দিল। তবে এক মহিলাকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় পূর্ব বর্ধমান জেলা জুড়ে ব্যাপক চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে। খবরের কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে কাজের লোক খোঁজার ঝক্কির কথা ভেবে চোখ কপালে উঠেছে অনেকেরই।

বয়সের ভারে সব কাজ আর করে উঠতে পারেন না। তাই নিজেদের দেখভাল করার জন্য কাগজে বিজ্ঞাপন দিয়ে পরিচারিকা নিয়োগ করতে চেয়েছিলেন পূর্ব বর্ধমানের মেমারী (East Bardhaman Memari) থানার জীবন ঠাকুর এলাকার বাসিন্দা নিমাই ভট্টাচার্য এবং তাঁর স্ত্রী সোমা ঘোষ ভট্টাচার্য। সেই বিজ্ঞাপনের সূত্র ধরে কয়েকদিন পর মিলেছিল মনের মতো পরিচারিকা। কিন্তু তারা যে এভাবে পথে বসাবে তা ছিল কল্পনারও বাইরে। ঠিক কী করেছিল তারা?

আরও পড়ুন: স্বামীর সঙ্গে ‘বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কের’ অভিযোগে এক মহিলাকে মারধর করে কান কেটে দিলেন তরুণী!

গত ৭ নভেম্বর দম্পতির দেওয়া সেই বিজ্ঞাপন (Advertisement) খবরের কাগজে বের হয়। তা দেখে পাঁচ দিন পর ১২ নভেম্বর পরিচারিকার কাজ করতে হাজির হন ৭০ ও ৪৮ বছর বয়সী দুই মহিলা। এরপর তাদের বিশ্বাসের সুযোগ নিয়ে রাত্রিকালীন খাবারের সঙ্গে মাদক মিশিয়ে দিয়ে দুই বৃদ্ধ বৃদ্ধাকে অচৈতন্য করে লক্ষাধিক টাকার মূল্যবান সামগ্রী লুঠ করে নিয়ে পালায় ওই দুই মহিলা।

আরও পড়ুন: ডোনার কার্ডে মিলল না রক্ত! 'বিহিত করুন', মমতার কাছে গেল চিঠি

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে,১২ নভেম্বর ওই দুই মহিলা আসার পর রাত্রি প্রায় ৮টা নাগাদ শিউলিপাতার বড়ির সঙ্গে তাঁদের কিছু খাওয়ানো হয়। এরপর তাঁরা অচৈতন্য হয়ে পড়েন। ১৩ নভেম্বর সকালে তাদের চিকিৎসার জন্য বেসরকারি নার্সিংহোমে ভর্তি করা হয়। ১৯ তারিখ নার্সিংহোম থেকে বাড়ি ফিরে নিমাইবাবু দেখেন স্ত্রীর গহনা সহ নগদ লক্ষাধিক টাকার সামগ্রী লোপাট হয়ে গেছে। এরপরই তিনি মেমারি থানায় অভিযোগ দায়ের করেন। মেমারি থানার পুলিশ তদন্তে নেমে বুধবার নদীয়ার কল্যাণী থেকে এক মহিলাকে গ্রেফতার করে। ধৃতের নাম নীলু দাস বৈরাগ্য। এদিন তাঁকে বর্ধমান আদালতে পেশ করা হয়। একইসঙ্গে  দ্বিতীয় মহিলার খোঁজেও পুলিশ তল্লাশি শুরু করেছে।

তদন্তকারী পুলিশ অফিসাররা জানিয়েছেন, তদন্ত নেমে ওই দম্পতির কাছ থেকে মহিলাদের নাম ঠিকানা জানার চেষ্টা করা হয়। তাদের গড়ণ, পোশাক আশাক, কথাবার্তার ধরণ শুনে তারা কোথা থেকে এসেছিল তার অনুসন্ধান চলে। শেষমেষ এই কাজে সাফল্য এসেছে। এক মহিলাকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করা সম্ভব হয়েছে। তাকে জেরা করে অন্য জনের হদিশ পাওয়ার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তারা শুধুমাত্র দু জনের মিলে এই অপরাধের ফন্দি এটেঁছিল নাকি অন্য কেউ বিজ্ঞাপন দেখে তাদের এই কাজে নিযুক্ত করেছিল তা জানারও চেষ্টা চালানো হচ্ছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Shubhagata Dey
First published: