corona virus btn
corona virus btn
Loading

ইদের বাজারে আকাশছোঁয়া মুরগির মাংসের দাম, মাথায় হাত ক্রেতাদের

ইদের বাজারে আকাশছোঁয়া মুরগির মাংসের দাম, মাথায় হাত ক্রেতাদের
বিক্রেতাদের দাবি, ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে দুই ধরনের মাংসের জোগানেই ব্যাপক প্রভাব পড়েছে৷ যার জেরে একধাক্কায় এতটা দাম বেড়ে গিয়েছে৷

সোমবার মুরগির মাংসের দাম উঠল কেজি প্রতি ২৬০ টাকা থেকে ২৭০ টাকা পর্যন্ত

  • Share this:

#বর্ধমান: ইদে আকাশছোঁয়া দাম মুরগির মাংসের। গত কয়েক দিনে দফায় দফায় তার দাম বেড়েছে। সোমবার ইদের দিনে মুরগির মাংসের দাম উঠল কেজি প্রতি ২৬০ টাকা থেকে ২৭০ টাকা পর্যন্ত। গোটা মুরগির দাম কেজি প্রতি কোথাও ১২০ টাকা, কোথাও ১৩০ টাকা। লকডাউনের আগের লোকসান পুষিয়ে নিতেই এই দাম বাড়ানো হয়েছে বলে মনে করছেন অনেকেই। এক ধাক্কায় মুরগির মাংসের দাম অনেকটাই বেড়ে যাওয়ায় মাথায় হাত ক্রেতাদের।

মুরগির মাংস থেকে করোনা ছড়ায়-এই গুজবে লকডাউনের আগে মুরগির দাম তলানিতে গিয়ে ঠেকেছিল। কাটা মুরগির দাম কেজি প্রতি ১৮০ টাকা থেকে এক ধাক্কায় নেমে আসে ৯০ টাকা কেজিতে। রীতিমতো মাইক হাতে সেই দাম হাঁকা হলেও ক্রেতারা উলটো মুখে হেঁটেছিলেন। অনেকে মুরগির দোকানের ধার দিয়ে যাননি। তারও পরে ১০০ টাকায় বড় বড় ৪টি মুরগি পর্যন্ত বিক্রি করতে হয়েছিল খামার মালিকদের।

তখন হোটেল রেস্টুরেন্টে মুরগির মাংসের খাবারের চাহিদা তলানিতে গিয়ে ঠেকেছিল। অনেক খামার মালিক মুরগির খাবার কেনার ঝক্কি এড়াতে মুরগির ছানা মাঠের মাঝে ফেলে দিয়ে এসেছিলেন। কিন্তু লকডাউন শুরু হওয়ার পর থেকেই মুরগির মাংসের চাহিদা বেড়েছে। এখন কিছু কিছু হোটেল রেস্টুরেন্ট থেকে রান্না করা খাবার অনলাইনে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাচ্ছে। চাহিদা বাড়তেই লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে মুরগির মাংসের দাম। সেই দামই গত দু-তিন দিনে এক ধাক্কায় ৪০ টাকা বেড়ে এখন কাটা মুরগির দাম ২৫০ টাকা পার করে দিয়েছে।

ইদের সময় মুরগির মাংসের চাহিদা বাড়ে। সে কথা মাথায় রেখেই তার দুদিন আগে থেকেই মুরগির উৎপাদকরা দাম বাড়ানো শুরু করেছে বলেই মনে করছেন ক্রেতাদের একটা বড় অংশই। খামার মালিকরা বলছেন, গুজবের কারণে অনেকেই খামারে মুরগি তোলেননি। সব স্বাভাবিক হওয়ার অপেক্ষায় ছিলেন অনেকেই। এদিকে মুরগির মাংসের চাহিদা বাড়ছে দিন দিন। চাহিদার তুলনায় যোগান অনেক কম থাকার জন্যই এই দাম বেড়েছে বলে জানিয়েছেন তাঁরা। এখনই দাম কমার নয়, বরং তা আরও বাড়তে বলেও ইঙ্গিত দিচ্ছেন তাঁরা।

Saradindu Ghosh

Published by: Ananya Chakraborty
First published: May 25, 2020, 11:36 AM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर