বিহারের উপ মুখ্যমন্ত্রী রেণু দেবীর সঙ্গে বাংলার যোগ, প্রিয় 'রেণু ভাবির' জয়ে খুশি জগাছার মানুষ

Bihar Deputy CM Renu Devi is connected with Bengal

এখনও শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে তাঁর৷ মাঝে মধ্যেই, সময় করে চলে আসেন সেখানে৷

  • Share this:

    #হাওড়া: নীতীশ কুমাররে রাজ্যপাটে পড় চমক দু’জন উপমুখ্যমন্ত্রী৷ যার মধ্যে একজনের সঙ্গে রয়েছে বাংলার যোগ৷ তিনি বাংলার বৌমা!বিহারে নীতীশ কুমারের মন্ত্রিসভার উপ মুখ্যমন্ত্রী রেণু দেবী ছিলেন একসময় বাংলার বাসিন্দা৷ হাওড়ার জগাছার দুর্গাপ্রসাদের সঙ্গে বিয়ে হয় বিহারের বেতিয়ার বাসিন্দা রেণুর৷ জগাছায় তিনি থেকেছেন অনেক দিন৷ যদিও স্বামীর মৃত্যুর পর দুই সন্তানকে নিয়ে তিনি বিহারে নিজের বাড়িতে চলে যান৷ তাই তাঁর জয়ে এবং বিশেষ করে বিহারের উপ মুখ্যমন্ত্রী পদে আসাতে খুবই খুশি জগাছার মানুষ৷ প্রিয় রেণু ভাবীর কথা উঠে আসছে বার বার এবং জানানো হচ্ছে শুভেচ্ছা৷

    এখনও শ্বশুরবাড়ির সঙ্গে যোগাযোগ রয়েছে তাঁর৷ মাঝে মধ্যেই, সময় করে চলে আসেন সেখানে৷ লকডাউনের আগেই মার্চ মাসে এসেছিলেন সকলের সঙ্গে দেখা করতে৷

    হাওড়ার জগাছায় রেণুদেবীর শ্বশুরবাড়ি হাওড়ার জগাছায় রেণুদেবীর
    শ্বশুরবাড়ি

    স্বামী দুর্গাপ্রসাদ ছিলেন এক অর্থলগ্নি সংস্থার ফিল্ড অফিসার ছিলেন৷ তাঁর মৃত্যুর পর সেই কাজে যোগ দেন রেণুদেবী৷ তবে সেখানে কিছু সমস্যা দেখা দিতে তিনি ফিরে যান বিহারে৷ বিহারে গিয়ে রাজনীতির সঙ্গে যোগ দেন রেণুদেবী৷ সেখান থেকে ধীরে ধীরে তাঁর রাজনীতিতে উত্থান৷ ৪ বার বিজেপির হয়ে বিহারের বেতিয়া বিধানসভা থেকে জেতেন তিনি৷ ১৯৮৮-এ বিজেপির মহিলা মোর্চায় যোগ দান করেন রেণুদেবী৷ তবে রাজনৈতিক জীবন শুরু হয় ১৯৮১-এ সামাজিক কাজকর্মের মাধ্যমে৷

    সঙ্ঘ পরিবারের সঙ্গে যোগ ছিল তাঁর মায়ের৷ তাই ছোট থেকেই রাজনীতির সঙ্গে ছিল নিবিড় যোগ৷ বিহারি বণিক সমাজের নোইয়া জাতির সদস্য তিনি৷ জাতপাতের রাজনীতির ওপর নির্ভরশীল বিহারের রাজনৈতিক সমীকরণে খুবই গুরুত্বপূর্ণ পিছিয়ে পড়া জাতির প্রতিনিধি রেণুদেবী৷ ২০০৫ থেকে ২০০৯ পর্যন্ত বিহারের ক্রীড়া মন্ত্রীও ছিলেন তিনি৷

    আপাতত রেণুদেবীর এই জয়ে খুশি তাঁর শ্বশুরবাড়ির লোক৷ তাঁকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন হওড়ার জগাছার বাসিন্দারা৷ এখন তাঁর শ্বশুরবাড়িতে রয়েছেন তাঁর দূর সম্পর্কের ভাসুর বাবান প্রসাদ সিং৷

    (Input-Debashis Chakraborty)

    Published by:Pooja Basu
    First published: