• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়ছে, ফুঁসছে ভাগীরথী,অজয়, দামোদর

জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়ছে, ফুঁসছে ভাগীরথী,অজয়, দামোদর

জল ছাড়া অব্যাহত থাকলেও এখনই তা থেকে বন্যার আশঙ্কা নেই।

জল ছাড়া অব্যাহত থাকলেও এখনই তা থেকে বন্যার আশঙ্কা নেই।

জল ছাড়া অব্যাহত থাকলেও এখনই তা থেকে বন্যার আশঙ্কা নেই।

  • Share this:

#দুর্গাপুর: এক টানা বর্ষণ ও জলাধারগুলি থেকে জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়ায় পূর্ব বর্ধমান জেলায় নদীগুলিতে জলস্তর বেড়েছে অনেকটাই। ফুঁসছে ভাগীরথী অজয় দামোদর। জল বেড়েছে কুনুর, খড়ি ও বাঁকা নদীতেও। এ রাজ্যের পাশাপাশি ব্যাপক বৃষ্টি চলছে পাশের রাজ্য ঝাড়খণ্ডেও। তার ফলে বিভিন্ন জলাধার থেকে জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়ছে। তাতেই জলস্তর বাড়ছে নদীগুলিতে। শনিবারও ঝাড়খণ্ডে বেশি পরিমাণে বর্ষণ চলছে। তাই জল ছাড়ার পরিমাণ আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, জল ছাড়া অব্যাহত থাকলেও এখনই তা থেকে বন্যার আশঙ্কা নেই। দামোদরের জলস্তর বিপদসীমার অনেক নিচে রয়েছে। বিপদ সীমার নিচে রয়েছে অজয় ও ভাগীরথীর জলস্তরও। তবে জল ছাড়ার পরিমাণ বাড়লে আউশগ্রামে অজয় নদীর জল বিপদ সীমা ছুঁতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। সেজন্য বাসিন্দাদের আগাম সতর্কও করা হয়েছে। গতকালই সেখানে মাইকে প্রচার করে বাসিন্দাদের সচেতন করা হয়।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন সকালে কাটোয়ার কাঠগোলা পাড়ায় ভাগীরথীর জলস্তর বিপদ সীমার কিছুটা নিচে ছিল। তবে এই জলস্তর আরও বাড়তে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। কাটোয়ার গুটকিয়া পাড়ায় অজয় নদীর জল স্তর বিপদসীমার ৩ মিটার নিচ দিয়ে বইছে।

অন্যদিকে সকাল ন'টায় দুর্গাপুর ব্যারেজ থেকে ৫০ হাজার ৫২৫ কিউসেক জল ছাড়া হয়েছে। এর ফলে দামোদরের জল স্তর অনেকটাই বেড়েছে। এখনই তা থেকে বন্যার আশঙ্কা নেই বলেই জানিয়েছে জেলা প্রশাসন। তবে নদীগুলিতে জলস্তর ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাওয়ায় ভাঙ্গন বাড়বে বলে আশঙ্কা করছেন নদী তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দারা।

জেলা প্রশাসন জানিয়েছে,নদী তীরবর্তী এলাকার বাসিন্দাদের প্রয়োজনে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। সেক্ষেত্রে এলাকার হাই স্কুলগুলিতে ত্রাণ শিবির খোলা হতে পারে। ব্লকগুলিতে পর্যাপ্ত খাবার ও ত্রাণ সামগ্রী মজুত করা রয়েছে। সংশ্লিষ্ট সব দফতরকে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

Saradindu Ghosh

Published by:Debalina Datta
First published: