• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN STUDENT CREDIT CARD BANK WANTED HOUSE DEED IN MORTGAGE WHEN A STUDENT APPLIED FOR GOVT CREDIT CARD LOAN SWD

Student Credit Card: স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডে লোন চেয়ে বিপাকে পড়ুয়া! বাড়ির দলিল বন্ধক চাইল ব্যাঙ্ক

Student Credit Card: স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের লোনের জন্য বাড়ির দলিল বন্ধক রাখতে বলছে ব্যাঙ্ক।

Student Credit Card: স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের লোনের জন্য বাড়ির দলিল বন্ধক রাখতে বলছে ব্যাঙ্ক।

  • Share this:

#বর্ধমান: স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের (Student Credit Card) লোনের জন্য বাড়ির দলিল বন্ধক রাখতে বলছে ব্যাঙ্ক। এছাড়া বন্ধক হিসেবে চাওয়া হচ্ছে জীবন বিমার নথি। পড়াশোনার জন্য ঋন নিতে গিয়ে হতাশ হয়ে ফিরতে হচ্ছে পড়ুয়াদের। রাজ্যের পড়ুয়াদের উচ্চশিক্ষার সুবিধা দিতে স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের মাধ্যমে এই ঋন প্রকল্প চালু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই প্রকল্পে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋন মিলবে। উচ্চশিক্ষার পাশাপাশি প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষা ও তার প্রশিক্ষণের জন্যও এই ঋন পাবে পড়ুয়ারা। এছাড়াও কোর্স ফি, টিউশন ফি, কম্পিউটার, ল্যাপটপ কেনার জন্যও এই ঋন মিলবে।

এর জন্য আলাদা পোর্টাল খুলেছে রাজ্য সরকার। আবেদনের জন্য রয়েছে টোল ফ্রি নম্বর। বলা হয়েছে, এই ঋনের গ্যারান্টার থাকবে রাজ্য সরকার। অথচ ঋন দেওয়ার ক্ষেত্রে গড়িমসি করছে ব্যাঙ্ক। অভিযোগ, বাড়ির দলিল, জমির নথি, জীবন বিমার সার্টিফিকেট বন্ধক না রাখলে ঋন দেওয়া যাবে না বলে মুখের উপর বলে দিচ্ছে ব্যাঙ্ক। এমনভাবে পড়ুয়াদের ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে যে তারা হতাশ হয়ে আর ব্যাঙ্কে যাওয়ার কথা ভাবতেই চাইছেন না। বহু পড়ুয়ারই এমন অভিজ্ঞতা হচ্ছে।

ক্যামেরার সামনে ব্যাঙ্কের আধিকারিকরা নরম মনোভাব দেখালেও বাস্তবে তাঁরা ঋন না দেওয়ার বিষয়ে অনড় থাকছেন। রাজ্য সরকারের বদনাম করার চেষ্টা চালাচ্ছে ব্যাঙ্কের এক শ্রেণির কর্মী, অভিযোগ তৃনমূলের। বিজেপির বক্তব্য, রাজ্য সরকারের এসব গিমিক ছাড়া কিছু নয়। বর্ধমান সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের কালনা শাখায় আবেদন করে বিপাকে কালনার বড়মিত্র পাড়ার ছাত্র আবির মিত্র।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা মতো স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের লোনের জন্য কোনও গ্যারান্টার থাকার কথা নয়। কিন্তু বড় মিত্র পাড়ার বাসিন্দা তথা বিটেক সেকেন্ড ইয়ারের ছাত্র আবির মিত্র বর্ধমান কো অপারেটিভ ব্যাংকের কালনা শাখার স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ড দেখিয়ে লোনের আবেদন করায় ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষ তাঁকে বাড়ির দলিল বন্ধক ব্যাংকের কাছে জমা রাখার পরামর্শ দেন বলে অভিযোগ। এর পরই ওই ছাত্র মুখ্যমন্ত্রী, কালনার বিধায়ক, কালনার মহকুমাশাসক সহ বেশ কয়েক জায়গায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। ওই ছাত্রের বক্তব্য, "আমার বাবার আর্থিক অবস্থা খারাপ। সেই কারণেই স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের ঋণের জন্য আবেদন করেছিলাম। লোনটা না পেলে পড়াশোনা বন্ধ হয়ে যাবে। তাই লোনের খুবই প্রয়োজন।"

আরও পড়ুন- ছোট ও মাঝারি শিল্পকে সরাসরি বিদ্যুত সংযোগ দেবে ডিভিসি! আরও বেশ কিছু পরিকল্পনা রয়েছে তাদের

এ বিষয়ে কালনার বিধায়ক দেবপ্রসাদ বাগ বলেন, "এটা সরকারকে কলঙ্কিত করার একটি প্রচেষ্টা। অনেকের সঙ্গেই ব্যাঙ্ক এরকম করেছে। পরবর্তী সময়ে দলিল রাখার কথা বললে আমরা বিক্ষোভে নামব।" এ বিষয়ে বর্ধমান সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের কালনা শাখার ম্যানেজারের সাফাই, "দলিল রাখার বিষয়ে আলোচনা করা হয়েছিল। এর বেশি কিছু নয়। বর্ধমান থেকে বিষয়টি দেখা হচ্ছে। যেমন যেমন নির্দেশ আসবে সেই অনুযায়ী কাজ হবে।"

শরদিন্দু ঘোষ

আরও পড়ুন- গ্রামে বসে টেলিফোনে পান চিকিৎসা! পশ্চিম মেদিনীপুরে নতুন ২৩৪ টি উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্র!

Published by:Swaralipi Dasgupta
First published: