রান্নার গ্যাসের গোডাউনে লুকনো অক্সিজেন সিলিন্ডার! তুলকালাম পূর্ব বর্ধমানে

পূর্ব বর্ধমানে গোডাউনে উদ্ধার বহু অক্সিজেন সিলিন্ডার।

রবিবার পূর্ব বর্ধমানের মেমারির পাহাড়হাটি থেকে উদ্ধার হল দশটি অক্সিজেন সিলিন্ডার। মেমারি থেকে উদ্ধার করা হয় আরও একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার।

  • Share this:

#মেমারি: এবার রান্নার গ্যাসের গোডাউন থেকে উদ্ধার হল অক্সিজেন সিলিন্ডার। বেআইনিভাবে অক্সিজেন সিলিন্ডার মজুতের বিষয়ে গোপন সূত্রে খবর পেয়ে অভিযান চালায় পুলিশ। সেই অভিযানে রান্নার গ্যাসের আড়াল থেকে বেরিয়ে এলো দশটি অক্সিজেন ভর্তি সিলিন্ডার। এই ঘটনায় গোডাউনের মালিককে আটক করেছে পুলিশ। তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে আরও একটি সিলিন্ডার বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে।

রবিবার পূর্ব বর্ধমানের মেমারির পাহাড়হাটি থেকে উদ্ধার হল দশটি অক্সিজেন সিলিন্ডার। মেমারি থেকে উদ্ধার করা হয় আরও একটি অক্সিজেন সিলিন্ডার। সেই সঙ্গে সামনে চলে এলো রান্নার গ্যাসের ব্যবসার আড়ালে অক্সিজেনের কালোবাজারির অভিযোগ। কালোবাজারির জন্যই এই অক্সিজেন মজুত করা হয়েছিল বলে প্রাথমিক তদন্তের পর অনুমান পুলিশের। তদন্তকারী পুলিশ অফিসারদের সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্তদের এক একজনের কাছ থেকে পঁচিশ তিরিশ হাজার টাকা পর্যন্ত একটি অক্সিজেন সিলিন্ডারের জন্য নেওয়া হচ্ছে বলে গোপন সূত্রে খবর আসে। এরপরই অভিযানে নামে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ধৃত ব্যক্তি কোথা থেকে ওই সিলিন্ডার জোগাড় করেছিল, কতদিন আগে তা আনা হয়েছিল, কত দামে বিক্রি করা হচ্ছিল, এই চক্রের সঙ্গে আর কারা কারা জড়িত তা জানতে বিস্তারিত জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। পাশাপাশি আর কোথাও এই ধরনের অক্সিজেন সিলিন্ডার কালোবাজারি জন্য মজুত করা হয়েছে কিনা তাও খতিয়ে দেখা হচ্ছে।এদিনই কালনায় অক্সিজেন সিলিন্ডারের কালোবাজারির অভিযোগ তিন অ্যাম্বুলেন্স চালককে গ্রেফতার করা হয়।তাদের কাছ থেকে সাতটি সিলিন্ডার বাজেয়াপ্ত করে পুলিশ। কালনা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে সামনে দাদের অ্যাম্বুলেন্স থাকতো। শ্বাসকষ্ট থাকা করোনা আক্রান্তদের চড়া দামে অক্সিজেন বিক্রির জন্যই ওই সিলিন্ডারগুলি মজুত করা হয়েছিল বলে অভিযোগ। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কালনা থানার পুলিশ অভিযানে নামে। অ্যাম্বুলেন্স চালকদের বাড়ি বাড়ি তল্লাশি চালানো হয়। সেই অভিযানে কালনার বিভিন্ন এলাকা থেকে সাতটি সিলিন্ডার বাজেয়াপ্ত করার পাশাপাশি তিন জনকে গ্রেফতার করা হয়।

Published by:Arka Deb
First published: