• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN NO INFORMATION ABOUT TENANTS RESIDENTS OF BARDHAMAN WORRIED ABOUT SECURITY AC

Shootout at New Town: ভাড়াটেদের তথ্য নেই, নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তায় উল্লাস উপনগরীর বাসিন্দারা

সাপুরজি কান্ডের পর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বর্ধমানের উল্লাস উপনগরীর বাসিন্দারা

সাপুরজি কান্ডের পর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বর্ধমানের উল্লাস উপনগরীর বাসিন্দারা

  • Share this:

#বর্ধমান: সাপুরজি কান্ডের পর নিরাপত্তা নিয়ে উদ্বিগ্ন বর্ধমানের উল্লাস উপনগরীর বাসিন্দারা। উপনগরীর একটা বিশাল অংশের বাড়িতেই আছে ভাড়াটিয়া।নিয়ম অনুযায়ী ভাড়াটিয়ার যাবতীয় তথ্য উপনগরীর সোসাইটি ও লোকাল থানার কাছে দেওয়ার নিয়ম থাকলে তা মানা হচ্ছে না বলেই জানালেন সোসাইটির কর্তারা।তাই এই বিশাল সংখ্যক ভাড়াটিয়া সম্পর্কে ওয়াকিবহাল নন অনেকেই।তাই তারা আশঙ্কা করছেন এখানেও যেকোনও সময়ই ঘটে যেতে পারে সাপুরজি কান্ডের মতো ঘটনা। গা ঢাকা দিয়ে থাকতে পারে দুষ্কৃতীরা।

বর্ধমান শহরে ঢোকার মুখে অবস্থিত এই উপনগরীতে মোট ৯৪৮ টি প্লট আছে। ৩৬ টি কমার্শিয়াল ও ২ টি গ্রুপিং হাউজিং কমপ্লেক্সও আছে।এখনও পর্যন্ত ৫০০ টি প্লটে বাড়ি হলেও বাকি প্লটগুলি ফাঁকাই পড়ে রয়েছে।

বর্ধমানে খাগড়াগড় কান্ডের পরে ভাড়াটিয়াদের নথি সংগ্রহের ক্ষেত্রে প্রশাসনিকভাবে একটা তৎপরতা শুরু হয়েছিল। সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তা শিথিল হয়ে গিয়েছে। এখনও সেই নিয়ম বলবৎ থাকলেও নিয়ম মানার কোনও বালাই নেই।

এই পরিস্থিতিতে সবার অলক্ষ্যে এইসব জায়গায় কুখ্যাত দুস্কৃতীরা গা ঢাকা দিচ্ছে কিনা তা জানার উপায় নেই। পরিচয় গোপন করেও কেউ কেউ বাড়ি ভাড়া নিতে পারে।তাই উপনগরীর সোসাইটির সদস্যরা চাইছেন এই নিয়ম কঠোরভাবে বলবৎ হোকএবং তাতে সহযোগিতা করুক জেলা প্রশাসনও।

উল্লাস ডেভেলপমেন্ট এন্ড কালচারাল সোসাইটির সম্পাদক লক্ষীনারায়ন চট্টোপাধ্যায় জানান, ভাড়াটিয়াদের তথ্য সংগ্রহ করার ক্ষেত্রে একটা বড় সমস্যা হয়ে দাঁড়িয়েছে মালিকদের উদাসীনতা।বারংবার বলেও অনেক ক্ষেত্রেই সেই উদাসীনতার ফলে তথ্য সংগ্রহ করা হয়ে ওঠে না।ফলে উপনগরীতে কারা আসছেন, কারা যাচ্ছেন তার কোনও রেকর্ড রাখা সম্ভব হচ্ছে না।তবে প্রশাসনিক সহায়তায় এই কাজ সহজেই করা যেতে পারে।

তাছাড়াও নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে এবার থেকে উল্লাস উপনগরীর বাসিন্দাদের জন্য চারচাকা গাড়ির পাসির ব্যবস্থা করা হচ্ছে। পুলিশ ও জেলা প্রশাসনের সাথে কথা বলে খুব দ্রুতই নিরাপত্তার জন্য যা যা করণীয় তার ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

নিরাপত্তার বিষয়ে তাঁরা জেলা প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন। উল্লাস উপনগরীতে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করতে বেশ কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছে জেলা প্রশাসনও।

Published by:Ananya Chakraborty
First published: