হোম /খবর /দক্ষিণবঙ্গ /
ডোনার কার্ডে মিলল না রক্ত! 'বিহিত করুন', মমতার কাছে গেল চিঠি

West Bengal News: ডোনার কার্ডে মিলল না রক্ত! 'বিহিত করুন', মমতার কাছে গেল চিঠি

ব্লাড ব্যাংকের বিরুদ্ধে অভিযোগ

ব্লাড ব্যাংকের বিরুদ্ধে অভিযোগ

West Bengal News: ডোনার কার্ড থাকলেও তাতে রক্ত না দিয়ে ফিরিয়ে দেওয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংকের বিরুদ্ধে।

  • Share this:

#বর্ধমান: রক্তের প্রয়োজন রোগীর। সেই চাহিদা মেটাতে রয়েছে ব্লাড ব্যাংক। রোগীকে রক্ত দেওয়া প্রয়োজন জানিয়েছিলেন চিকিৎসক। সেই পরামর্শ মেনে তৈরি হয়েছিল রিকুইজিশন স্লিপ। কিন্তু সেই নমুনা নিয়ে ব্লাড ব্যাংকে গিয়ে রক্ত না পেয়ে হয়রানির শিকার হতে হল রোগীর আত্মীয়দের। ডোনার কার্ড থাকলেও তাতে রক্ত না দিয়ে ফিরিয়ে দেওয়ার চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ব্লাড ব্যাংকের বিরুদ্ধে। অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

রক্তের চাহিদা মেটাতে বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা, ক্লাব সারা বছর রক্তদান শিবির করে থাকে। রক্তের বিনিময়ে রক্তদাতাদের ডোনার কার্ড দেওয়া হয়। সেই কার্ড দেখালে ব্লাড ব্যাংকে মজুত রক্ত দেওয়া হবে এটাই নিয়ম। কিন্তু বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ইদানিং রক্ত মজুতথাকলেও ডোনার কার্ড এলাও করা হচ্ছে না বলে বারেবারেই অভিযোগ উঠছিল। সব ক্ষেত্রেই রোগীর আত্মীয় পরিজনদের ডোনার আনতে বলা হয় বলে অভিযোগ। এবার রক্ত না পেয়ে মুখ্যমন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী সহ প্রশাসনিক সব মহলে অভিযোগ জানালেন এক ব্যক্তি। তাঁর বক্তব্য, রক্ত না দিয়ে একাধারে রোগীকে আরও বিপদের মধ্যে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তাদেরও যথেষ্ট হয়রানির শিকার হতে হয়েছে। এই ঘটনায় যারা জড়িত তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক।

বর্ধমান শহরের বি সি রোড কালীতলার বাসিন্দা মির রবিয়েল হক জানিয়েছেন, 19 নভেম্বর হানিফা শেখ নামে তাঁর এক আত্মীয় বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হন। চিকিৎসক তাকে তিন বোতল রক্ত নেওয়ার পরামর্শ দেন। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তাকে এক বোতল রক্ত দেয়। এরপর পরিবারের লোকজনকে রক্তদাতা আনতে বলা হয়। সেইমতো পরিবারের লোকজন রক্তদাতা নিয়ে যান। পাশাপাশি একটি ডোনার কার্ড দেওয়া হয় পরিবারের তরফে। কিন্তু তাতে ব্লাড ব্যাংকে তরফ থেকে দু বোতল রক্ত দেওয়া হয়নি। বিষয়টি ব্লাড ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে জানানো হলেও তারা কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে জানিয়েও সুরাহা মেলেনি। বাধ্য হয়েই মুখ্যমন্ত্রী স্বাস্থ্যমন্ত্রী সহ জেলা প্রশাসনের কাছে বিষয়টি জানানো হয় বলে তিনি জানান।

আরও পড়ুন: কলকাতায় প্রশান্ত কিশোর, এক বৈঠকেই ভাগ্য নির্ধারণ তৃণমূলের বহু নেতার!

আরও পড়ুন: এক ট্যুইটেই 'সব' বুঝিয়ে দিলেন সুব্রহ্মণ্যম স্বামী! মমতা-সাক্ষাতের পরই বিরাট পদক্ষেপ

এ ব্যাপারে হাসপাতালের এক আধিকারিক জানান, রক্ত মজুত থাকলে ডোনার কার্ডে রক্ত দিয়ে দেওয়ার কথা। তবে এই হাসপাতালের ব্লাড ব্যাংকে রক্তের চাহিদা ব্যাপক। শুধু বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের রোগী নয়, বিভিন্ন বেসরকারি হাসপাতালের রোগীদের এই ব্লাড ব্যাংক থেকে রক্ত সরবরাহ করা হয়ে থাকে। তাই একসঙ্গে তিন ইউনিট রক্ত দেওয়া দেওয়া হয় না। কারণ একসঙ্গে তিন ইউনিট রক্ত রোগীর শরীরের দেওয়াও যায়না। তাই 5 - 6 ঘন্টা পর প্রয়োজনে ফের রক্ত দেওয়া হয়। তবে এক্ষেত্রে কি ঘটেছিল তা বিস্তারিত খতিয়ে দেখার পরই বলা সম্ভব হবে।

Published by:Suman Biswas
First published:

Tags: Blood Bank, Mamata Banerjee, West Bengal news