• Home
  • »
  • News
  • »
  • south-bengal
  • »
  • BARDHAMAN FATHER ALLEGED TO KILLED TWO DAUGHTER FOR EXTRA MARITAL AFFAIR IN PURBA BARDHAMAN SB

Father Killed Daughters: বাবার পরকীয়ায় বাধা দুই ছোট্ট মেয়ে, বাড়ির উঠোনে পড়ে রইল রুমি-সুমির দেহ!

মর্মান্তিক

Father Killed Daughters: মৃত দুজনের নাম রুমি খাতুন ও সুমি খাতুন। রুমির বয়স ছ'বছর, সুমির বয়স আট বছর। শনিবার বিকেলে বাড়ির উঠোনে দুজনকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

  • Share this:

#বর্ধমান: পরকীয়ায় কাঁটা দূর করতে দুই নাবালিকা মেয়েকে খুন করল বাবা! এমনই অভিযোগকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমান জেলার রায়নায়। শনিবার বিকেলে রায়নার খালের পুল এলাকায় কিশোরী দুই বোনের রহস্য মৃত্যুকে কেন্দ্র করে  ব্যাপক উত্তেজনা দেখা দেয়। উত্তেজিত এলাকার বাসিন্দারা ওই দুই নাবালিকার বাবাকে ব্যাপক মারধর করে। বাড়িতে ভাঙচুর চালানো হয়। রায়না থানার পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্তকে আটক করে নিয়ে যায়।

মৃত দুজনের নাম রুমি খাতুন ও সুমি খাতুন। রুমির বয়স ছ'বছর, সুমির বয়স আট বছর। শনিবার বিকেলে বাড়ির উঠোনে দুজনকে মৃত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। স্থানীয় বাসিন্দারা জানিয়েছেন, বাড়ির সামনে একটি দোকান রয়েছে মৃত দুই নাবালিকার বাবা হাসিবুল লায়েকের। ওই দোকানের সামনে লোহার তারে দোল খাচ্ছিল দুই বোন। সেই সময় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে তাদের মৃত্যু হয়। এখন দুর্ঘটনার কারণে তারা বিদ্যুৎপিষ্ট হয়ে মারা গিয়েছে, নাকি লোহার তারে বিদ্যুতের সংযোগ দিয়ে তাদের খুন করা হয়েছে, সেই প্রশ্নের উত্তর পেতে তদন্ত শুরু করেছে রায়না থানার পুলিশ। মৃতদেহ দুটি ময়না তদন্তের জন্য বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পুলিশ মর্গে পাঠানো হয়েছে।

গ্রামবাসীদের অভিযোগ, নিজের স্ত্রী থাকতেও অন্য একটি মহিলাকে বাড়িতে এনে তুলেছিল হাসিবুল। আর এই পরকীয়ার ঘটনাকে কেন্দ্র করে হাসিবুল ও তার স্ত্রীর সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরেই অশান্তি চলছিল। পাঁচ দিন আগে সেই অশান্তির কারণে মৃত দুই নাবালিকার মা ঘর ছেড়ে বাপের বাড়িতে চলে যেতে বাধ্য হন। তিনি দুই মেয়েকেও সঙ্গে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। কিন্তু হাসিবুল ও তার মায়ের বাধায় তাদের তিনি নিয়ে যেতে পারেননি। ঘটনার পরপরই গ্রামবাসীরা হাসিবুলকে ব্যাপক মারধর করে। হাসিবুলের মা ও পরকীয়ায় অভিযুক্ত মহিলা ঘটনার পর থেকে এলাকাছাড়া হয়ে যায়। দুই নাবালিকার মৃত্যু ও তাদের খুন করার অভিযোগে হাসিবুলকে মারধরের খবর পেয়ে রায়না থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তারা উত্তেজিত জনতাকে সরিয়ে হাসিবুলকে আটক করে নিয়ে যায়। জেলা পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, বিদ্যুৎ দপ্তরের কাছ থেকেও তথ্য চাওয়া হয়েছে। বিদ্যুৎস্পর্শে ওই দুই নাবালিকার মৃত্যু হয়েছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। খুন করার উদ্দেশ্যে তারে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়েছিল কিনা নাকি এটি দুর্ঘটনা সেসব বিষয়ে বিস্তারিত তদন্ত হবে। অভিযুক্ত হাসিবুলকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

Published by:Suman Biswas
First published: