পুলিশ দেখেই ছুট 'মৃতদেহে'র, তাজ্জব সকলেই !

স্হানীয় বাসিন্দাদের সাহায্য নিয়ে দেহ তুলতে যায় পুলিশ কর্মীরা। আর পুলিশ দেখেই দে দৌড় 'মৃতদেহের'!

স্হানীয় বাসিন্দাদের সাহায্য নিয়ে দেহ তুলতে যায় পুলিশ কর্মীরা। আর পুলিশ দেখেই দে দৌড় 'মৃতদেহের'!

  • Share this:

#বর্ধমান: দামোদরের জলে ভেসে এসেছিল যুবকের মৃতদেহ। তা দেখে ভিড় জমে যায় বর্ধমানের সদরঘাটে দামোদরের তীরে। স্হানীয় বাসিন্দাদের কাছ থেকে মৃতদেহ উদ্ধার করতে পৌঁছে যায় বর্ধমান থানার পুলিশও। স্হানীয় বাসিন্দাদের সাহায্য নিয়ে দেহ তুলতে যায় পুলিশ কর্মীরা। আর পুলিশ দেখেই দে দৌড় 'মৃতদেহের'! এমনই ঘটনার সাক্ষী থাকলেন সদরঘাটে উপস্থিত বাসিন্দারা।

শনিবার বিকেল। দামোদরের তীরে বেড়াতে যাওয়া বাসিন্দাদের কয়েকজন লক্ষ্য করেন তীরের কাছে ভেসে রয়েছে যুবকের দেহ। নড়াচড়া নেই। চোখ বোজা। পরনে পোশাকটুকুও নেই। তাদের কাছ থেকে খবর পেয়ে এলাকায় ভিড় জমে যায়। অনেকেই মৃতদেহ ভেবে হাত না দিয়ে বর্ধমান থানায় খবর দেয়। হন্তদন্ত হয়ে যায় বর্ধমান থানার পুলিশ। স্হানীয় যুবকদের সাহায্য নিয়ে মৃতদেহ উদ্ধারে সচেষ্ট হয় পুলিশ। পুলিশের উপস্থিতিতে কয়েকজন ওই যুবকের দেহ টেনে পাড়ে তোলার চেষ্টা করেন।

এরপর রীতিমতো ভিমড়ি খাওয়ার মতো অবস্থা পুলিশ সহ উপস্থিত সকলের। সোজা হয়ে বসলো 'মৃতদেহ'। এরপরই পুলিশ দেখে ছুটে পালানোর চেষ্টা করে ওই যুবক। উপস্থিত পুলিশ কর্মীরা দু চার ঘা দিয়ে এলাকা ছাড়ে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, অন্তত দু ঘন্টা দামোদরের জলে স্হির হয়ে পড়ে ছিল ওই যুবক। সবুজ শ্যাওলায় মাখামাখি। তাই নিশ্বাস নিচ্ছে কিনা তাও বোঝা যাচ্ছিল না। ওই অবস্থাতেই ভেসে এসেছিল সে।

বাসিন্দারা বলেন, ওই যুবক যে বেঁচে রয়েছে সেটা স্বস্তির। হয়তো মজা করার জন্যই সে এই ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু এই ধরনের মস্করা কখনই কাম্য নয়। অনেকেই পার থেকে দীর্ঘক্ষণ ধরে ডাকাডাকি করেও কোনও সাড়া পায়নি। ওই যুবক যে নিজেকে মৃতদেহের মত ভাসিয়ে রেখে সকলের সঙ্গে মজা করছে তা ঘুণাক্ষরেও কেউ বুঝে উঠতে পারিনি আমরা। পোশাক না পড়ে শ্যাওলার মধ্যে পড়ে থেকে কেউ যে এভাবে ভেসে থাকবে তা আমাদের ধারনার বাইরে ছিল। এই ধরনের ঘটনা কখনোই কাম্য নয়

Published by:Ananya Chakraborty
First published: