অজয়ের চড়ে মিলল ১০টি শিবলিঙ্গ, ‘মহামারী থেকে রক্ষা করবেন মহাদেব’ বর্ধমানে শুরু পুজোপাঠ

এলাকাবাসীরা জানান, এই রকম শিবলিঙ্গ আগে কখনও ওই এলাকায় দেখা যায়নি। ‘মহামারী থেকে রক্ষা করতে স্বয়ং মহাদেব দেখা দিয়েছেন’, এমন কাহিনীও ঝড়ের গতিতে লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে ।

এলাকাবাসীরা জানান, এই রকম শিবলিঙ্গ আগে কখনও ওই এলাকায় দেখা যায়নি। ‘মহামারী থেকে রক্ষা করতে স্বয়ং মহাদেব দেখা দিয়েছেন’, এমন কাহিনীও ঝড়ের গতিতে লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে ।

  • Share this:

    #দুর্গাপুর: পশ্চিম বর্ধমান (Paschim Bardhaman) এলাকার দুর্গাপুরের ফরিদপুর ব্লকের নতুন ডাঙ্গা এলাকার অজয় নদীর তীর । প্রতিদিনের মতই সেখানে বালি তুলতে গিয়েছিলেন স্থানীয়রা । বৃহস্পতিবার যখন অজয় নদের চড় থেকে বালি তোলা হচ্ছিল, সেই সময় ঘটে ‘অলৌকিক ঘটনা’ । নদীর চড় থেকে উঠে আসে দশটি শিবলিঙ্গ (Shiv Linga)। একটা, দু’টো নয়, ১০টি শিবলিঙ্গ উদ্ধার হয় সেখান থেকে । আর তারপর থেকেই এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে মানুষের মধ্যে প্রবল উৎসাহ, উদ্দীপনা দেখা দিয়েছে । মানুষজনের মধ্যে চাপা কৌতূহল, গুঞ্জন, দেবতার মাহাত্ম্য নিয়ে নানা কথা রটতে শুরু করেছে।

    ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার। ওই দিন বালি তুলতে তুলতে প্রথমে একটি শিবলিঙ্গ দেখতে পান স্থানীয়রা । পরে আরও ৯টি শিবলিঙ্গ উদ্দার হয় । খবর জানাজানি হতেই এলাকার মানুষজন ভিড় জমাতে থাকেন। এলাকাবাসীরা জানান, এই রকম শিবলিঙ্গ আগে কখনও ওই এলাকায় দেখা যায়নি। ‘মহামারী থেকে রক্ষা করতে স্বয়ং মহাদেব দেখা দিয়েছেন’, এমন কাহিনীও ঝড়ের গতিতে লোকমুখে ছড়িয়ে পড়ে । এলাকায় শুরু হয়ে যায় পুজোআচ্চা ।

    এ বিষয়ে ইতিহাসবিদ তথা বিশিষ্ট লেখক সুশীল ভট্টাচার্য্য জানিয়েছেন, এই এলাকাটি একসময় রাঢ়বঙ্গের রাজা ইছাই ঘোষের অধিকৃত ছিল। মূর্তি গুলির গঠনগত বৈশিষ্ট্য দেখে তেমনই মনে হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, সম্ভবত সেই সময় শিবলিঙ্গ উদ্ধার হওয়া জায়গাটিতে কোনও গ্রাম ছিল। কিন্তু অজয় নদী নিজের পথ পরিবর্তন করায়, সেই গ্রাম এবং মন্দিরগুলি নদীগর্ভে চলে গিয়েছে। দীর্ঘদিন পর বালি খুঁড়তে গিয়ে উদ্ধার হয়েছে এই শিবমূর্তি গুলি।

    Published by:Simli Raha
    First published: