Home /News /south-bengal /
Old age allowance: দু'বেলা ঠিক করে খাবার জোটে না! অসহায় ৯০ পেরোনো দম্পতির জোটেনি বার্ধক্য ভাতাও

Old age allowance: দু'বেলা ঠিক করে খাবার জোটে না! অসহায় ৯০ পেরোনো দম্পতির জোটেনি বার্ধক্য ভাতাও

Old age allowance: বার্ধক্য ভাতার দেখা মেলেনি নন্দকুমার ব্লকের বাসুদেবপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসুদেবপুর গ্রামের বাসিন্দা, অসহায় বৃদ্ধ দম্পতি, কানাইলাল দীক্ষিত ও তাঁর স্ত্রী সাবিত্রী দীক্ষিতের।

  • Share this:

    #নন্দকুমার: পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য সরকারের জয়বাংলা পেনশন স্কিমে বার্ধক্য ভাতা, বিধবা ভাতা, মানবিক ভাতা সহ সামাজিক ভাতায় মাসিক, আর্থিক সাহায্য লাভ করে রাজ্যের বহু মানুষ। অসহায় বয়স্ক বৃদ্ধ বৃদ্ধাদের জন্য রাজ্য সরকারের জয়বাংলা পেনশন স্কিমে রয়েছে বার্ধক্য ভাতা। প্রতিমাসে এক হাজার টাকা করে আর্থিক সাহায্য দেওয়া হয় ৬০ ঊর্ধ্ব বয়স্ক মহিলা ও পুরুষদের। কিন্তু বিধি বাম নন্দকুমারের এক দম্পতির ক্ষেত্রে। এখনো পর্যন্ত বার্ধক্য ভাতার দেখা মেলেনি নন্দকুমার ব্লকের বাসুদেবপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসুদেবপুর গ্রামের বাসিন্দা, অসহায় বৃদ্ধ দম্পতি, কানাইলাল দীক্ষিত ও তাঁর স্ত্রী সাবিত্রী দীক্ষিতের।

    নব্বই বছর ঊর্ধ্ব কানাইলাল দীক্ষিত ও তাঁর স্ত্রীর বয়স ৮৫ বছর। বয়সের ভারে বাইরে হাঁটা চলার শক্তি প্রায় নেই বললেই চলে। কিন্তু তাদের নিজেদের দৈনন্দিন অন্নসংস্থানের চিন্তা নিজেদেরকেই করতে হয়। এই বৃদ্ধ দম্পতির কোন পুত্র সন্তান নেই। মেয়েদের বিয়ে আগেই হয়ে গিয়েছে। ফলে পরিবারের উপার্জন বলতে কিছু নেই। দৈনন্দিন অন্নসংস্থান ও মাসিক চিকিৎসার খরচ রয়েছে। এমত অবস্থায় বার্ধক্য ভাতার আর্থিক সহায়তা পেলে অনেকটাই সুরাহা হত এই বৃদ্ধ দম্পতির।

    আরও পড়ুন: অসুস্থ ঠাকুমাকে দেখতে এল হনুমান! মাথায় হাত বুলিয়ে, বুকে মাথা রাখল! আদরের ভিডিও ভাইরাল

    এই প্রকল্পের সুবিধা নেওয়ার জন্য স্থানীয় পঞ্চায়েত মারফত আবেদন জানিয়েছিলেন তাঁরা। কিন্তু এ পর্যন্ত বার্ধক্য ভাতা পেনশন স্কিমে নাম ওঠেনি তাঁদের। জরাজীর্ণ মাটির বাড়িতে বসবাস। তাতেও নেই কোনো সরকারি সাহায্য। বর্তমান সময়ে দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধির কারণে আরও অসহায় হয়ে পড়েছেন এই দম্পতি। পাড়া-প্রতিবেশীর আর্থিক সহায়তায় দিন গুজরান করছেন তাঁরা। কেন বার্ধক্য ভাতা থেকে বঞ্চিত এই দম্পতি? পাওয়া যায় না সদুত্তর। যদিও এই বিষয় সম্পর্কে নন্দকুমার ব্লকের বিডিওর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে ফোনে পাওয়া যায়নি তাকে।

     Saikat Shee
    Published by:Piya Banerjee
    First published:

    Tags: Midnapur, Old age allowance, Pension

    পরবর্তী খবর