Home /News /off-beat /
Viral : সমাধির উপর সাড়ে পাঁচ ফুটের উত্থিত পুরুষাঙ্গ! পূর্ণ হল ৯৯ বছর বয়সে প্রয়াত বৃদ্ধার শেষ ইচ্ছে

Viral : সমাধির উপর সাড়ে পাঁচ ফুটের উত্থিত পুরুষাঙ্গ! পূর্ণ হল ৯৯ বছর বয়সে প্রয়াত বৃদ্ধার শেষ ইচ্ছে

প্রজন্ম পেরিয়ে নাতি নাতনিদের সঙ্গেও হাসি মস্করা করতে ছাড়তেন না বৃদ্ধা

প্রজন্ম পেরিয়ে নাতি নাতনিদের সঙ্গেও হাসি মস্করা করতে ছাড়তেন না বৃদ্ধা

Viral : মিসান্টলা শহরের বাসিন্দা ওই প্রবীণা চেয়েছিলেন তাঁর সমাধির উপর থাকবে উত্থিত পুরুষাঙ্গ

  • Share this:

    সাধারণত সমাধি সাজানো হয় বড় পাথরখণ্ড বা ওবেলিস্ক দিয়ে৷ পাশাপাশি থাকে মৃতের পছন্দ অনুযায়ী নানা রকম সজ্জাও৷ কোথাও খোলা বইয়ের পাতা, কোথাও ফুল-লতা-পাতার কারুকাজ দিয়ে বিজড়িত থাকে প্রিয়জনের চিরঘুমের পরিসর৷ মৃত্যুর আগে অনেকেই ইচ্ছেপ্রকাশ করেন তাঁর সমাধিতে কীরকম সজ্জা থাকবেন ৷

    এ বিষয়ে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন মেক্সিকোর ৯৯ বছর বয়সি বৃদ্ধা ক্যাটারিনা ওর্দুনা পেরেজ ৷ সে দেশের মিসান্টলা শহরের বাসিন্দা ওই প্রবীণা চেয়েছিলেন তাঁর সমাধির উপর থাকবে উত্থিত পুরুষাঙ্গ!

    পরিবার পরিজনের কাছে ক্যাটারিনা পরিচিত ছিলেন ডোনা ক্যাটা নামে ৷ মৃত্যুর আগে প্রকাশ করে যান তাঁর শেষ ইচ্ছে৷ সেইমতো তাঁর সমাধির উপর বসানো হল সাড়ে পাঁচ ফুট লম্বা পুরুষাঙ্গ৷ পরিজনদের কথায় এটা আসলে ডোনার ভালবাসা ও জীবনের আনন্দের প্রতীক৷

    আরও পড়ুন :  বিরিয়ানির হাঁড়ি ভেসে যায় হায়দরাবাদের জলমগ্ন রাজপথে, দেখুন ভাইরাল ভিডিও

    ডোনার নাতি অ্যালভারোর মতে, তাঁর ঠাকুমা ছিলেন খোলা মনের, নিজের সময়ের তুলনায় অনেক এগিয়ে৷ গোপনীয়তা, লুকোচুরি ভেঙে তিনি পরিচয় দিয়েছিলেন খোলা মনের ৷ ধারণা তাঁর পরিজনদের ৷প্রজন্ম পেরিয়ে নাতি নাতনিদের সঙ্গেও হাসি মস্করা করতে ছাড়তেন না বৃদ্ধা৷

    সমাধির উপরে পুরুষাঙ্গ বসানো নিয়ে ঠাকুমার শেষ ইচ্ছে সম্পর্কে প্রবীণার নাতি বলেছেন, ‘‘উনি চেয়েছিলেন যে তাঁর ইচ্ছে কেউ যেন তাঁকে ভুলে না যান ৷ তিনি যা যা ভালবাসতেন সে সব যেন সকলে মনে রাখেন, এটাই ছিল তাঁর ইচ্ছে৷’’ তাঁর শেষ ইচ্ছে যেন পূর্ণ হয়, সেদিকে খেয়াল রেখেছিলেন পরিজনরা ৷

    আরও পড়ুন :  মৃত্যুর ৩০ বছর পর সাতপাকে বাঁধা পড়লেন শোভা এবং চণ্ডাপ্পা

    তবে বৃদ্ধার শেষ ইচ্ছের কথা শুনে সকলেই প্রথমে চমকে উঠেছিলেন ৷ ভেবেছিলেন বুঝি ঠাট্টা করছেন৷ কারণ মৃত ব্যক্তির স্মৃতিতে এই ধরনের মূর্তির কথা ভাবাই যায় না৷ বলছেন যে ইঞ্জিনিয়ার মূর্তি ডিজাইন করেছেন, সেই ইসিদ্রো ল্যাভোইগনেট ৷ এক মাস ধরে ১২ জন লোকের চেষ্টায় অবশেষে তৈরি হয়েছে এই পুরুষাঙ্গ মূর্তি৷

    Published by:Arpita Roy Chowdhury
    First published:

    Tags: Mexico, Viral

    পরবর্তী খবর