• Home
  • »
  • News
  • »
  • off-beat
  • »
  • JANMASHTAMI 2021 OFFER BHOG TO LORD KRISHNA AS PER YOUR ZODIAC SIGNS TO GAIN GOOD LUCK AND BLESSINGS PBD TC

Janmashtami 2021| Horoscope: রাশি অনুসারে সাজিয়ে দিন জন্মাষ্টমীর ভোগ, তাহলেই পাবেন শ্রীকৃষ্ণের আর্শীবাদ!

janmashtami 2021

দেখে নেওয়া যাক রাশি অনুসারে (Janmasthami celebration according to Zodiac sign) কোন রঙের বস্ত্র এবং কেমন ভোগদানে জীবনে আসবে সর্বাধিক মঙ্গল!

  • Share this:

#কলকাতা: ভাদ্র মাসের কৃষ্ণপক্ষের যে অষ্টমী তিথিতে জন্মগ্রহণ করেছিলেন শ্রীকৃষ্ণ (Lord Krishna), সেই সময়ে সক্রিয় ছিল রোহিণী নক্ষত্র। এই নক্ষত্রের প্রভাবে তিনি যেমন মধুর স্বভাবের অধিকারী হয়েছিলেন, তেমনই আবার এই নক্ষত্রের দোষও বর্তেছিল তাঁর উপরে। যেমন, রোহিণী নক্ষত্রের জাতক রূপে তিনি ছিলেন বিলাসপ্রিয়, তাঁর বহুবিবাহও এই নক্ষত্রের প্রভাব বলেই ব্যাখ্যা করেন বিশেষজ্ঞরা। আবার এই নক্ষত্রের জাতকেরা ঈর্ষাতুর হন, নিজের পুত্র শাম্বকে কৃষ্ণের অভিশাপ দেওয়ার ঘটনা তা প্রমাণ করে!

তাই চলতি বছরের কৃষ্ণ জন্মাষ্টমীতে (Krishna Janmashtami 2021) নিশীথপূজায় বস্ত্র এবং নৈবেদ্য অর্পণের আগে সতর্ক থাকা প্রয়োজন; দেখে নেওয়া যাক রাশি অনুসারে কোন রঙের বস্ত্র এবং কেমন ভোগদানে জীবনে আসবে সর্বাধিক মঙ্গল!

মেষ (Aries): মার্চ ২১ থেকে এপ্রিল ১৯। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের অর্পণ করা উচিত লাল রঙের বস্ত্র। ভোগ হিসাবে মিছরি দিলে এঁরা যেমন কৃষ্ণের আশীর্বাদ পাবেন, তেমনই পূর্ণ হবে সর্ব মনোস্কামনা।

বৃষ (Taurus): এপ্রিল ২০ থেকে মে ২০। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের অর্পণ করা উচিত সাদা রঙের বস্ত্র। ভোগেও তেমনই থাকতে হবে সাদা মাখন, তাতে নীরোগ স্বাস্থ্যের অধিকারী হবেন এই রাশির জাতক-জাতিকারা।

আরও পড়ুন Janmashtami 2021: জন্মাষ্টমীর ভোগ| কেন কৃষ্ণকে নিবেদন করা হয় ৫৬ ভোগ, জেনে নিন তার মাহাত্ম্য...

মিথুন (Gemini): মে ২১ থেকে জুন ২০। এই রাশির জাতক-জাতিকারা যদি সবুজ রঙের বস্ত্রে ভগবানকে আজ সাজান, তাহলে তাঁদের সর্বাধিক মঙ্গল হবে; ময়ুরপুচ্ছের সাজও তাঁরা অর্পণ করতে পারেন। তেমনই ভোগে সবুজ ফল, মিষ্টির পাশাপাশি থাকতেই হবে গরুর দুধের ঘি এবং দই। তাতে পারিবারিক জীবন যেমন সুখের হবে, তেমনই কর্মক্ষেত্রে উন্নতি হবে।

কর্কট (Cancer): জুন ২১ থেকে জুলাই ২২। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের আজ কৃষ্ণকে সাদা বা রুপোলি রঙের বস্ত্রে সাজানোই উচিত হবে। সঙ্গে ভোগে রাখতে হবে সাদা রঙের খাবার; এক্ষেত্রে দুধ অর্পণ করতেই হবে, সঙ্গে রাখা যায় সাদা মাখন, মিছরি, কলা, তাহলে সন্তানসুখ আসবে জীবনে।

সিংহ (Leo): জুলাই ২৩ থেকে অগাস্ট ২২। ভগবানকে লাল রঙের বস্ত্রদানে আজ সর্বাধিক ফললাভ করবেন সিংহ রাশির জাতক-জাতিকারা। সঙ্গে ভোগে রাখতে হবে লাল রঙের ফল এবং অবশ্যই ঘি-মিছরি, তাহলে সমাজে যেমন সম্মান বৃদ্ধি পাবে, তেমনই কর্মক্ষেত্রে পদোন্নতি হবে।

কন্যা (Virgo): অগাস্ট ২৩ থেকে সেপ্টেম্বর ২২। কন্যা রাশির জাতক-জাতিকাদের আজ ভগবানকে সবুজ রঙের বস্ত্র এবং ময়ূরপুচ্ছের সাজ অর্পণ করা উচিত, সঙ্গে ভোগে থাকা উচিত মেওয়া বা সবুজ রঙের পেঁড়া, যা তাঁদের জীবন ইতিবাচকতায় পরিপূর্ণ করে তুলবে।

তুলা (Libra): সেপ্টেম্বর ২৩ থেকে অক্টোবর ২২। এই রাশির জাতক-জাতিকাদের ভগবানকে শ্বেতবস্ত্র এবং শ্বেতভোগ নিবেদন করা উচিত। সেই মতো ভেগের তালিকায় ঘি রাখলে তাঁরা দীর্ঘ নীরোগ এবং সুখে পরিপূর্ণ জীবনের অধিকারী হবেন।

বৃশ্চিক (Scorpio): অক্টোবর ২৩ থেকে নভেম্বর ২১। বৃশ্চিক রাশির জাতক-জাতিকাদের আজ ভগবানকে লাল রঙের বস্ত্রে সাজিয়ে তোলা উচিত হবে। তবে ভোগে লাল ফলের সঙ্গে অর্পণ করতেই হবে দুধ, যা তাঁদের জীবনে অর্থযোগের সূচনা করবে।

আরও পড়ুন Janmashtami 2021: জন্মাষ্টমীর বিশেষ ৫৬ ভোগ, কী কী না থাকলে রুষ্ট হবেন শ্রীকৃষ্ণ

ধনু (Sagittarius): নভেম্বর ২২ থেকে ডিসেম্বর ২১। ধনু রাশির জাতক-জাতিকাদের ভগবানকে তাঁর পীতবাসের সাজ অর্পণ করা উচিত, সঙ্গে অর্পণ করতে হবে চন্দনের প্রসাধন। ভোগে যদি তাঁরা হলুদ রঙের ফল এবং পঞ্চামৃত নিবেদন করবেন, তাহলে অনায়াসে জীবনে পরাস্ত করতে পারবেন শত্রুদের।

মকর (Capricorn): ডিসেম্বর ২২ থেকে জানুয়ারি ১৯। এই রাশির জাতক-জাতিকারা লাল বা হলুদ- যে কোনও রঙের সাজ অর্পণ করতে পারেন কৃষ্ণকে। ভোগ হিসাবে নিবেদন করতে পারেন যা খুশি, তবে মিষ্টি পান পাতা কোনও ভাবেই বাদ দেওয়া যাবে না যা জীবনে সৌভাগ্য নিয়ে আসবে।

কুম্ভ (Aquarius): জানুয়ারি ২০ থেকে ফেব্রুয়ারি ১৮। কুম্ভ রাশির জাতক-জাতিকাদের পক্ষে কৃষ্ণকে নীল রঙের বস্ত্র অর্পণ করাটাই উচিত হবে। ভোগে শুকনো ফল এবং লাল রঙের মিষ্টি দিতে হবে, তাহলেই ভাগ্য সর্বদা সুপ্রসন্ন থাকবে।

মীন (Pisces): ফেব্রুয়ারি ১৯ থেকে মার্চ ২০। মীন রাশির জাতক-জাতিকাদের পক্ষেও ভগবানকে পীতবাসের সাজ অর্পণ করা সর্বাধিক মঙ্গলদায়ক হবে। সঙ্গে ভোগের তালিকায় রাখতেই হবে মিছরি মিশ্রিত ঘি যা তাঁদের জীবনকে প্রশাসনিক এবং আইনি জটিলতামুক্ত করে তুলবে।

Published by:Pooja Basu
First published: