• Home
  • »
  • News
  • »
  • north-bengal
  • »
  • SILIGURI HEAVY RAIN AND MAJOR LANDSLIDE HALT TRAFFIC ON NH10 BETWEEN BENGAL AND SIKKIM ARC

Landslide: রাতভর তীব্র বর্ষণ ও ধসে বিধ্বস্ত বাংলা-সিকিম সড়ক যোগাযোগ, জলমগ্ন শিলিগুড়ি

সেবক থেকে রংপো পর্যন্ত ১০ নং জাতীয় সড়কের একাধিক জায়গা ধসে বিধ্বস্ত

সমতলের শিলিগুড়ির নীচু এলাকা জলমগ্ন, চরম দূর্ভোগে অশোক নগরের বাসিন্দারা!

  • Share this:

শিলিগুড়ি : রাতভর এক নাগাড়ে বৃষ্টি পাহাড় থেকে সমতলের শিলিগুড়ি (Siliguri) ও লাগোয়া এলাকায়। অবিরাম বৃষ্টির জেরে ফের ধস নামল বাংলা ও সিকিমের (Sikkim) লাইফ লাইন ১০ নং জাতীয় সড়কে। ২৯ মাইল এলাকায় বড় ধস নামায় শিলিগুড়ির সঙ্গে সিকিম ও কালিম্পংয়ের সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন। জাতীয় সড়কের দু'ধারে দাঁড়িয়ে সারি সারি গাড়ি। খুব প্রয়োজনে ঘুরপথে চলছে সড়ক যোগাযোগ। বার বার ধস নামার জেরে দুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে নিত্যযাত্রীদের। বিপাকে পর্যটকেরাও। বিকল্প সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা বা স্থায়ী সমাধানের দাবি গাড়িচালকদের ।

চলতি বছর ধসে জেরবার ১০ নং জাতীয় সড়ক । সেবক থেকে রংপো পর্যন্ত ১০ নং জাতীয় সড়কের একাধিক জায়গা ধসে বিধ্বস্ত! অন্ততপক্ষে ৮ জায়গায় এখোনো একমুখী যান চলাচল করছে। জাতীয় সড়ক দিয়েই নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছতে প্রচুর সময় লাগছে। রীতিমতো ঘাম ছুটছে গাড়ি চালকদের। আর তাই দাবি উঠছে বিকল্প লাভার রাস্তা দিয়ে যান চলাচল শুরু করার জন্য। সময় বেশি লাগলেও রাস্তা খুবই ভাল ৷

১০ নম্বর জাতীয় সড়কে ধস সংস্কারে ইতিমধ্যেই পূর্ত দপ্তরের এনএইচ ডিভিশনের পদস্থ ইঞ্জিনিয়র এবং কর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছছেন। শুরু হয়েছে ধস সরানোর কাজ। পূর্ত দপ্তরের দাবি, বড় ধস নামায় বেশ কিছু ক্ষণ সময় লাগবে। তবে একমুখী যান চলাচলের অবস্থায় ফেরানোর চেষ্টা চলছে রাস্তাকে।

এদিকে টানা বৃষ্টির জেরে জলের তলায় শিলিগুড়ির ৩১ নং ওয়ার্ডের অশোকনগর এলাকা। বহু বাড়িতে জল ঢুকে পড়েছে। রাস্তার কোথাও হাঁটু জল তো আবার কোথাও কোমর সমান জল। চরম দুর্ভোগে এলাকাবাসী। কার্যত গৃহবন্দি স্থানীয়রা।

স্থানীয় বাসিন্দা খোকন ঘোষ জানান, ‘‘এলাকায় নিকাশি ব্যবস্থা বলে কিছু নেই। প্রতিদিন নিকাশি নালা সংস্কার করা হয় না। আর তাই টানা কয়েক ঘন্টা বৃষ্টি হলেই এলাকা জলমগ্ন হয়ে পড়ে।’’ পুরসভার বিরুদ্ধে উদাসীনতার অভিযোগে সরব স্থানীয়রা। তাঁদের খেদ, স্রেফ প্রতিশ্রুতিই মেলে ফি বছরে। আবার বর্ষা বিদায় নিতেই ফাইলবন্দি হয়ে পড়ে যাবতীয় ঘোষণা!

Published by:Arpita Roy Chowdhury
First published: