Home /News /national /
Namami Govinda: নমামি গোবিন্দ! গোবর, গোমূত্র, ঘি, দুধ মিলিয়ে এবার পঞ্চগব্য তৈরি তিরুপতি মন্দিরে

Namami Govinda: নমামি গোবিন্দ! গোবর, গোমূত্র, ঘি, দুধ মিলিয়ে এবার পঞ্চগব্য তৈরি তিরুপতি মন্দিরে

Tirumala Tirupati Devasthanams: গোরুর গোবর ও মূত্র এবং আরও বেশ কিছু গো-জাত সামগ্রী মিলিয়ে মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে এই পণ্য

  • Share this:

    #হায়দরাবাদ: ‘নমামি গোবিন্দ’ (Namami Govinda)! এবার গো-জাত দ্রব্যের নয়া ব্র্যান্ড নিয়ে এল তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানামস (TTD)। বিশ্বের সবচেয়ে ধনী মন্দির কর্তৃপক্ষ (Tirumala Tirupati Devasthanams) বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছে। গোরুর গোবর ও মূত্র এবং আরও বেশ কিছু গো-জাত সামগ্রী মিলিয়ে মিশিয়ে তৈরি হচ্ছে এই পণ্য (Namami Govinda)। তিরুপতি ভক্তদের জন্যই বিশেষ করে তৈরি হয়েছে নমামি গোবিন্দ। ‘পবিত্র গরু’ পুজোর প্রচারের জন্য পঞ্চগব্য পণ্য নিয়ে আসছে মন্দির বোর্ড। হিন্দু ধর্মে গরুর যে ঐতিহ্য  এবং গরুকে ঘিরে সম্প্রদায়ের একাংশের যে ভক্তি তাকে মাথায় রেখে এবং তা ছড়িয়ে দিতেই এই উদ্যোগ।

    নমামি গোবিন্দ (Namami Govinda) ব্র্যান্ডের মধ্যে থাকছে কী কী? পঞ্চগব্যে থাকবে গোবর, গো মূত্র, দুধ, দই এবং ঘি এই পাঁচটি গো-পণ্য মিশিয়ে তৈরি করা হওয়া সামগ্রী। হিন্দু আচার-অনুষ্ঠানে ব্যবহৃত হবে এই পঞ্চগব্য।

    আরও পড়ুন- দল পাল্টেছেন, রঙ পাল্টেছেন বারবার, তবু মথুরার মন্তের বিধায়ক যেন অপরাজেয়

    তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানামসের (Tirumala Tirupati Devasthanams) চেয়ারম্যান ওয়াইভি সুব্বা রেড্ডি একটি অনুষ্ঠানে সম্প্রতি যোগ দিয়েছিলেন। সেখানে মন্দির বোর্ডের সকল কর্মীদের নগদহীন চিকিত্সা প্রদানের জন্য সারা দেশের মোট ১৫ টি হাসপাতালের সঙ্গে একটি চুক্তি স্বাক্ষর করেছেন।

    ওয়াইএসআর হর্টিকালচার ইউনিভার্সিটির তৈরি শুকনো ফুলের প্রযুক্তিতে তৈরি এই পণ্যের বিক্রিও শুরু হয়ে গিয়েছে।

    “তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানামসের কর্মসূচির অংশ হিসাবে কেন্দ্রে ভক্তদের জন্য ১৫ টি বিভিন্ন পণ্য থাকবে৷ আমাদের লক্ষ্য ভক্তি, সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যকে ছড়িয়ে দেওয়া। আমরা রাজ্য জুড়ে ছড়িয়ে থাকা গোয়ালগুলির পরিষেবা ব্যবহার করে পঞ্চগব্য সামগ্রী তৈরি করি,” বলেন রেড্ডি।

    আরও পড়ুন- বিধানসভায় শেষ মুকুল রায়ের বিধায়ক পদের শুনানি, এবার যা হতে চলেছে...

    তিরুমালা তিরুপতি দেবস্থানামসের কার্যনির্বাহী কর্মকর্তা জওহর রেড্ডি জানান যে ভবিষ্যতে অন্ধ্রপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানার প্রতিটি জেলায় দু’টি করে গোশালা স্থাপন করা হবে। সেই সব গোশালায় যুবাদের পঞ্চগব্য পণ্য তৈরিতে প্রশিক্ষণও দেওয়ার ব্যবস্থা করা হবে।

    Published by:Madhurima Dutta
    First published:

    Tags: Namami Govinda

    পরবর্তী খবর