দেশ

corona virus btn
corona virus btn
Loading

হাতরস কাণ্ডে সিবিআই তদন্তে নজর রাখবে এলাহাবাদ হাইকোর্ট, নির্দেশ শীর্ষ আদালতের

হাতরস কাণ্ডে সিবিআই তদন্তে নজর রাখবে এলাহাবাদ হাইকোর্ট, নির্দেশ শীর্ষ আদালতের
Photo-File

আবেদনকারীদের বক্তব্য ছিল, যেহেতু এই ঘটনার তদন্তকে প্রভাবিত করার চেষ্টা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে, তাই উত্তর প্রদেশে নিরপেক্ষ তদন্ত সম্ভব নয়৷

  • Share this:

#নয়াদিল্লি: হাতরসে দলিত তরুণীর গণধর্ষণ ও মৃত্যুর ঘটনায় সিবিআই তদন্তের উপরে নজরদারি চালাবে এলাহাবাদ হাইকোর্ট৷ এ দিন এমনই নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট৷ প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে, বিচারপতি এ এস বোপান্না এবং বিচারপতি ভি রামাসুব্রহ্মণ্যনের ডিভিশন বেঞ্চ এই নির্দেশ দিয়েছে৷

 একটি জনস্বার্থ মামলা ছাড়াও সমাজকর্মী এবং আইনজীবীদের দায়ের করা বেশ কয়েকটি মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এই রায় দিয়েছে শীর্ষ আদালত৷ আবেদনকারীদের বক্তব্য ছিল, যেহেতু এই ঘটনার তদন্তকে প্রভাবিত করার চেষ্টা ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে, তাই উত্তর প্রদেশে নিরপেক্ষ তদন্ত সম্ভব নয়৷ গত ১৫ অগাস্ট এই বিষয়ে রায়দান স্থগিত রেখেছিল আদালত৷

নির্যাতিতার পরিবারের আইনজীবী সুপ্রিম কোর্টে দাবি করেন, ঘটনার তদন্ত শেষ হলেই মামলার বিচারপ্রক্রিয়া উত্তর প্রদেশ থেকে রাজধানী দিল্লির কোনও একটি আদালতে স্থানান্তরিত করা হোক৷ গত ১৪ সেপ্টেম্বর হাতরসের গ্রামে ১৯ বছর বয়সি এক দলিত তরুণীকে গণধর্ষণ এবং নির্মম অত্যাচার করে উচ্চবর্ণের চার যুবক৷ গত ২৯ সেপ্টেম্বর দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে তাঁর মৃত্যু হয়৷ এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই তড়িঘড়ি নির্যাতিতার দেহ পুড়িয়ে দেয় পুলিশ৷ এই ঘটনায় আগাগোড়াই পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে৷ পুলিশ, প্রশাসনের বিরুদ্ধে হুমকি এবং অসহযোগিতার অভিযোগও তুলেছে নির্যাতিতার পরিবার৷ সুপ্রিম কোর্টে শুনানি চলাকালীন সমাজকর্মী এবং আইনজীবী ইন্দিরা জয়সিং-ও উত্তর প্রদেশে নিরপেক্ষ তদন্ত হওয়া নিয়ে সংশয় প্রকাশ করেন৷

যদিও সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা পাল্টা আদালতকে জানান, নির্যাতিতার পরিবারকে কী ধরনের নিরাপত্তা দেওয়া হয়েছে তার বিস্তারিত ব্যাখ্যা নিজেদের হলফনামায় সুপ্রিম কোর্টে জমা দিয়েছে উত্তর প্রদেশ সরকার৷ ইতিমধ্যেই সিবিআই-কে হাতরস কাণ্ডের তদন্তভার তুলে দিয়েছে যোগী আদিত্যনাথ সরকার৷ শীর্ষ আদালতের নজরদারিতে তদন্ত হলেও তাদের আপত্তি নেই বলে জানিয়েছে উত্তর প্রদেশ সরকার৷

Published by: Debamoy Ghosh
First published: October 27, 2020, 1:18 PM IST
পুরো খবর পড়ুন
अगली ख़बर