• Home
  • »
  • News
  • »
  • national
  • »
  • Mamata Banerjee: তামিলভূমেও ED-ইনকাম ট্যাক্স 'অস্ত্র' বিজেপির, নতুন ছকে 'খেলা' ঘোরাচ্ছেন মমতা!

Mamata Banerjee: তামিলভূমেও ED-ইনকাম ট্যাক্স 'অস্ত্র' বিজেপির, নতুন ছকে 'খেলা' ঘোরাচ্ছেন মমতা!

মমতার নিশানায় মোদির রাজনীতি

মমতার নিশানায় মোদির রাজনীতি

বলেছেন তামিলনাড়ু, অসমের মতো রাজ্যেও বাংলার 'স্ট্র্যাটেজি' নিয়ে ভোট বৈতরণী পার হতে চাইছে বিজেপি। আর তা করতে গিয়ে এগিয়ে দেওয়া হচ্ছে আয়কর, ইডি বা সিবিআই-এর মতো সংস্থাকে।

  • Share this:

    #দিনহাটা: নিজের আসনের ভোট তিনি 'করে' ফেলেছেন, আর নন্দীগ্রামে ভোট হয়ে যাওয়ার পরদিনই উত্তরবঙ্গে পৌঁছে গেলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর কোচবিহারের দিনহাটার সভা থেকে মমতার নিশানায় রইল নরেন্দ্র মোদি-অমিত শাহদের 'প্রতিহিংসাপরায়ন' রাজনীতি। কেন্দ্রীয় বিভিন্ন সংস্থা, এজেন্সিকে দিয়ে বিজেপি কীভাবে বিরোধীদের ফাঁসানোর চেষ্টা করছে, জনসভা থেকে তাও তুলে ধরেছেন মমতা। বলেছেন তামিলনাড়ু, অসমের মতো রাজ্যেও বাংলার 'স্ট্র্যাটেজি' নিয়ে ভোট বৈতরণী পার হতে চাইছে বিজেপি। আর তা করতে গিয়ে এগিয়ে দেওয়া হচ্ছে আয়কর, ইডি বা সিবিআই-এর মতো সংস্থাকে। কিন্তু মমতা এদিন সরাসরি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, 'ইলেকশন পর্যন্ত সহ্য করব। ইলেকশনের পর এই গুণ্ডাগুলো কোথায় যায়, সেটা দেখব। অমিত শাহ কী করবে, দেখে নেব। উনি তো দেশ চালায় না, শুধু দাঙ্গা করে বেড়ায়। প্রধানমন্ত্রী নিজের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে সামলান।'

    গত বুধবারই বিজেপি বিরোধী সমস্ত নেত্রী-নেত্রীদের চিঠি দিয়েছেন মমতা। বঙ্গ ভোটের মাঝেও সারা ভারতের বিজেপি বিরোধী নেতা-নেত্রীদের তিনি আহ্বান জানিয়েছেন একজোট হওয়ার জন্য। সেই চিঠির নির্যাস, নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি বিরোধী স্বরগুলিকে দমন করে একটি কর্তৃত্ববাদী একদলীয় শাসনব্যবস্থা গড়ার লক্ষ্যে এগোচ্ছে বর্তমান কেন্দ্রীয় সরকার। এর বিরুদ্ধে অবিলম্বে একজোট হওয়া প্রয়োজন। সোনিয়া গান্ধি, শরদ পাওয়ার, এমকে স্ট্যালিন, অখিলেশ যাদব, তেজস্বী যাদব, উদ্ধব যাদব, নবীন পট্টনায়ক, হেমন্ত সোরেন, জগন রেড্ডি, কেএস রেড্ডি, ফারুক আবদুল্লা, মেহবুবা মুফতি, দীপঙ্কর ভট্টাচার্যদের উদ্দেশ্যে সেই চিঠি লিখেছেন মমতা। আর বাংলায় ভোটের মাঝেও মমতার এই চিঠিতেই স্পষ্ট, বিজেপিকে সর্বভারতীয় স্তরে ঘিরতে চাইছেন মমতা। এদিনের সভা থেকেও সেই প্রসঙ্গ তুলে ধরেছেন তিনি। বলেছেন, 'তামিলনাড়ুর জন্য একটা বার্তা দিতে চাই। তামিলনাড়ুর নেতারা আজ সকাল থেকে আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছে। কারণ অমিত শাহ গোষ্ঠী স্ট্যালিনদের (এমকে স্ট্যালিন) সবার বাড়িতে ইনকাম ট্যাক্স রেট করছে। ওখানে এখন ভোট তো। কোথায় উত্তরপ্রদেশ, বিহারে তো এসব করো না। সবার বাড়িবাড়ি গিয়ে অত্যাচার করছে। শুনুন অমিত শাহ ভোটের পর চলে যাবে, আমরা সরকার গড়ব। সিআরপিএফ ভাইদেরও বলছি। সাধারণ মানুষ এফআইআর করলে আমার কিন্তু কিছু করার থাকবে না।'

    রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, মমতাই এখন দেশে মোদি বিরোধিতার সবচেয়ে সক্রিয় মুখ। নরেন্দ্র মোদি, অমিত শাহরা যখন মমতাকে উৎখাত করে 'সোনার বাংলা' গড়তে চাইছেন, তখন মমতাও সর্বভারতীয় স্তরে বিজেপি বিরোধিতার মুখ হয়ে উঠতে চাইছেন। ভোটের মাঝে মমতার এই অবস্থান, চিঠি দিয়ে সমস্ত বিরোধী নেতাদের একজোট হওয়ার ডাক নিঃসন্দেহে তাৎপর্যপূর্ণ। আর গোটা দেশের নিরিখে মমতার এই বিজেপি বিরোধিতা তাঁকে বঙ্গ ভোটেও ডিভিডেন্ট দিতেই পারে।

    প্রসঙ্গত, কংগ্রেস-সহ ১৫টি দলকে চিঠি দিয়েছিলেন মমতা। ইতিমধ্যেই কাশ্মীরের পিডিপি নেতৃত্বের তরফে ইতিবাচক বার্তা পেয়েছেন তিনি। শিবসেনাও ভাবনাচিন্তা শুরু করেছে। কংগ্রেস তাকিয়ে আছে সোনিয়া গান্ধির দিকে। মোদ্দা কথা, মমতার এই তীব্র বিজেপি বিরোধিতাকে উড়িয়ে দিতে পারছেন না সর্বভারতীয় নেতানেত্রীরাও।

    প্রসঙ্গত, সনিয়া গান্ধিদের পাঠানো ওই চিঠিতে মমতা কেন্দ্রের তরফে রাজ্যপাল পদটিকে রাজনৈতিকভাবে ব্যবহার, ইডি সিবিআই -এর মত সংস্থাগুলিকে রাজনৈতিকভাবে যথেচ্ছ অপব্যবহার, বিভিন্ন খাতে কেন্দ্র থেকে রাজ্যের যে টাকা প্রাপ্য তা আটকে দেওয়া, ন্যাশনাল ডেভলপমেন্ট কাউন্সিল, আন্তঃরাজ্য কাউন্সিল, পরিকল্পনা কমিশন এর মতো সংস্থাগুলিকে নীতি আয়োগের মতো নখদাঁতহীন একটি সংস্থায় পরিণত করা, বেলাগাম বেসরকারিকরণ, প্রধানমন্ত্রীর কর্তৃত্ববাদী আচরণের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। আর তা যে সারা দেশের রাজনীতিতেই নতুন মাত্রা যোগ করেছে, তা বলাই বাহুল্য।

    Published by:Suman Biswas
    First published: